সোমবার, জুন ২৪, ২০২৪
ফতুল্লা

শ্বাশুড়িকে ফোন দিয়ে গলায় ফাঁস দিলো জামাতা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লার রেললাইন বটতলা থেকে তসলিম হোসেন লিটন (৪৫) নামের এক গার্মেন্টস শ্রমিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে বটতলা এলাকার ইব্রাহিম খাঁ’র বাড়ীর চতূর্থ তলা থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত তসলিম হোসেন লিটন লক্ষিপুর জেলার রায়পুরা থানার চর আবাবিলের মতি বারির পুত্র। সে তার তৃতীয় স্ত্রী কে নিয়ে রমিজ খাঁ’র পুত্র ইব্রাহিম খাঁ’র চতূর্থ তলায় ভাড়ায় বসবাস করতো।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ বাপ্পি জানায়, নিহত তসলিম স্থানীয় একটি গার্মেন্টসে চাকুরি করতো এবং তৃতীয় স্ত্রী ও এক কন্যা কে নিয়ে ইব্রাহিমের চতূর্থ তলায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতো। মঙ্গলবার সকাল সাতটার দিকে স্ত্রীর সাথে পারিবারিক বিষয়াদি নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় নিহত তসলিমের। এতে করে নিহতের স্ত্রী মেয়ে কে তার নিজ বাবার বাড়ী ময়মনসিংহে চলে যায়। বেলা ১১ টার দিকে নিহত তসলিম ময়মনসিংহে থাকা তার শ্বাশুড়িকে ফোন করে জানায় তার মেয়ে চলে গেছে এই ক্ষোভে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করতে চলছে। পরবর্তীতে নিহত তসলিমের শ্বাশুড়ি বাড়ীর মালিককে ফোন করে বিষয়টি অবগত করে। বাড়ীর মালিকসহ আশপাশের লোকজন চতূর্থ তলায় জানালার ফাক দিয়ে উকি দেখতে পায় ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে সাদা রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো তসলিমের ঝুলন্ত লাশ।

সংবাদ পেয়ে পুলিশ দুপুর ১ টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়েছে লাশ উদ্ধার সহ সুরহতাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে নিয়ে যায়।

RSS
Follow by Email