শুক্রবার, এপ্রিল ১৯, ২০২৪
Led02রাজনীতিরূপগঞ্জ

লাঠিসোটায় বিএনপি ও যুবদলের মিছিল, তাদের দাবি ‘সংখ্যায় কম হওয়ায় চলে গেছে আ.লীগ’

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: লাঠিসোটা হাতে নিয়ে ও আগুন জ্বালিয়ে দ্বিতীয় দিনের অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি ও যুবদল। বুধবার (১ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৭টায় রূপগঞ্জ উপজেলার এশিয়ান হাইওয়ে এলাকায় ওই বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় সড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধের পক্ষে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন নেতৃবৃন্দ। যুবদলের নেতাদের দাবি তাদের মিছিলে জমায়েত বেশী থাকায় ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী সংখ্যায় কম হওয়ায় আওয়ামী লীগের সেখান থেকে চলে যায়।

যুবদল সূত্রে জানা যায়, বিএনপি ও যুবদলের মিছিল চলাকালে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সামনের দিকে আসছিলো। এতে সংঘাত বা সংঘর্ষের আশঙ্কা থাকলেও দুটি মিছিল মুখোমুখি না হওয়ায় তা হয়নি। পরবর্তীতে মিছিল শেষ করে বিএনপি, যুবদল নেতাকর্মীরা ওই স্থান ত্যাগ করেন। মিছিলে রূপগঞ্জ থানা বিএনপির সভাপতি মাহফুজুর রহমান হুমায়ুন, সাধারণ সম্পাদক বাছির উদ্দিন বাচ্চু, জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনিসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) মো. আমীর খসরু বলেন, রূপগঞ্জে বিএনপি ও যুবদলের মিছিলের বিষয়টি আমার জানা নেই।

নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনি বলেন, আমরা সকালে বিএনপি ও যুবদলের সমন্বয়ে মিছিল বের করি। এ সময় আওয়ামী লীগের লোকজন আমাদের দিকে তেরে আসার চেষ্টা করে। আমাদের প্রত্যাকের হাতে লাঠিসোটা ছিলো, এছাড়া তারা সংখ্যায় অনেক কম ছিলো। তাই আর তারা আগায়নি আমাদের দিকে। পরে আমাদের থেকে গিয়ে তারা র‌্যাবের ক্যাম্পে অবস্থান নেয়। আমরা পরে সেখান থেকে চলে আসি।

তিনি আরও বলেন, চলমান বিচারহীনতা, অপশাসন, সীমাহীন দুর্নীতি, অনাচার, অর্থ পাচার ও দ্রব্যমূল্যের অব্যাহত ঊর্ধ্বগতি, বিএনপির শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশে হামলা, নেতাকর্মীদের হত্যা, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ আন্দোলনরত বিভিন্ন দলের সহস্রাধিক নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার, বাড়ি বাড়ি তল্লাশি, হয়রানী ও নির্যাতনের প্রতিবাদে, অবৈধ সরকারের পদত্যাগসহ গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার একদফা দাবিতে তাদের এই বিক্ষোভ৷ টানা তিন দিনের এই অবরোধ কর্মসূচি চলবে আগামীকাল পর্যন্ত।

তবে বিএনপি নেতাকর্মীদের দেখে চলে যাওয়ার বিষয়ে আওয়ামী লীগের নেতাদের পক্ষ থেকে কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, গতকাল প্রথম দিনের অবরোধে পুলিশ-বিএনপি ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ত্রিমুখী সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় জেলার আড়াইহাজার উপজেলা। তিন পুলিশ সদস্যকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করা হয়। আগুন দেওয়া হয় অ্যাম্বুলেন্স ও বাসে। জেলার অন্যান্য স্থানেও বিক্ষোভ দেখান বিএনপির নেতাকর্মীরা। গ্রেপ্তার করা হয় কমপক্ষে দশ নেতাকর্মীকে।

RSS
Follow by Email