মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০২৪
Led03রাজনীতি

যোগ‌্যতায় মামুন মাহমুদের মূল্যায়ন, ‌না.গঞ্জ বিএনপির জন‌্য নতুন ম্যাসেজ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য করায় উচ্ছ্বসিত নেতাকর্মীরা। তাঁরা বলছেন, ‘নেতৃত্বের যোগ্য সম্মান দেওয়া হয়েছে’।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে অধ্যাপক মামুন মাহমুদের শক্ত অবস্থা রয়েছে। দলও আশা করছে-সংগঠনকে সুসংগঠিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন এই নেতা।

নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন এই মামুন মাহমুদ। নানা সময় হয়েছেন মামলা-হামলার শিকার। নাশকতার মামলায় জেলেও যেতে হয়েছে এই অধ্যাপককে।

তৃণমূলের সাথে গভীর সম্পর্ক থাকায় ২০১৭ সালে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় অধ্যাপক মামুন মাহমুদের হাতে। তখন একের পর কমিটি দিয়ে সংগঠনকে সুসংগঠিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন এই নেতা। এরপর বিএনপির বহিস্কৃত নেতা তৈমূর আলমের সাথে ২০২০ সালে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করেন।

আচার, আচরণ, স্বভাব-চরিত্রের কারণে দল ও দলের বাহিরে ‘ভদ্র লোক’ হিসেবেই বেশ পরিচিত অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। অথচ, ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে তাকেই ছুরিকাঘাত করে হত্যার চেষ্টা করেছিল দুর্বৃত্তরা। পুলিশের তদন্তে ঘটনায় জড়িত হিসেবে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বর্তমান কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের ছোট ছেলে গোলাম মো. কাউসার ওরফে রিফাতের নাম উঠে আসলে দূরত্ব সৃষ্টি হয় তার সাথে।

২০২২ সালের নভেম্বরে সেই গিয়াস উদ্দিনের নেতৃত্বে করা আহ্বায়ক কমিটিতে ১ম যুগ্ম আহবায়ক করা হয় মামুন মাহমুদকে। তবুও তাদের মধ্যে দুরুত্ব কমেনি। নেতায়-নেতায় দ্বন্দ্ব থাকলেও ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জের কর্মীদের নিয়ে আলাদা কর্মসূচি পালন করেছেন মামুন মাহমুদ। নিজের সক্ষমতা দেখিয়েছেন কেন্দ্রে। ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জের নিজের প্রভাব প্রতিটি কর্মসূচিতেই  প্রকাশ করেছেন। তার ডাকে হাজর হাজার নেতাকর্মী রাজপথে স্লোগানে মুখরিত করে তুলেন সব সময়। তার সেই নেতৃত্বের মূল্যায়ন করা হয়েছে। ১১ অক্টোবর মামুন মাহমুদকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত করা হয়েছে।

মামুন মাহমুদের নেতৃত্বের মূল্যায়ন করায় তার অনুসারীরা উচ্ছ্বাসিত। নেতাকর্মীরা মনে করছেন, এবার জেলার রাজনীতিতে ভিন্ন রূপ পাবে মামুন মাহমুদের হাত ধরে। কেন্দ্রে তার উপস্থিতি বাড়বে। যা আগামীতে জাতীয় নির্বাচনে যদি বিএনপি অংশ নেয়, সেখানেও এই নেতা বিস্তর প্রভাব থাকবে সহজেই অনুমান করা যায়। এ সময়ে মামুন মাহমুদকে কেন্দ্রে পদায়ন নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র জন্য নতুন মেসেজ হিসেবই দেখছেন তৃণমূল।

RSS
Follow by Email