বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪
Led05জেলাজুড়েফতুল্লারাজনীতিসিদ্ধিরগঞ্জ

কেন্দ্রে গিয়ে প্রমান করেন নারীরা প্রতিবাদ করতে জানে: লিপি ওসমান

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান ও নারায়নগঞ্জ -৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের সহধর্মীনি সালমা ওসমান লিপি বলেন, সাত তারিখ নির্বাচনের দিন আপনারা সকলেই ভোট কেন্দ্রে যাবেন। নিজেরা যাবেন এবং অপরজনদের সাথে ও নিয়ে যাবেন। আপনারা নারীরা ও সেদিন ভোট কেন্দ্রে গিয়ে প্রমান করে দিনেন নারীরা ও প্রতিবাদ করতে শিখেছে।

মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) বিকেলে ফতুল্লা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ফতুল্লা চৌধুরী বাড়ী পারিবারিক মিলনায়তনের মাঠে এক নির্বাচনী উঠান বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি।

এসময় তিনি আরো বলেন, ,যারা ভোট বানচালের চেষ্টা করছে,আমরা তাদের ভয়ে ভীত নই। আমরা তাদের ভয়ে ভীত না। কারও ষড়যন্ত্রে আমরা পা দেব না। ৭ তারিখ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে শামীম ওসমান কে জয়যুক্ত করুন এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী করেন।

একই দিন অপর এক উঠান বৈঠকে সালমা ওসমান বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন হচ্ছে দ্রুত গতিতে,পদ্মা সেতু হয়েছে,মেট্রো রেল হয়েছে,ট্যানেল লাইন হয়ছে,আরো অনেক উন্নয়ন হয়েছে। যারা উন্নয়ন চায়না,যারা নিজেদের স্বার্থ চাইছে,আমি বিএনপির উদ্দেশ্যে বলছি,বিএনপি যদি দেশের উন্নয়ন বা জনগনের জন্য আন্দোলন করছেনা, নিজেদের স্বার্থে আন্দোলন করছেন।যদি তারা জনগনের জন্য আন্দোলন করতো তাহলে মানুষ পুড়িয়ে মারতোনা, তিনি বিএনপিকে নির্বাচন আসার আহবান জানিয়ে বলেন যদি জনগন চায় তাহলে নির্বাচনে এসে তা প্রমান করতেন। আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারতেনা। চার বছরের এক শিশু কে ট্রেনে আগুনে পুড়িয় হত্যা করেছে। আমরা এর প্রতিবাদ করবো ৭ তারিখে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে। আমরা ১৯৭১ সালেও প্রতিবাদ করেছি। একটা মানুষ হিসেবে প্রতিবাদ করবো। ভোট কেন্দ্রে গিয়ে আপনারা প্রমাণ করবেন কোন অন্যায় আপনারা মানবেন না। অসহযোগ আন্দোলনের সময় আমি দেখেছি একটা লাশ দাফন করার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো তখন গুলি করা হয়েছিলো। লাশ বহনকারী মানুষগুলো লাফাচ্ছিলো লাশ ও রাস্তায় পরেছিলো।

তিনি আরো বলেন আমি সাংসদ শামীম ওসমানের স্ত্রী হিসেবে বলছিনা। আমি একজন মানুষ হিসেবে বলছি, ১৯৯৬ সালে তিনি যখন প্রথমবারের মতো নির্বাচিত হয় তখন তার নির্বাচনী এলাকায় ২৬ শত কোটি টাকার কাজ করেছিলেন। এতেই প্রমানিত হয় তিনি কাজ করতে পারেন। বাচাঁ মরা আল্লাহর হাতে। আজকে আছি কালকে নাও থাকতে পারি বা পারে। উনি কাজ করে যাচ্ছেন। শামীম ওসমান কর্মী বান্ধব নেতা। আপনার যাদি চান মাদক মুক্ত এলাকা গড়তে,আপনারা যদি চান অগ্নি সন্ত্রাস চিরতরে বন্ধ করতে,আপনারা যদি চান সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়তে তাহলে ৭ তারিখ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিবেন। পতিতা পল্লী উচ্ছেদের পর তার উপর বোমা হামলা হয়েছিলো। আমি সেদিন ভেবেছিলাম আমি বিধবা হয়ে গিয়েছিলাম। আমি রক্তাক্ত পথ মাড়িয়ে সামনে গিয়ে দেখি শামীম ওসমানের রক্তাক্ত দেহ। তখন সে আমাকে উদ্দেশ্য করে বলে আমি বেঁচে আছি। সেদিনের সে হামলায় সে বেচেঁ গেলও আমাদের ২০ টি ছেলে সেদিন মারা গিয়েছিলো।

RSS
Follow by Email