বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪
অর্থনীতি

১৮০০ পুলিশ দিয়ে সকল সমস্যার সমাধান হবে, এটা সম্ভব নয়: শামীম ওসমান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান বলেছেন, পৃথিবীর অনেক দেশেই জঙ্গি হামলা হয়েছে। তারা ধরতে পারে না। কিন্তু আমাদের দেশে হলি আর্টিজানে হামলার ঘটনা জড়িতদের ধরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারপরেও বিদেশীরা বাংলাদেশে আসা বন্ধ করে দিয়েছিল। তাদের সাথে কথা বলার জন্য অনেক ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন দেশে যেতে হয়েছে। আবারও বাংলাদেশে ১-২ লাখ মানুষ যদি মারা যায়, তাহলে আমার মনে হয় না বাংলাদেশে কোন বিদেশী আসবে। দেশটা সিরিয়া-লিবিয়ায় পরিনত হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কিন্তু এখন আর আওয়ামী লীগের সম্পত্তি না, রাষ্ট্রের সম্পদ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যেই বলে দিয়েছে কারা কি চাচ্ছে। তাই সিদ্ধান্ত আপনাদের নিতে হবে, আপনারা কি করবেন? ৫০০ মানুষ আগুন দিয়ে পুরিয়ে মারবে তাদের পক্ষে থাকবেন নাকি দেশের উন্নতি করবে, তাদের পক্ষে থাকবেন।
শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় বিকেএমইএ‘র নতুন ভবন উদ্বোধনে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় শামীম ওসমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলোতেনিরাপত্তা জোড়দারের দাবি জানান।

বিকেএমইএ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিমের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী ও বিকেএমইএর নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম।

শামীম ওসমান বলেন, ‘ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে কাজ চলছে, সড়কটি আমার বাবার নামে নামকরণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সড়কটি বাস্তবায়ন হলে যানজট আর থাকবে না। চাষাঢ়া থেকে আদমজী পর্যন্ত আরও একটি সড়ক হচ্ছে, সেটাও আমার মার নামে। আর পঞ্চবটি থেকে মুক্তরপুর পর্যন্ত সড়কটি ২৬০০ কোটি টাকা ব্যয়ে কাজ শুরু হয়ে গেছে। এক সময় কৃষি এলাকা ছিল ডিএনডি, এখন দেশের অধিকাংশ পোশাক কারখানা এখানে অবস্থিত। অথচ এখানকার পানি বাহির হওয়ার পথ ছিল না, পানি গুলোও পদার্থে রূপ নিয়েছিল। খুব কষ্টে এখানে মানুষ বসবাস করতো। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আজকে সেখানে ১৩০০ কোটি টাকার কাজ সেনাবাহিনী করছে। আরও ২ থেকে ৩‘শ কোটি টাকা হলে শেষ হয়ে যাবে। আমাদের নারায়ণগঞ্জবাসীর চাহিদা ছিল মেডিকেল কলেজ ও ইউনিভার্সিটি। আমরা চেয়েছিলাম ও ভেবে ছিলাম ৩০০ শয্যাকে মেডিকেল কলেজ করে দিবে কিন্তু উনি নতুন করে আরও একটি ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট মেডিকেল কলেজের অনুমোদন দিয়েছেন। যেটা লিংক রোডের পাশে হবে। একই জায়গায় বঙ্গবন্ধু ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হবে। বাংলাদেশে সবচেয়ে ব্যয় বহুল যে ৪টা আইইটি ইন্সট্রিটিউট হচ্ছে, তার মধ্যে একটি হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশে। সেখানে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এন্ড কলেজ হচ্ছে, পাসপোট অফিস হয়েছে। আমার ইচ্ছা মানুষকে আর ঢাকায় যেতে হবে না। এই রাস্তার দুই পাশে সকল সেবা পাবে। আরও অনেক গুলো প্রকল্প আমাদের নেওয়া আছে। ফতুল্লায় পানি নিস্কাশনের জন্য ১৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ নেওয়া হয়েছে।’

শামীম ওসমান আরও বলেন, আমরা সবাই আশা করে থাকি পুলিশ সবকিছু করে দিবে। এই বিশাল জেলাতে পুলিশ আছে ১৮০০ থেকে ২২০০ জনের মতো। এছাড়াও লজিস্ট্রিক সাপোর্টও সেই ভাবে নাই। ১৮০০ পুলিশ দিয়ে আমরা যদি মনে করি সকল সমস্যার সমাধান উনারা করে দিতে পারবে, এটা সম্ভব নয়। কারণ উনারা ফেরেস্তা না। বিসিক, ইপিজেড সমস্যা হয়, এ সকল সমস্যা গুলো সৃষ্টি করে। নারায়ণগঞ্জের সদস্যা গুলোর মধ্যে আরও একটি সমস্যা মাদকের। পুলিশ সুপার ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছে। আমরা সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে মাঠে নামবো। এখানে অনেক শিল্প কারখানার মালিক রয়েছে, যাদের কারখানায় ২০ হাজার, ৩০ হাজার শ্রমিক কাজ করে। আপনাদের যদি বলা হয় এখানকার ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ করে আফগানস্থানে যাও, সিরিয়ায় যাও। কেউ কিন্তু যাবে না।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জের সাবেক নারী সংসদ সদস্য হোসনে আরা বাবলী, নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল, সিনিয়র সহ-সভাপতি মনসুর আহমেদ, সহ-সভাপতি মো: রাশেদ, গাওহার সিরাজ জামিল, ফজলে শামীম এহসান, অমল পোদ্দার, আকতার হোসেন অপূর্ব উপস্থিত ছিলেন।

সহ-সভাপতি (অর্থ) মোরশেদ সারোয়ার সোহেলসহ ১২০০ ব্যবসায়ী উপস্থিত ছিলেন।

RSS
Follow by Email