সোমবার, জুন ২৪, ২০২৪
Led02রাজনীতি

কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে না.গঞ্জ জেলা-মহানগর আ.লীগ, যে বার্তা পেলেন

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ জেলা, মহানগরসহ ঢাকা ও ঢাকার পার্শ্ববর্তী সকল জেলা মহানগর এবং সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (১ অক্টোবর) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই আয়োজন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার জন্য গণসংবর্ধনার দেয়ার কথা থাকলেও পরে ওই সভা থেকে সংবর্ধনা না করার বিষয়ে জানায় সিনিয়র নেতারা। লন্ডন থেকে আগামী ৪ অক্টোবর ঢাকায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর তাকে ওই সংবর্ধনা দেওয়ার কথা ছিলো।

সভায় নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, সবার যৌথ ভাবে কাজ করতে হবে। যখনই ডাক আসবে ঝাঁপিয়ে পরতে হবে। এখন বিএনপি চাইবে সন্ত্রাস করতে। সরকারকে বিপদে ফেলতে। আমাদের সপথ নিতে হবে, এই ভায়োলেন্স আমরা ঐকব্যবদ্ধ ভাবে মোকাবেলা করবো। বাংলার মাটিতে নির্বাচন হবে, সহিংশতা হবে না।

অক্টোবরে মাসব্যাপী দলের কর্মসূচি ঘোষণা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জানান, ‘৩ অক্টোবর সাভারের আমিন বাজারে শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ। ৭ অক্টোবর বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালটি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। এ উপলক্ষে ওইদিন সেখানে জনসভা হবে। ১০ অক্টোবর পদ্মাসেতুর রেলসেতুর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। মাওয়াপ্রান্তে সুধী সমাবেশ হবে। ভাঙ্গায় জনসভার প্রস্তাব আছে। ২৩ অক্টোবর আগারগাঁও-মতিঝিল মেট্রোরেল উদ্বোধন উপলক্ষে শাপলা চত্বরে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে জনসভা এবং ২৮ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু কর্ণফুলী টানেলের উদ্বোধন উপলক্ষে সেখানে সুধী সমাবেশ হবে।’

এসময় দলীয় নেতাদের বক্তৃতা-বিবৃতিতে বেফাঁস কথা না বলার পরামর্শও দেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল (ভিপি বাদল) বলেন, অক্টোবর মাস জুড়ে আওয়ামী লীগের নানান কর্মসূচির বিষয়ে আজকে আমাদের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগামী ১৩ তারিখ কাঁচপুরে একটি শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে, সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাহেব।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা বলেন, আমাদের নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগরসহ আরও কয়েকটি জেলার সাথে কেন্দ্রীয় সম্পাদক মন্ডলির বৈঠক হয়েছে। ৪ অক্টোবর আমরা রাস্তার দু’পাশে দাঁড়িয়ে নেত্রীকে সংবর্ধনা দেয়ার কথা থাকলেও সেই কর্মসূচিটি বর্জন করা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন মহাসমাবেশ, বিভাগীয় সমাবেশের বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতারা বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়েছেন।

RSS
Follow by Email