বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪
রাজনীতিসদর

না.গঞ্জ থেকে আ.লীগের সমাবেশে সবচেয়ে বড় সাপোর্ট যাবে: মির্জা আজম

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি বলেছেন, ঢাকার সবচেয়ে পার্শ্ববর্তী জেলা নারায়ণগঞ্জ। আগামী ২৮ তারিখ আমাদের সমাবেশ বায়তুল মোকাররম দক্ষিণ গেট। ফ্লাইওভার থেকে তিন মিনিটে যাওয়া যায়। শাপলা চত্বরও কাছাকাছি। নারায়ণগঞ্জ মহানগর ঢাকার সবচেয়ে আছে। আমরা আশা করি নারায়ণগঞ্জ থেকে আমাদের সমাবেশে সবচেয়ে বড় সাপোর্ট যাবে।

আগামী ৪ নভেম্বর ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সার্কিট হাউজে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মির্জা আজম বলেন, ওরা এখন দিন তারিখ ঠিক করে দিচ্ছে যে তারা শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাচ্যুত করবে। বিএনপি বলেছিলো, গত বছরের ডিসেম্বরের ১০তারিখের পর থেকে খালেদা জিয়ার কথায় দেশ চলবে। ১১ তারিখ তারেক জিয়া দেশে ফিরে সোজা গণভবনে গিয়ে ক্ষমতা গ্রহণ করবে। পরে কি হয়েছে সেটা আমরা সবাই দেখেছি। তারা আবার আগস্ট মাসে বলেছিলো, সেপ্টেম্বরের মধ্যে সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করবে; সেপ্টেম্বর শেষ। পরে আবার বলেছে অক্টোবরের মধ্যে সরকারকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করবে, কি হয়েছে আপনারা সবই দেখতে পারছেন। এখন আবার ২৮ তারিখ জনসমাবেশের নামে ঢাকা অবরোধের কথা বলছে। তাহলে আমরা যারা আওয়ামী লীগ করি তারা কী এখানে বসে থাকবো। আমরা বলেছিলাম ৪ তারিখ সমাবেশ করবো। সেটা হবে। কিন্তু তার আগে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাচ্যুত করতে তারা যে কর্মসূচি দিয়েছে ঢাকা অবরোধের সেদিন আমরাও ঢাকা দখলে রাখবো।

নারায়ণগঞ্জের নেতাকর্মীদের প্রশংসা করে আওয়ামী লীগের এই কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, যারা অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হয়েছে আওয়ামী লীগ করে তাদের মনমানসিকতায়ও আমি পরিবর্তন দেখেছি। সমাবেশ সফল করতে অনেকেই বায়না ধরে। সেটা নেয়ার জন্য না দেয়ার জন্য। যে সমাবেশের এই কাজটা আমি করে দিতে চাই। এটা বাংলাদেশের অন্য কোন জেলায় দেখা যায় না। আপনারা নিজেদের উপার্জিত অর্থের একটি অংশ শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে ব্যাবহার করবেন এটা আমি বিশ্বাস করি।

তিনি বলেন, কাঁচপুরে যে জনসভাটি হল আমি সেখানে সোনারগাঁয়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছি। সেখানে আমি দেখেছি, আওয়ামী লীগ করে গত পনেরো বছরে অনেকেই অর্থনৈতিক ভাবে সমৃদ্ধ হয়েছেন। আগে যে বাইসাইকেলে চড়ত সে এখন মোটরসাইকেল চালায়, যার মোটরসাইকেল ছিল সে প্রাইভেট কার চালায়। সবার বাড়িতেই বিল্ডিং।

এসময় তিনি কাচঁপুরের সমাবেশ সফল করার জন্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে নারায়ণগঞ্জের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানান।

মির্জা আজম বলেন, আমার বাসা ধানমন্ডি। সেখান থেকে নারায়ণগঞ্জ সার্কিট হাউজে আমি সাতচল্লিশ মিনিটে এসেছি। আমার বাসা থেকে আজিমপুর যতক্ষণে যাই তার চেয়ে কম সময়ে আমি নারায়ণগঞ্জ এসেছি। এটা সম্ভব হয়েছে শেখ হাসিনার জন্য।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদলের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ এমপি, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা জাহানারা বেগম ও কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সাঈদ খোকন, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, বস্ত ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংস সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু চন্দনশীল।

সভায় স্বাগতিক বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের পাশাপাশি প্রতিটি উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডের নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

RSS
Follow by Email