মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০২৪
Led01ধর্মফতুল্লা

সৌদির সঙ্গে মিল রেখে ফতুল্লায় একদিন আগে ঈদ উদযাপন

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: প্রতি বছরের ন্যায় এবারো সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় কয়েকটি গ্রামে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ আদায় ও কোরবানি করেছেন ‘জাহাগিরিয়া তরিকার’ অনুসারীরা। রোববার (১৬ জুন) সকাল ৯টায় ফতুল্লার লামাপাড়ায় হযরত শাহ সুফী মমতাজিয়া এতিম খানা ও হেফজ খানা মাদ্রাসা মসজিদে এ নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

জামাতের ইমামতি করেন মমতাজিয়া এতিমখানা জামে মসজিদের ইমাম মুফতি মাওলানা সাহাব উদ্দিন। ঈদের নামাজ শেষে বিশ্ব মুসলিম উম্মাহ ও দেশবাসির শান্তি কামনায় বিশেষ দোয়া এবং মোনাজাত করা হয়। পরে সেখানে দুটি গরু কোরবানি করা হয়।

ফতুল্লার এ ঈদ জামাতে অংশ নিতে প্রতিবছরের ন্যায় সকাল থেকেই গাজীপুর, ঢাকা, ডেমরা, সাভার এবং নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলা থেকে মুসল্লিরা আসতে শুরু করেন। নামাজ শেষে সকলে একে অন্যের সাথে কোলাকুলি ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

আগত মুসুল্লিরা বলেন, আমরা কাদিরিয়া চিশতিয়া তরিকাভুক্ত। আমাদের মূল কাজ হচ্ছে, সুন্নতের সাথে ধর্ম পালন করা। গতকাল সৌদি আরবে হজ্জ হয়েছে আজ সেখানে কোরবানি। আমরা ওই অনুসারে সারা বাংলাদেশে বেশিরভাগ মুসলমান ঈদ পালন করছি। কিছু লোক আছে যারা ধর্মের অপব্যাখ্যা করে। ধর্মটাকে বিভিন্ন দিকে ধাবিত করছে। যেহেতু আমরা মুসলমান তাই আমাদের কাজ হচ্ছে, একই বৃত্তে অবস্থান করা। তাহলেই সবাই আমাদের ধর্মের প্রতি সম্মান দেখাবে। আমরা আশা করি, একই দিনে সবাই রোজা-ঈদ পালন করবো। এতে করে সংঘাত কম থাকবে, ধর্ম নিয়ে মত বিরোধ কম থাকবে।

মসজিদ কমিটির সভাপতি মোর্শেদ আলম খোরশেদ বলেন, শরিয়তের নিয়ম অনুযায়ী আরাফার পরের দিন ঈদুল আজহা পালন করতে হয়। তবে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান চাঁদ দেখার পর ঈদ পালন করেন। জানি না তারা এটি কেনো করেন, আমাদের এটি দেখার বিষয় না।

ইমাম মুফতি মাওলানা সাহাব উদ্দিন বলেন, সারা বিশ্বে একই দিনে রোজা ও ঈদ পালন করা প্রত্যেকটি মুসলমানের জন্য ওয়াজিব। গতকাল আরাফার দিন ছিলো, তাই আজ সারা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহ ঈদুল আজহা পালন করছেন; এরই ধারাবাহিকতায় আমরাও ঈদুল আজহা পালন করছি। তবে, বাংলাদেশসহ গুটি কয়েকটি রাষ্ট্র এটি করছে না। আমাদের মাঝ থেকে ঈদের প্রথমদিন হাড়িয়ে যাচ্ছে। আমাদের দাবি হচ্ছে সবাই একসাথে হজ্জের পরের দিন যাতে ঈদুল আজহা পালন করে।

RSS
Follow by Email