শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪
Led02অর্থনীতিসদর

বিকেএমইএ’র এজিএমে সেলিম ওসমান ‘সংগঠন পরিচর্চা করতে হয়’

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বিকেএমইএ’তে সহযোগীতা চেয়েছেন; কিন্তু সহযোগীতা পাননি এমন কোন ঘটনা আছে কি না?

সেলিম ওসমানের এমন প্রশ্নের উত্তরে উপস্থিত সকলে বলছেন, ‘না’।

বিকেএমইএ’ ২৩ তম সাধারণ সভায় মঙ্গলবার রাতে এই দৃশ্য দেখা যায়।

এ সময় সেলিম ওসমান বলেন, আপনাদের অভিযোগের উপর বিকেএমইএ’র কর্মকর্তাদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ হবে।

সংগঠনটিতে বিকেএমইএ’র ৬ শত সদস্য রয়েছে। এর মধ্য ২৯০ জনের মতো সদস্য সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সাধারণ সভার সর্ব সম্মতিক্রমে কার্যবিবরণী পঠন ও অনুমোদন, বিকেরামইএ পরিচালনা পর্ষদের এজিএম- ২০২১- ২০২২ এবং ২০২২- ২০২৩ সালের কার্যক্রমের  প্রতিবেদন উত্থাপন ও অনুমোদন করা হয়। অডিটকৃত হিসাব প্রতিবেদন উত্থাপন ও অনুমোদন করা হয়। এছাড়া বিকেএমইএ’র ২০২৩-২০২৪ সালের প্রস্তাবিত বাজেট (আয় ও বায়) উত্থাপন ও অনুমোদন করা হয়। ২০২৩- ২০২৪ সালের বিকেএমইএ’র বার্ষিক হিসাব প্রতিবেদন অডিট ও প্রস্তুত করার জন্য অডিট ফার্ম নিয়োগ প্রদান এবং তাদের ফি নির্ধারন করা হয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে সেলিম ওসমান বলেন, এই নারায়ণগঞ্জে শত শত কোটি টাকার সম্পদ ছিল পাট সমিতির, খুব সুন্দর ভবন ছিল। এখন সেটা ডাক্তার খানা। তাই সংগঠন পরিচর্চা হয়, ধরে রাখতে হবে। এটা আপনাদের ধরে রাখতে হবে। আমি জানি আমাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে আজকের বিকেএমইএ ভবন।  আপনাদের জন্য এই ভবনে ৩টি ফ্লোর দেওয়া হবে।

সেলিম ওসমান বলেন, একটি সময় আমাদের ১৫ ‘শত সদস্য ছিল, এখন মাত্র ৬ শত সদস্য। কেউ ইচ্ছে করে যায়নি, তাদের চলে যেতে হয়েছে। আমি মনে করি- নতুন বাজার খুঁজে বিকেএমইএ’র সদস্যরা পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসবে। দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখবে।

পরিচালনা পর্ষদের নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম , সিনিয়র সহ-সভাপতি মনসুর আহমেদ, সহ-সভাপতি পদে মো. রাশেদ,  গাওহার সিরাজ জামিল, ফজলে শামীম এহসান, অমল পোদ্দার, আকতার হোসেন অপূর্ব ।

এছাড়া সহ-সভাপতি (অর্থ) মোরশেদ সারোয়ার সোহেল।

RSS
Follow by Email