মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০২৪
Led01জেলাজুড়েপরিবহনবিশেষ প্রতিবেদনসোশ্যাল মিডিয়া

ট্রেনের যাত্রী ছুটছে বাসে, বাড়ছে নগরীর যানজট

# বাধ্য হয়ে বাসে যেতে হয়, যানজটও পোহাতে হয়: সাধারণ যাত্রী
# এটা পরিকল্পিতভাবে কমিয়ে দেয়া হয়েছে: সাংবাদিক আব্দুস সালাম
# আরও ২০ ভাগ কাজ বাকি আছে: স্টেশন মাস্টার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পদ্মা সেতুর রেল প্রকল্প কাজের জন্য আট মাস বন্ধ ছিলো ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা। দীর্ঘদিন হলেও এই রুটে ট্রেন চলাচল ফের চালু হয়েছে। কিছুটা স্বস্তি পেলেও সাধারণ মানুষের ভোগান্তির অবসান হয়নি। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের প্রতিশ্রুতি ছিলো, যাত্রীদের কথা চিন্তা করে নারায়ণগঞ্জ রেলপথে মোট ৮টি ট্রেন ১৬ বার আসা যাওয়া করবে। পদ্মা সেতুর বাকি কাজ শেষ হলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে পরিপূর্ণভাবে ট্রেন চলাচল শুরু হবে। কিন্তু ট্রেন চালুর হওয়ায় প্রায় ৭ মাস পার হয়ে পদ্মা সেতুতেও ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। তবুও চালু হয়নি নারায়ণগঞ্জ রুটে পরিপূর্ণভাবে ট্রেন।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জের দীর্ঘদিনের অন্যতম প্রধান সমস্যার একটি যানজট। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আইভী, এমপি সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমানের সমন্বয়ে ফুটপাত দখলমুক্ত হয়েছে। কিন্তু যানজট মুক্ত নগরী হয়নি এখনো। বঙ্গবন্ধু সড়ক ও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোডে চাষাঢ়া থেকে নতুনকোর্ট পর্যন্ত রাস্তায় এখনো যানজটের শিকার হতে হয় সাধারণ যাত্রীদের। সচেতন মহলের দাবি ‘ট্রেনের যাত্রীদের চাপ পড়েছে বাসের উপর, নারায়ণগঞ্জে পরিপূর্ণ ট্রেন চলাচল করলে যাত্রীচাপ কমবে। এতে যানজট অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকবে’

নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুস সালাম লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, মেয়র-এমপি ও ডিসি এসপিকে আমরা জানিয়েছে, নারায়ণগঞ্জে আগে ১৬ জোড়া ট্রেন চলাচল করতো। কিন্তু এখন সেটা অর্ধেকে নেমে আসছে। আমাদের বলা হয়েছিলো পদ্মা সেতুর কাজ শেষ হলে পরিপূর্ণ ট্রেন চলাচল করবে। কিন্তু ট্রেন চালু হয়েছে ৮মাস প্রায়, এখনো সেই অর্ধেকের নিয়মেই চলছে। আমি এটা জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনকে অবহিত করার পরে, তাঁরা আমাদের আশ্বাস দিয়েছে বিষয়টা দেখবে, কিন্তু সেখানেও প্রায় ১ সপ্তাহ হতে চললো এখনো কোন কার্যক্রম খুঁজে পাইনি প্রশাসনের।

তিনি আরও বলেন, আমাদের কাছে মনে হচ্ছে এটা পরিকল্পিতভাবে কমিয়ে দেয়া হয়েছে। এতে করে আমাদের নারায়ণগঞ্জে সকল শ্রেণীপেশার মানুষের ভোগান্তি হচ্ছে। ট্রেন বন্ধ হওয়াতে বাস গুলো সুবিধা নিচ্ছে এবং যাত্রীরা বাধ্য হয়েই অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে বাসে চলাচল করছে। আমি মনে করি পরিপূর্ণ ট্রেন চলাচল দ্রুত করা হোক।

