বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪
Led04জেলাজুড়েসদর

নগরীতে সাম্পান সুজ‘র শ্রমিকদের বিক্ষোভ

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নগরীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে সাম্পান সুজ লিমিটেডের শ্রমিক-কর্মচারীরা। কাচঁপুর শিল্পাঞ্চল বিসিকে অবস্থিত এই ‘সাম্পান সুজ লিমিটেড’ কারখানা। বিক্ষোভের সময় শ্রমিক-কর্মচারীরা ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মাসের বকেয়া মজুরি পরিশোধ, পিএম রুবেলকে চাকরি থেকে অপসারণ সহ ১২ দফা দাবি জানান।

মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) নারায়ণগঞ্জ কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তর কার্যালয়ের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের ডিআইজি বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে শ্রমিক-কর্মচারীরা।

বিক্ষোভ কর্মসূচিতে কারখানার শ্রমিক মোবারক হোসেনের সভাপতিত্বে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কাদির, র্গামেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শরিফ, কাচঁপুর শিল্পাঞ্চল শাখার সহসভাপতি আনোয়ার খানঁ প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, কারখানার মালিক বাংলাদেশ শ্রম আইন মেনে কারখানা পরিচালনা করে না। সরকার ঘোষিত পাদুকা শিল্পের গেজেট অনুযায়ী বেতন নির্ধারণ ও পরিশোধ করে না। শ্রম আইনে ৭(সাত)র্কম দিবসে বেতন পরিশোধ করার বিধান থাকলেও মালিক মানছে না। শ্রম আইন অনুযায়ী চাকরি থেকে ইস্তফা বা রিজাইন দিলে র্সাভিস বেনিফিটের টাকা দেয় না।

নারী শ্রমিকদের মাতৃত্বকালীন সবেতনে ছুটি দেয় না। কারখানায় শ্রমিক অসুস্থ হলে ছুটি বা চিকিৎসা মালিক করায় না এবং এমবিবিএস ডাক্তার রাখে না। শ্রমিকদের খাবারের জন্য ক্যান্টিন এর ব্যবস্থা করে না, শ্রমিকরা কষ্ট করে খাবার গ্রহন করে, বিশ্রাম নিতে পারে না। বিনা কারণে শ্রম আইন না মেনে কথায় কথায় শ্রমিকদের ছাটাঁই করে এবং শ্রমিকদের সাথে কর্মকর্তারা ভয়ানক দুর্ব্যবহার করে।

এই কারখানার মালিক এখন পর্যন্ত শ্রম আইন অনুসারে নিয়োগপত্র-পরিচয়পত্র সকল শ্রমিককে প্রদান করে নাই। কারখানার র্কমর্কতা পিএম রুবেল শ্রমিকদের সাথে খুবই বাজে আচরণ করে, হুমকি-ধমকি দেয় এবং বলে মালিক যখন মন চায় বেতন দিবে। কেউ প্রতিবাদ করলে তাদের ছাঁটাই ও মার ধরের হুমকি দেয়।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, শ্রমিকেরা সময়মতো বেতন না পাওয়ায় বাড়িভাড়া ও দোকান বাকি বিল পরিশোধ করতে পারছে না, সন্তানের শিক্ষার খরচ, পরিবারের চিকিৎসা ও অন্যান্য প্রয়োজন মেটাতে পারছে না। বাড়িওয়ালা, দোকানদার খারাপ আচরণ করছে শ্রমিকদের সাথে। তাই সংকট নিরসনের জন্য মালিকের নিকট ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিকট দ্রুত ডিসেম্বর, ২০২৩ মাসের বকেয়া মজুরি পরিশোধ ও ১২ দফা মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান।

RSS
Follow by Email