শনিবার, এপ্রিল ১৩, ২০২৪
Led02বন্দর

যৌতুকের জন্য স্ত্রীর শরীরে আগুন, ৫ দিন পর মৃত্যু

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের বন্দরে যৌতুকের দাবিতে শরীরে আগুন দেওয়া সেই গৃহবধু মারা গেছে।

দীর্ঘ ৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মঙ্গলবার (২৫ জুলাই) সকালে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে তাঁর মৃত্যু হয়।

নিহত গৃহবধু ১৮ বছর বয়সী সুমাইয়া আক্তার। সে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২৪ নং ওয়ার্ডের দেউলী চৌরাপাড়া এলাকার জয়নাল উদ্দিনের মেয়ে।

গৃহবধূ সুমাইয়ার মা মাহামুদা বেগম অভিযোগে উল্লেখ করেন, সুমায়ার সাথে বন্দর উপজেলার তিনগাও এলাকার সেলিনা বেগমের ছেলে শাওনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে শ্বাশুড়ী সেলিনা বেগমের পরামর্শে যৌতুকের জন্য সুমাইয়া আক্তারকে শারিরীক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করতো শাওন। নির্যাতনের বিষয়টি তাঁর মাকে জানালে মেয়েরে সুখের কথা চিন্তা করে ১ লাখ টাকা দেন। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২১ জুলাই রাত ১টায় আরও ২ লাখ টাকার দাবি করে শাওন।

নির্যাতিত গৃহবধূ সুমাইয়া যৌতুকের বিষয়টি তার মাকে জানালে তার মা মাহমুদা বেগম মেয়েরে সুখের কথা চিন্তা করে যৌতুক লোভী পরিবারকে নগদ ১ লাখ টাকা যৌতুক প্রদান করে। এর ধারাবাহিকতায় গত ২১ জুলাই রাত ১টায় যৌতুক লোভী স্বামী শাওন পুনরায় গৃহবধূর কাছে আরো ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। সুমাইয়া দিতে অপরগতা প্রকাশ করলে এলাপাথারী ভাবে মারধর করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলাফুলা জখম করে। এক পর্যায়ে সুমাইয়ার দেহে কেরোসিন তেল ঢেলে অগ্নিসংযোগ করে। পরে গৃহবধূর চিৎকারের শব্দ পেয়ে স্থানীয়রা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে গৃহবধূকে মুমুর্ষ অবস্থায় ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ণ ইউনিটে নিয়ে যায়।

বন্দর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মো. আবু বকর সিদ্দিক লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, অভিযোগ পেয়ে সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। পরে অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

তবে ওসির দাবি, ‘স্বামী কাজ না করাসহ সংসারের নানা বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য থেকে সুমাইয়া আক্তার নিজেই তাঁর শরীরে আগুন দিয়েছে।’

RSS
Follow by Email