কাজ সম্পন্ন করে গত বছরের ১০ অক্টোবর থেকে চালু হয়েছে পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে ট্রেন চলাচল। মাওয়া স্টেশন থেকে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের আংশিক (ঢাকা-ভাঙা) উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সময় রেল কর্তৃপক্ষের জানায় ‘ঢাকা থেকে পদ্মা সেতুর রেল চালু হলে, আগের মতো ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেল পথেও ট্রেন চলাচল শুরু হবে। এছাড়া এখনো বাকি আছে ঢাকা নারায়ণগঞ্জ ডাবল লেনের আংশিক কাজ, শেষ হলেই স্বাভাবিক নিয়মে চলাচল করবে ট্রেন।’

পদ্মা সেতুর ট্রেন চলাচল চালু হওয়ার ৫মাস অতিক্রম করলেও এখনো আগের নিয়মেই চলছে নারায়ণগঞ্জ রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা। ভোগান্তি দিনকে দিন বেড়েই চলছে। ট্রেনের সময় সূচি ও ট্রেনের সংখ্যা কম হওয়া এই ভোগান্তির সুরাহা চাচ্ছে নগরবাসী।

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেল চলাচল করা যাত্রী হাবিবুর রহমান লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, ট্রেন চালু হলেও আমাদের অফিসের সময়ের সাথে কোন মিল নাই। আমাদের অফিস টাইম ৯-১০টা থাকে। কিন্তু এই সময় গুলোর মধ্যে কোন ট্রেন নাই। তার উপর ট্রেনের ভাড়া বৃদ্ধি করেছে, তবে সেই তুলনায় সেবার মান বাড়েনি। অধিকাংশ সময়ে বাধ্য হয়ে বাসে যেতে হয়, কিন্তু বাসে গেলেও দীর্ঘ যানজট পোহাতে হয়। নারায়ণগঞ্জ শহর থেকে শীবুমার্কেট যেতেই দেড় ঘন্টার মতো সময় পার হয়ে যায়।

ট্রেনে গেন্ডারিয়া থেকে আসা এক শিক্ষার্থী জানায়, আমাদের যাতায়াতে সুবিধা হয় ট্রেন। কিন্তু ট্রেনের সময়সূচি মোটেও আমাদের সুবিধা অনুযায়ী হয়নি। আমরা যে সময় কলেজে আসি তার ২ ঘন্টা আগে আসতে ট্রেনে আসে। তাছাড়া সড়ক পথে যে পরিমান যানজট, এই জন্য বাধ্য হয়েই ট্রেনে যাতায়াত করি।

একটি প্রাইভেট ক্লিনিকের সেবিকা নুসরাত জাহান নিশা লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানায়, আমাদের ট্রেনে যে ভাড়া নেয় সে অনুযায়ি সার্ভিস পাইনা। আমাদের এই রেল পথে আরও উন্নত করতে হবে। আগের মতো পরিপূর্ণ ট্রেন চলাচল করলে হয়তো কিছুটা স্বস্তি পাওয়া যেতো।

নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার কামরুল ইসলাম লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, গেন্ডারিয়ায় পদ্মা সেতুর কাজ এখনো পরিপূর্ণ শেষ হয়নি। দয়াগঞ্জের ব্রীজের কাজ এখনো শেষ হয়নি, প্রায় ৮০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। আরও ২০ ভাগ কাজ বাকি আছে, তাই কাজ শেষ হলেই নারায়ণগঞ্জে আগের মতো করে ট্রেন চলাচল করবে। আপাতত আগের মতোই ৮ জোড়া ট্রেন চলবে। ধারণা করা হচ্ছে খুব কম সময়ের মধ্যে কাজ শেষ হয়ে যাবে। ঢাকা- নারায়ণগঞ্জ ডাবল ট্রেন চলাচল করবে। নারায়ণগঞ্জের সাধারণ যাত্রীদের ভোগান্তির অবসান হবে।

RSS
Follow by Email