সোমবার, জুন ২৪, ২০২৪
Led05বিশেষ প্রতিবেদনরাজনীতি

কমিটি পরে, ঘর গোছাচ্ছে মহানগর আওয়ামী লীগ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: জাতীয় নির্বাচনের আগে ঘর গোছাচ্ছে বর্তমান ক্ষমতাশীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। জেলায় জেলায় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের কমিটি গঠনের হিরিক চলছে। কোথাও নতুন নেতৃত্ব আবার কোথাও নতুন নেতৃত্বের মাধ্যমে চলছে সংগঠনের শক্তি বৃদ্ধির প্রক্রিয়া। তবে, এত কিছুর মাঝেও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগ যেনো থমকে গেছে। নতুন কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে অনেকটা পিছিয়ে তারা।

জানা গেছে, ২০২২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে আগের কমিটির সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদলকে (ভিপি বাদল) পুনরায় দায়িত্ব দেয়া হয়। যদিও এর ঠিক দুই দিন পর মহানগর আওয়ামী লগের সম্মেলনের কথা ছিলো, তবে অজানা কোন এক কারণে সেটি আর হয়নি। কেন্দ্র থেকে ঘোষনা আসে, সম্মেলনের মাধ্যমে ওয়ার্ড কমিটি গঠন করার।

যেই কথা সেই কাজ। সিদ্ধিরগঞ্জের ৯টি ওয়ার্ড বাদে, অন্যা ১৮টি ওয়ার্ডে সম্মেলনের আয়োজন করে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগ। কোথাও কমিটি গঠন করা হলেও, কিছু কিছু ওয়ার্ডে প্রার্থীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় পরে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হবে বলে জানায় নেতারা।

যদিও এর পর থেকেই মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহার মধ্যে বাড়তে থাকে দুরুত্ব। কখনো এক সাথে আবার কখনো আলাদা ভাবে পালন করেন কর্মসূচি। যা নজরে আসে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদেরও। এরই মাঝে আগামী ৬ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে এক বিশেষ সভার আয়োজন করা হয়েছে। অনেকের মতে, সভা থেকে কমিটির বিষয়ে আসতে পারে সিদ্ধান্ত।

এদিকে, ১৯ মাস পর ঘোষনা করা হয়েছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি। পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। তবে, মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে এখনো রয়েছে ধোয়াশা।

দলিও সুত্র মতে, নির্বাচনের আগে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। বর্তমানে জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপির আন্দোলন সংগ্রামের বিরুদ্ধে কে কত জোরালো ভুমিকা রাখতে পারে সেই নিয়ে চলছে প্রতিযোগিতা। তাই বিভিন্ন সভা সমাবেশের মাধ্যমে শক্তির পরিচয় দিচ্ছে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা। এসব কিছুর ওপর ভিত্তি করে গঠিত হতে পারে নতুন কমিটি।

যদিও অনেকের মতে, বর্তমান কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহার ব্যতিক্রম পাওয়া মুশকিল। তবে, তাদের মধ্যকার মতপার্থক্য কেন্দ্রীয় আওয়ামী লগি নেতৃতৃন্দদেরও অজানা নয়।

সম্পৃতি নারায়ণগঞ্জে এসে আওামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে গেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ. ফ. ম. বাহাউদ্দিন নাছিম। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের এখন সব সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। আমাদের নিজেদের কৃতকর্মের কারণে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে পারি না। এক হতে হবে আমাদের। আমাদের সক্ষমতা আমাদের মর্যাদা আমাদের সম্মান আজ বিশ্ব দরবারে তুলে ধরেছেন শেখ হাসিনা। আমরা যদি ঠিক থাকি ঐক্যবদ্ধ থাকি আমাদের হারানোর শক্তি কারো নেই, বিএনপি জামায়াত তো দূরের কথা।’

মহানগর আওয়ামী লীগের একাধীক নেতৃবৃন্দ জানান, আমাদের সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও সেটি কেন্দ্রের নির্দেশে হয়নি। পরে আমাদের ওয়ার্ড কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয়া হয়। সেটি আমরা করেছি। সব গুলো কমিটি ঘোষা করা হয়নি তবে তৈরি করা হয়েছে। সময় মতো জানানো হবে। নির্বাচনের আগে আমাদের মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের কোন সম্ভাবনা নেই। বর্তমানে রাজপথে থাকার নির্দেশ রয়েছে। সামনে নির্বাচন, নেতৃত্বের বিষয়ে চিন্তা না করে নেত্রীকে আবারো ক্ষমতায় আনার জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে থাকা প্রয়োজন। তৃণমূলের নেতাকর্মীদেরও আমরা এই বার্তা দিচ্ছি।

এদিকে, নির্বাচনের আগে মহানগর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি হতে পারেও মনে করছেন অনেকে। তবে, সে বিষয়ে দলিও নেতাকর্মীদের কাছ থেকে কোন আভাস মিলেনি।

RSS
Follow by Email