বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪
Led02জেলাজুড়েশিক্ষাসদরসোশ্যাল মিডিয়া

শিক্ষার্থীদের মাদকবিরোধী সচেতন করতে না.গঞ্জ হাই স্কুলে সেমিনার

# প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, স্কুলের আশেপাশে চা-সিগারেট দোকান না থাকে: চন্দনশীল

লাইভ নারায়ণগঞ্জ:শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাদকদ্রবের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে সচেতন করার লক্ষে ও মাদকবিরোধী গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সেমিনার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি)। রবিবার (৯ জুন) সকাল ১০ টায় নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুল এন্ড কলেজে ওই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের নারায়ণগঞ্জ জেলার উপ-পরিচালক মো. রবিউল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্কুলের গভনিংবডির সভাপতি চন্দন শীল।

সেমিনারের শুরুতে বিভিন্ন ক্লাসের শিক্ষার্থীদের মঞ্চে ডেকে এনে তাদের কাছ থেকে মাদক ক্ষতিকারক দিক সম্পের্কে জানেন। মাদকের ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিভিন্ন মন্তব্য নেয়া হয়। তাদের মাদকের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্কুলের গভনিংবডির সভাপতি চন্দন শীল বলেন, শিক্ষা, সংস্কৃতি, খেলাধুলার দিক থেকে নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুল শীর্ষে অবস্থান করছেন। বাচ্চাদের বলবো তোমরা মাদক থেকে দূরে থাকো। আমরা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, আপনারা একটু খেয়ার রাখবেন যাতে স্কুল কলেজের আসে পাশে কোন ধরণের সিগারেট, চায়ের দোকান না গড়ে উঠে। মাদক সেবনের পর কিছু প্রতিক্রিয়া শরীরে দেখা দেয়। যদি এমন কোন প্রতিক্রিয়া তোমরা কোন শিক্ষার্থী বা সহপাঠীদের মধ্যে দেখতে পাও, তাহলে তাৎক্ষণিক সেই শিক্ষার্থীর ক্লাস টিচার, প্রিন্সিপাল ও অভিভাবকদের জানাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সারা পৃথিবীতে মাদক ছড়িয়ে আছে। মাদককে নির্মূল করা যাবে না, তবে মাদককে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। আমাদের বিভিন্ন মেডিসিনের মধ্যে মাদকের এলকোহল থাকে। নানা ওষধের মাদক দিয়ে তৈরী করা হয়, পারফিউম তৈরীতে এলকোহল ব্যবহার করা হয়। এছাড়া নানান জিনিসে মাদকের ব্যবহার করা হয়। এতে মাদককে নির্মূল করা সম্ভব না, তাই মাদককে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। বাংলাদেশে কোন মাদক উৎপাদন হয় না। আমাদের দেশে আয়তনের তুলনায় জনসংখ্যা অনেক বেশী। বাংলাদেশের উন্নয়ণে ঈশ্বানিত হয়ে একটা আন্তর্জাতিক সেন্ডিকেট আমাদের দেশে মাদকের চোরাচালানের মাধ্যমে মাদক ডুকাচ্ছে। আমাদের যুব সমাজকে ধ্বংস করার পায়তারা করছে। তাই আমাদের সকলকে মিলে এই ষড়যন্ত্রের মোকাবিলা করতে হবে।

চন্দনশীল বলেন, শিক্ষার্থীরা তোমাদের পড়াশোনায় মননিবেশ করতে হবে। বিশেষ করে কিশোর-কিশোরীদের বয়স বিবেচনায় রাখতে হবে, এরা খুব মন চঞ্চল থাকে। সব বিষয়ে তাদের কৌতুহল থাকে। তাদের পড়াশোনার বিষয়ে কৌতুহলি হতে হবে, তাদের সংস্কৃতিক বিষয়ে কৌতুহলি হতে হবে, খেলাধুলা ও শরীর চর্চায় কৌতুহলি হতে হবে। তবেই আমাদের ব্রেইন ভালো থাকবে, মন পবিত্র থাকবে, ধর্মীয় চিন্তা মাথায় থাকবে। তাহলে আমরা মাদক থেকে দুরে থাকতে পারবো।

সেমিনানে বিষেশ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. মাহমুদুল হাসান ভূঁইয়া। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের নারায়ণগঞ্জ জেলার পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) মো. জয়নুল আবেদিন, মো. খোরশেদ আলম ও প্রসিকিউটর ফৌজিয়া মুবাশ্বেরাহ নীলিমসহ স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির বিভিন্ন সদস্যবৃন্দ।

RSS
Follow by Email