বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪
Led03জেলাজুড়েরাজনীতিসদর

‘শামীম ওসমান হাত সরিয়ে নিলে চায়ের জন্যও কেউ ডাকবে না’

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম বলেন, আমাদের নেতা হচ্ছে শামীম ওসমান। শামীম ওসমানের বাহিরে তো আমাদের কোন পরিচয় নাই। আজ শামীম ওসমান আমাদের মাথায় হাত রেখেছেন বলেই আমি শাহ নিজাম বা ফাইজুল হতে পেরেছি। অনেকেই নিজেকে বড় নেতা বলে মনে করেন কিন্তু শামীম ওসমান তার হাতটা মাথা থেকে সরিয়ে নিলে রাস্তায় চা খাওয়ার জন্য কেউ দাওয়াত দিবে না।

বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) ফতুল্লায় সামাজিক সংগঠন প্রত্যাশ্যার এক আলোচনা সভা, দোয়া ও ইফতার মাহফিলে এ কথা বলেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম সেন্টু, ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ফতুল্লা থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফাইজুল ইসলাম, ফতুল্লা থানা যুবলীগের সভাপতি মীর সোহেল আলী।

তিনি আরও বলেন, আমাদের নেতা শামীম ওসমান যাকে বলবে আমরা তার পক্ষ হয়ে কাজ করব। আমরা শামীম ওসমানের কথায় চলবো। আমি শামীম ওসমানকে খুব কাছ থেকে দেখেছি বহুবছর। সে আপনাদেরকে একটু সুন্দর সমাজ ও সুন্দর পরিবেশ দেওয়ার জন্য সকাল হতে রাত পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করেন। না খেয়ে আপনাদের জন্য কাজ করেছেন। এক মন্ত্রণালয় থেকে অন্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিটা ডিপার্টমেন্টে ঘুরে দেখেছেন। আপনারা হয়তো ভাবেন একটা রাস্তা করে ফেলা কত সহজ। আসলে একটা রাস্তা করা সহজ কাজ নয়। উনি অক্লান্ত পরিশ্রম করেন শুধুমাত্র আপনাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য। শামীম ওসমান আপনাদের জন্য এত কাজ করেন সেহেতু আপনাদের উচিত, আপনাদের দায়িত্ব শামীম ওসমানের নির্দেশনা মেনে চলা।

শাহ নিজাম বলেন, আমি ব্যানারে নাম চাই না, আমি আপনাদের হৃদয়ের নাম চাই। আপনাদের হৃদয় জয় করে সৃষ্টি কর্তাকে খুশি করা, আপনাদের খুশি করে আমার একান্ত কাজ। অনেকের রাজনীতিকে ধান্দা হিসাবে নিয়েছেন। রাজনীতি করে টেন্ডারবাজি করবে কোটি কোটি টাকা কামাবো। জনমতে এসে আপনাদের কাছে আপন সাজার চেষ্টা করবে। আপনাদের কাছে থেকে, আপনাদের সমস্যাগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করেছি আমাদের প্রিয় নেতা শামীম ওসমানের কাছে। । গত ১২ থেকে ১৫ বছর আমি আপনাদের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। চেষ্টা করেছি যাতে এলাকাগুলোর সমস্যাগুলি সমাধান হয়। অনেক সমস্যায় সমাধান হয়েছে। আর যা বাকি আছে সেগুলোর অল্প কিছুদিনের মধ্যেই সমস্যা গুলো সমাধান হয়ে যাবে যদি আপনার সহযোগিতা এবং ভালোবাসা পাই।

তিনি আরও বলেন, আমরা রাস্তা ঘাট মসজিদ মসজিদ মাদ্রাসা করে এলাকার উন্নয়ন করলে আসলে লাভ কোথায়। প্রতিটা মা-বাবার স্বপ্ন থাকে আমার ছেলে বড় হয় মানুষের মতো মানুষ হবে। কিন্তু আজ সমাজের যে অবস্থা ঘর থেকে বের হলেই মাদক পাওয়া যায়। ডান দিকে তাকালে মাদক, বাম দিকে তাকালে মাদক। আমরা সবাই চেষ্টা করি আমাদের সন্তানদেরকে সুন্দর ও সুন্দর সমাজ দেয়ার জন্য। কিন্তু এই মাদক আমাদের সন্তানকে কেড়ে নেয়। আমাদের স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যায়। তাহলে এ রাস্তাঘাট মসজিদ মাদ্রাসার উন্নয়ন করা আমাদের লাভটা কি। আপনাদের সন্তানদেরকে সুরক্ষা করার জন্য একেএম শামীম ওসমান একটি সংগঠনের নাম ঘোষণা করেছেন যার নাম প্রত্যাশা। আমরা সুন্দর একটি সমাজ চাই যে সমাজে আমার মেয়ে স্কুলে গেলে তাকে উত্তক্ত করবে না। আমার মেয়ে স্কুলে কলেজে এবং কর্মে যাবে এবং নিরাপদেই ঘরে ফিরে আসবে আমরা এমন একটা সমাজ চাই। আর আমরা সেই স্বপ্ন নিয়ে রাজনীতি করছি। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে আপনাদের সকলের সহযোগিতা একমাত্র কাম্য করছি। এটা শামীম ওসমান বা আমার একার পক্ষে কখনোই সম্ভব না। আপনাদের মাধ্যমে স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে। একটি সুস্থ সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠা হবে যেখানে আপনার আমার সন্তানেরা একটু সুন্দর ভবিষ্যৎ পাবে। আগামীর এই সুন্দর সমাজ ও সুন্দর জীবন পাওয়ার জন্য আমাদের সংগ্রাম করতে হবে।

জনপ্রীয় এই নেতা বলেন, আজ আমার, শামীম ওসমান ভাইয়ের পিছে দাঁড়িয়ে কেউ যদি একটি সেলফি তুলে নিজেকে নেতা দাবি করে মাদক ব্যবসা করে তাহলে তাদেরকে দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে হবে। তাদেরকে কোন ধরনের ছাড় দেয়া হবে না। নির্বাচন করতে হলে করব, না হলে করব না। কিন্তু নিরাপদ ও সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠা করা জন্য জীবন দিতে হলে দিবো কিন্তু ছাড় দেবো না। নির্বাচন করার যোগ্যতা অনেকেরই আছে। এখানে ফাইজুল, সোহেল, শরীফ, আলফাজ, লিটন সহ আরো অনেকে ছিল। এখানে সবাই শামীম ওসমানের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে। আমরা সবাই মিলে বলেছি আপনি ফাইজুল কে দেন। তখন যেহেতু সবাই অনুরোধ করছে সেই ক্ষেত্রে শামীম ওসমান ফাইজুলকে কে নির্বাচন করার জন্য আহবান করেছেন। এবং সকলে কাজ করে ফাইজুলকে চেয়ারম্যান বানিয়েছেন।

RSS
Follow by Email