রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
জেলাজুড়েফতুল্লারাজনীতি

আমি ও দলের চেয়ারম্যান তৃণমূল বিএনপি ছেড়ে যাবো এটা গুজব: তৈমূর

লাইভ নারাণয়গঞ্জ: তৃণমূল বিএনপির মহাসচিব ড. অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, ভবিষ্যতে তৃণমূল বিএনপি ১৮ কোটি মানুষের দৌড়গড়ায় পৌঁছানোর জন্য প্রতিদিন কাজ করছি। তৃণমূল বিএনপি কোনো পিছপা হওয়ার কোনো রাস্তা নেই। তৃণমুল বিএনপি ছেড়ে অন্য কোনো দলে ফিরে যাওয়ার প্রশ্নই আসে না।অনেকেই মনে করেন কিংবা কেউ কেউ গুজব ছড়াচ্ছে যে, আমি এবং দলের চেয়ারম্যান সমশের মুবিন চৌধুরী নাকি তৃণমূল বিএনপি থেকে চলে যাবো? এটা সঠিক তথ্য নয়। আমরা তৃণমূল বিএনপি নিয়েই আছি।

শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মাসদাইর এলাকায় মহানগর তৃণমূল বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়টি পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে চলমান রাজনীতিতে সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো গণতন্ত্র। যারা সরকারে থাকে তারা গণতন্ত্রের ব্যাখ্যা দেয় একরকম আর যারা বিরোধী দলে তারা গণতন্ত্র ব্যাখ্যা দেয় আরেকরকম। প্রকৃতপক্ষে বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমি মনে করি জনগণের আশা আকাংখার প্রতিফলনই ঘটনোই হলো গণতন্ত্র। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় জোর যার মুল্লক তার, এটাই হলো গণতন্ত্র। যে ক্ষমতায় থাকে সে এটাই মনে করে জোর যার মুল্লক তার। সে এটার জন্যই মায়া কান্না করে।

তৈমূর বলেন, গণতন্ত্রকে যারা হত্যা করেছে তারা গণতন্ত্রের নাম দিয়েই গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। আজকে দেশে গণতন্ত্র নেই এজন্য বাংলাদেশে অসুস্থধারার রাজনীতি বিরাজ করছে। আমাদের দল তৃণমূল বিএনপি মনে করে সুস্থ রাজনীতি সুশাসনের ভিত্তি। যেখানে সুশাসন নেই সেখানে নিরপেক্ষ গ্রহণমূলক অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন আশা করা যায় না। গণতন্ত্র নেই বলেই অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হয় না। গায়েবী মোকদ্দমা গণতন্ত্রকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে। গাড়ি পোড়ানো যেমন ফৌজদারী অপরাধ তেমনিভাবে গায়েবী মোকদ্দমা গণতন্ত্রের জন্য প্রতিবন্ধকতা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর তৃণমূল বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আলী হোসাইন, জেলা তৃণমূল বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মাজহারুল ইসলাম রোকন ও মহানগর তৃণমূল বিএনপির সদস্য সচিব সাজিদ খান সিদ্দকী সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

RSS
Follow by Email