বুধবার, জুলাই ১৭, ২০২৪
Led02জেলাজুড়েফতুল্লাসোনারগাঁ

ফতুল্লায় ঝুট ব্যবসায়ী হত্যা: ১২ বছর পর এক আসামি গ্রেপ্তার

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লার ১২ বছর পর ঝুট ব্যবসায়ী কবির হোসেন হত্যা মামলার দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১। রবিবার (১৫ অক্টোবর) সোনারগাঁও উপজেলার মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। অভিযুক্ত আসামি যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং ৫০হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রাপ্ত আসামি।

আসামীর নাম মো. কাজল মিয়া (২২)। সে ফতুল্লার কোতয়ালেরবাগ বউ বাজার এলাকার হেলাল উদ্দিন ওরফে হেলু মিয়ার ছেলে।

র‌্যাব-১১ মিডিয়া অফিসার (সিনিয়র এএসপি) মো. রিজওয়ান সাঈদ জিকু এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, গ্রেফতারকৃত আসামী ফতুল্লা থানার যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং ৫০হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রাপ্ত দীর্ঘদিন পলাতক আসামী। প্রাথমিক তদন্ত সূত্রে জানা যায় যে, ২০১১ সালের ২১ এপ্রিল রাতে পরিবারের সঙ্গে ঘুমিয়ে ছিলেন ঝুট ব্যবসায়ী কবির হোসেন (৩৫)। রাত ১ টার দিকে ফোন করে ভিকটিমকে তার ভাড়া বাসা থেকে ডেকে নেয় অভিযুক্ত আসামীরা। এরপর আর বাড়িতে ফিরেননি কবির হোসেন। পরদিন সকালে পাশের এলাকার একটি ডোবা থেকে তার গলা ও পেট কাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী তাসলিমা বেগম বাদী হয়ে ফতুল্লা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্তে বেড়িয়ে আসে পূর্ব বিরোধের জেরে পরিকল্পিতভাবে ভিকটিম কবির হোসেনকে হত্যা করা হয়েছে। দীর্ঘ ১ যুগ পর আদালত সোমবার মামলাটির রায় ঘোষণা করেন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর বিকেলে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ উম্মে সরাবন তহুরা এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ে নারীসহ ২ জনকে আমৃত্যু কারাদন্ড ও পাচঁজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। একই সঙ্গে তাদের ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। আমৃত্যু কারাদন্ড প্রাপ্তরা হলেন, ফতুল্লার সিয়াচর এলাকার সালেহা বেগম ও মনির হোসেন। আর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হলো, কাজল মিয়া, মোঃ জুয়েল, নুরুল ইসলাম, মাজেদুল ইসলাম ও মো. লিটন মিয়া।

গ্রেপ্তারকৃত আসামী’কে পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রমের জন্য ফতুল্লা থানার নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

RSS
Follow by Email