মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০২৪
Led02জেলাজুড়েপরিবহনবিশেষ প্রতিবেদনসোশ্যাল মিডিয়া

কোলাহলপূর্ণ ব্যস্ত নগরী ফিরছে চিরচেনা রূপে

# কিছুদিন এমন গেলে আবার অভ্যাস হয়ে যাবে
# ছুটি শেষ আবার সেই যানজট শুরু
# অন্যান্য দিনের তুলনায় যাত্রীর সংখ্যা বেশি: পরিবহন শ্রমিক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ঈদুল আজহার ছুটি শেষে নারায়ণগঞ্জে ফিরতে শুরু করেছেন কর্মজীবী মানুষেরা। টানা ছুটি কাটিয়ে সরকারি, বেসরকারিসহ নানা প্রতিষ্ঠান এর চাকুরিজীবীরা কর্মজীবন শুরু হলেও ফিরছেন পোষাক শিল্প কল কারখানার শ্রমিক। কোলাহল বাড়ছে নগরীতে। চিরচেনা রূপে ফিরছে নগরী। গত কয়েক দিনের তুলনায় মঙ্গলবার সকালে নারায়ণগঞ্জের রাস্তাঘাট এর চিত্র দেখা যায় অনেকটা আগের মত ব্যস্ত।

সরেজমিনে নারায়ণগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সড়কের চাষাঢ়া, কালীর বাজার, ২নং রেলগেট, ডিআইটি, শায়েস্তা খান সড়ক, সিরাজউদ্দৌলা সড়ক এলাকা ঘুরে দেখা যায় কর্মস্থলে ফিরতি মানুষের চাপ। পোষাক শিল্প কল কারখানার শ্রমিকরা ঈদুল আজহার লম্বা ছুটি কাটিয়ে, ২৬ জুন কর্মস্থলে যোগ দিতে মানুষ শহরমুখী হচ্ছে।

ঈদের ছুটি প্রিয়জনের সাথে কাটাতে শেকড়ের টানে বাড়ি ফেরেন নারায়ণগঞ্জের লক্ষাধিক মানুষ। ১৫ জুন কর্মদিবস শেষ করে ১৬ ও ১৭ জুন ঈদের ছুটি কাটাতে বেশির ভাগ মানুষ নারায়ণগঞ্জ ছাড়েন। যানজট কমে যাওয়ায় শহরের মানুষের চলাফেরায় অনেকটা স্বাচ্ছন্দ্য আসে। নিত্য যানজটের হাত থেকে কিছুদিন মুক্তি মেলে তাদের। ঈদের ছুটি শেষ হওয়ায় কর্মস্থলে যোগ দিতে দেশের নানা প্রান্ত থেকে মানুষ ফিরছে নগরীতে।

নগরীর চাষাঢ়াতে বাস স্টপেজ গুলোতে দেখা যায়, গত কয়েক দিনের তুলনায় মঙ্গলবার ভিড় তুলনামূলক বেশি। তবে প্রধান প্রধান সড়ক গুলোতে কিছুটা যানজট এর চিত্র দেখা গেছে। অন্য দিকে পঞ্চবটি, গলাচিমার মোড় ও সরকারি মহিলা কলেজের সামনে ব্যাটারি চালিত অটো রিক্সায় শ্রমিকদের ভিড় লক্ষ করা গেছে।

বিসিকে যাবেন সাগর কাজী। গলাচিপার মোড়ে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন অটো রিক্সার জন্য। তিনি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, ২০ মিনিট যাবত অপেক্ষা করছি অটো রিক্সার জন্য। এখান থেকে সিরিয়ালে অটো ছাড়ে। ঈদের আগেরদিন থেকে ভালোই ছিলো আসলেই পাওয়া যেত এখন, মানুষ গ্রাম থেকে আশা শুরু করছে, তাই একটু ভোগান্তি পোহাচ্ছি। কিছুদিন এমন গেলে আবার অভ্যাস হয়ে যাবে।

অনেকেই বলছেন ভিড় এড়াতে আগেভাগে গ্রাম থেকে চলে এসেছেন। নারায়ণগঞ্জ একটি বেসরকারি কোম্পানীর চাকরিজীবী মো. আল মেহেদী লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আবার সেই ব্যস্ততম যান্ত্রিক জীবনে ফেরা। পরিবারের সাথে ঈদ করতে গিয়েছিলাম। মা-বাবা, ভাই-বোনের সাথে সুন্দর সময় কাটালাম। আমার পরিবারও কিছু সদস্য নারায়ণগঞ্জে থাকে। ওরা আর কিছুদিন থাকবে গ্রামে, বাচ্চাদের স্কুল শুরু হলে নিয়ে আসবো। আমার অফিস শুরু হয়ে গেছে। আমি ভিড় এড়াতে আগেভাগেই চলে এসেছি।

অন্যদিকে ঈদে যারা নারায়ণগঞ্জ ছিলেন গত কয়েকদিন তারা ঘোরাফেরা করেছেন স্বাচ্ছন্দ্যে। আমলাপাড়া স্থানীয় বাসিন্দা গৌরব ঘোষ বলেন, ‘এ কয়দিন নারায়ণগঞ্জ পুরো ফাঁকা ছিল। যেখানে এক জায়গা থেকে আর এক জায়গা যেতে এক-দুই ঘণ্টা লাগে, জ্যাম না থাকায় সেখানে দশ-পনেরো মিনিটে পৌঁছে গেছি। ছুটি শেষ আবার সেই যানজট শুরু।

শহরমুখী মানুষের সংখ্যা ঈদের ছুটির অন্যান্য দিনের তুলনায় চোখে পড়ার মতো। সড়কে কিছুটা বেড়েছে যানবাহন ও মানুষের ভিড়। নারায়ণগঞ্জ বাস টার্মিনাল ও ২নং রেলগেট এলাকা ঘুরে দেখা যায় কিছুটা যানজট।

বাস স্টপেজগুলোতেও একই চিত্র দেখা যায়। বাসের হেলপাররা জানান, অন্যান্য দিনের তুলনায় আজকে যাত্রীর সংখ্যা বেশি। কাল থেকে আরও বাড়বে তখন ট্রিপ ও বাড়াতে হবে।

পরিবার নিয়ে ঈদের ছুটি কাটিয়ে আবার নারায়ণগঞ্জ ফিরছেন নগরবাসী। কর্মস্থলে যোগ দিতে ও ভিড় এড়াতে অনেকে আগেভাগেই চলে এসেছেন। কোলাহলপূর্ণ ব্যস্ত নগরী ফিরছে তার চিরচেনা রূপে।

RSS
Follow by Email