বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০২৪
Led01জেলাজুড়েবন্দররাজনীতি

বিএনপিকে সেলিম ওসমান ‘যদি পারেন তাহলে আসেন নির্বাচন করি’

লাইভ নারায়ণগঞ্জ:‘আমি আমার বাবার কাছে শিখেছি, যদি ডিসিপ্লিন না থাকে তাহলে সুষ্ঠভাবে কোন কাজ করা যায় না। বর্তমান সরকারের একটাই কাজ, ডিসিপ্লিন অনুযায়ি চলে যাওয়া। এখন ডিজিটাল বাংলাদেশ, এরপর আমরা পাবো স্মার্ট বাংলাদেশ। নারায়ণগঞ্জে আজকে ৪৫ লাখ শ্রমিক নিট শিল্পের সাথে জরিত আছে। আমি এটা করতে পেরেছি, আমার এটা করতে হয়েছে। তাই আজ বৈদেশীক মুদ্রা ইনকাম হয়েছে। আজ এসব নষ্ট করার জন্য আগুন সন্ত্রসীরা আবার খেলায় মেতে উঠেছে। টেলিভিশনের তারা বলে আগামী ২দিন অবরোধ। আরে কিসের অবরোধ, কোথায় অবরোধ। অবরোধ তো একটাই, আমার বাচ্চাদের লেখা পড়া করতে দেয়া হচ্ছে না। ব্যবসায়ীদের ক্ষতিগ্রস্থ করা হচ্ছে। প্রতিটা মাকে আজকে দুঃচিন্তায় ভুগতে হয় তার সন্তানকে নিয়ে।’

শনিবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেনের চেয়ারম্যান হিসেবে এক যুগ পূরনে, উন্নয়ন শীর্ষক সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম সেলিম ওসমান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আপনারা যদি পারেন তাহলে আসেন নির্বাচন করি। নির্বাচন হবে নির্বাচনের সময় মতো। কয়েকদিনের মধ্যে শিডিউল ঘোষণা করা হবে। তবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে শুধু নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন দেইখেন না, পুরো বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখেন। কখনো মানুষ কল্পনাও করে নাই যে, ১২ ঘন্টার মধ্যে পুরো বাংলাদেশকে একটা চক্কর দিতে পারবেন, ট্রেনে করে কক্সবাজার যেতে পারবেন, নদীর নিচে দিয়ে টানেল পার হবেন। বিগত ১৫ বছরের যে উন্নয়ন হয়েছে, সেটা ছিলো আমাদের জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর পরিকল্পনা।

সেলিম ওসমান বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতিটা অঙ্গ প্রতঙ্গের মধ্যে রয়েছে যে, বঙ্গবন্ধু কি করতে চেয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আজ মা-বাবা পরিবারের সবাইকে হারিয়ে শুধু বোন নিয়ে বেঁচে আছেন। আজকে উনি চ্যালেঞ্জ করছে কার শক্তিতে? আপনাদের শক্তিতে। যদি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবার রাষ্ট্রক্ষমতায় আসে, তাহলে যা উন্নয়ন হয়েছে, তার থেকে ডাবল উন্নয়ন হবে। সুতরাং আপনারা আপনার বিবেককে প্রশ্ন করবেন, আমি থাকি বা না থাকি তাতে কিছু আসে যায় না। যদি ট্রেনের ইঞ্জিন না থাকে তাহলে বডি থেকে লাভ আছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু চন্দন শীল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ রশিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কুদরত এ খুদা, বন্দর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু, বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজিম উদ্দিন প্রধান, বন্দর উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হালিমা হোসেন শান্তা, বন্দর উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি বাচ্চু মিয়া প্রধান, জেলা পরিষদের সদস্য মাসুম আহাম্মেদ, বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন আহাম্মেদ, মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন, ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন, মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী এম এ সালাম, এনসিসি ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আফজাল হোসেন, এনসিসি ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্নাসহ নেতৃবৃন্দ।

RSS
Follow by Email