মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৬, ২০২৪
Led02রাজনীতি

খানপুরে রিজভী ‘সরকার পদত্যাগ না করা পর্যন্ত বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না’

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আমাদের নেতাকর্মীরা মানসিক চাপে আছেন। যেমনি শারীরিক নির্যাতনে শিকার, তেমনি মানসিক চাপ। বাসায় বসে থাকলেও তার নামে মামলা হয়। প্রতিনিয়ত পুলিশি আক্রমণ এবং আতঙ্কের মধ্যে থাকতে হয়। মানসিকভাবে তারা এমনভাবে বিপর্যস্ত যে, আমাদের নেতাকর্মী কখন কে পৃথিবী ছেড়ে চলে যাবেন তার কোনো ঠিক ঠিকানা নেই। মাহমুদ সে ধরনেরই পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন।

শনিবার (৫ আগস্ট) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদস্য মাহমুদ হোসেনের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানাতে আসেন রুহুল কবির রিজভী। পরে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

সমাবেশে মৃত্যু বরন করা মাহমুদ হোসেনের বিষয়ে রিজভী বলেন, মাহমুদের নামে মামলা আছে। কিন্তু তিনি এতই নিবেদিত ছিলেন কখনো কর্মসূচি থেকে বিরত থাকতেন না। যার কারণে অসুস্থ অবস্থায়ই কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন। ঢাকার সমাবেশস্থলে গিয়ে স্লোগান দিতে দিতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। এই বেদনাবিদুর ঘটনায় শোক জানানোর ভাষা আমাদের নেই। তার মতো নিবেদিত নেতাকর্মীরা আছে বলেই জাতীয়তাবাদী শক্তি টিকে আছে।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে বন্দি করে রেখেছে। কিন্তু তার গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আওয়াজ আজও আমাদের উদ্বুদ্ধ করে। এ দলের জনপ্রিয় নেতা যিনি গোটা দেশকে ঐক্যবদ্ধ করেছেন গণতন্ত্রের পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে। লন্ডন থেকে যেভাবে সুসংগঠিত করছেন প্রযুক্তির মাধ্যমে তার কণ্ঠ তার নির্দেশ তার আহ্বান শুনতে পাচ্ছি। তার বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজা দেওয়া হচ্ছে। দুদিন আগে তিনি এবং তার সহধর্মিণীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়েছে। যাতে তিনি দেশে ফিরে না আসতে পারেন এবং মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হন।

তিনি বলেন, এ ভদ্রমহিলা (জোবায়দা রহমান) সারাদেশে সজ্জন এবং প্রখ্যাত চিকিৎসক হিসেবে মানুষের সেবা করছেন। তিনি একজন বিখ্যাত পরিবারের সন্তান। শুধু হেয় করার জন্য সরকার তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। তারেক রহমান এবং তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো দেওয়া হয়েছে তার একটিও সত্য নয়। মাত্র এক মাসের মধ্যে সাক্ষী জোগাড় করে দ্রুতগতিতে রায় ঘোষণা করা হয়েছে। অথচ কত মামলা আছে। সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এ মামলা দিয়েছে।

রিজভী বলেন, শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করতে হবে। নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে তারপর নির্বাচন করবে বিএনপি। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে ওই নির্বাচন হবে না, ওটা হবে নিশি রাতের নির্বাচন অথবা অন্য কোনো নির্বাচন। এটা জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে প্রতিষ্ঠিত।

এসময় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক খোকন, মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, সদস্য সচিব আবু আল ইউসুফ খান টিপু, মোস্তাফিজুর রহমান ভুইয়া দিপু, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু, জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনিসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

RSS
Follow by Email