রবিবার, জুন ২৩, ২০২৪
Led02জেলাজুড়েরাজনীতিসদর

নেত্রী বেঁচে আছেন বলেই বাংলাদেশ টিকে আছে: খোকন সাহা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা বলেছেন, বঙ্গবন্ধর হত্যার পর ওরা আওয়ামী লীগকে দাবানোর চেষ্টা করেছে। আওয়ামী লীগকে টুনডা করেছে, এই হচ্ছে ইতিহাস। ঝড়ের মধ্যে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মিলে সিদ্ধান্ত নিলেন বঙ্গবন্ধুর পর দলের সভাপতি হলেন শেখ হাসিনা। হাজার হাজার নেতাকর্মী উৎসাহিত হলেন, দল চাঙা হয়ে উঠলো। যে দিন নেত্রী আসলেন সে দিন খুব বৃষ্টি। নারায়ণগঞ্জ থেকে কোন গাড়ি যাচ্ছিল না। তবু আমরা গেলাম। সেদিন দেখেছি, বঙ্গবন্ধুর নেতাকর্মীরা ঝড়-বৃষ্টির তোয়াক্কা না করে বাংলার মাটিতে নেত্রীকে স্বাগত জানিয়েছে। নেত্রী নিজের জীবন বাজি রেখে বসেছিলেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে পূরণ করতে, অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে।

শুক্রবার (১৭ মে) মহানগর আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এক আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি। বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে, ২৭টি ওয়ার্ড থেকে কয়েক হাজার নেতাকর্মী বিভিন্ন মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে আসতে থাকেন। এর মধ্যে সাবেক ছাত্রনেতা খান মাসুদ ও সাবেক ছাত্রনেতা হাবিব দুইটি বড় মিছিল নিয়ে সভাতে যোগদান করে। মিছিলের নেতাকর্মীদের সমাগম উপস্থিত সকলের নজর কেড়েছে।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন। সভায় বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা, সহ সভাপতি শেখ হায়দার আলী পুতুল, সহ সভাপতি এড. হান্নান আহমেদ দুলাল, সহ সভাপতি মাসুদুর রহমান খসরু, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মুজিবুর রহমান, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব, জিএম আরমান , দপ্তর সম্পাদক এড. বিদ্যুৎ কুমার সাহা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আইয়ুব আলী, কৃষকলীগ নেতা শাহ জামাল খোকন, মহানগর তাঁতী লীগের আহবায়ক চৌধুরী, এইচ, এম, শাহেদ ফারুক, যুব মহিলা লীগ নেত্রী নুরুন্নাহার সন্ধ্যা।

সভায় খোকন সাহা বলেন, সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছায় বঙ্গবন্ধু কন্যা আজ বাংলাদেশকে স্মার্ট বাংলাদেশে পরিণত করছেন। উনার নেতৃত্বের কারণে সব কিছু সম্ভব হচ্ছে। নেত্রী নিদের্শ দিয়েছেন, জনগণের পাশে থাকার জনগণের খবর নেওয়ার। নেত্রী জনগণের জন্য কি না করেন। সবসময় সকল বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে বাংলাদেশকে ডিজিটাল করেছেন। আজকে নেতার অভাব হয় না। কিন্তু নেত্রীর উর্ধ্বে কেউ নাই। নেত্রী বেঁচে আছেন বলেই বাংলাদেশ টিকে আছে, উন্নয়নের কাজ হচ্ছে।

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি রবিউল হোসেন, প্রচার সম্পাদকএডভোকেট হাবিব আল মুজাহিদ পলু, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুল আলম চঞ্চল, আলাম চঞ্চল মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আমেনা আমেনা বেগম বনওপরিবেশ আখতারুজ্জামান সম্পাদক, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আতাউর রহমান, কোষাধাক্ষ কামাল দেওয়ান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক গাজী আব্দুর রশিদ,সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াসিন মিয়া, কার্য করি কমিটির, সদস্য এস এম পারভেজ, জালাল উদ্দিন জালু সাখাওয়াত হোসেন সুমন, রমজান আলী, সুমি আক্তার, শামিম খান, তাজিম বাবু, আমির হোসেন, আবেদ হোসেন, পারভিন আক্তার, শিপন সরকার, উত্তম সাহা, সাবেক ছাত্রনেতা খান মাসুদ, হাবিবুর রহমান হাবিবসহ নির্বাচিত নবগঠিত বিভিন্ন ওয়ার্ড,সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ।

RSS
Follow by Email