Mon, 19 Nov, 2018
 
logo
 

‘তফসিল ইসির নয়, সরকারের’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: তফসিল নির্বাচন কমিশনার ঘোষনা দেয় নাই, এটা সরকারের তফসিল বলে দাবি করেছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা। তাদের দাবি, নীতি নির্ধারকের নির্দেশে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে যে কোন ধরণের কর্মসূচি ও আন্দলনের জন্য প্রস্তুত দলটি।

বৃহস্পতিবার তফসিল ঘোষণার পর রাত সাড়ে ৯টায় মহানগর বিএনপির নেতারা একথা বলেন। এর আগে সন্ধ্যায় আগামী ২৩ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে সিইসি কে এম নুরুল হুদা। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৯ নভেম্বর, বাছাইয়ের তারিখ ২২ নভেম্বর ও প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৯ নভেম্বর।

সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১২৩ দফা (৩) উপদফা (ক)-এর বরাতে এবং নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময়সূচি ঘোষণা করেন।

অন্যদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গত সোমবার ইসির সঙ্গে বৈঠক করে তফসিল পেছানোর দাবি করে। কারণ হিসেবে তারা বলেছে, সরকারের সঙ্গে সংলাপ চলছে। এর ফলাফল দেখে তফসিল ঘোষণা করা যেতে পারে। ঐক্যফ্রন্ট বলেছে, সমঝোতার আগে তফসিল ঘোষণা করা হলে তারা নির্বাচন কমিশন অভিমুখে পদযাত্রা করবে।

এ ছাড়া জাতীয় পার্টি ও যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনের তফসিল না পেছানোর জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। গত বুধবার জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠক করে আজ তফসিল ঘোষণার অনুরোধ করেন। যুক্তফ্রন্টের নেতা ও বিকল্পধারার মহাসচিব আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল গত মঙ্গলবার ইসিকে চিঠি দেয়।

বিএনপির চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, এই তফসিল নির্বাচন কমিশনার ঘোষনা দেয় নাই, এইটা সরকারের তফসিল। আমার ব্যাক্তিগত মতামত হলো, সরকার একদিকে আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নতুন মামলা করছে। অপরদিকে সাড়া দেশে আমাদের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করছে। এই দিকে তফসিল ঘোষনা করে আরেকটি নজির দেখালো। আসলে সরকার অংশগ্রহণ মূলক নির্বাচনের পরিপন্থী। গতকাল আমাদের স্থায়ী কমিটির বৈঠক গিয়েছে তফসিল ঘোষনার পরে আবার বৈঠক হবে। তারপর আমরা সিদ্ধান্ত নিবো কি কর্মসূচী গ্রহণ করা যায়। এর আগে কোন সিদ্ধান্ত দেওয়া যাচ্ছে না।

এই বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটি এম কামাল বলেন, সরকার অংশগ্রহণ বিহীন নির্বাচনের আয়োজন করতে চায়। তাই নির্বাচন কমিশনারকে দিয়ে তরিঘরি করে তফসিল ঘোষনা করিয়েছে। তারা অংশগ্রহণ মূলক নির্বাচন চাইলে অবশ্যই তফসিল ঘোষণা এই ভাবে করাতো না। এখন যদি আমাদের নীতি নির্ধারকরা কোন কর্মসূচি দেয়, তাহলে অবশ্যই সেই কর্মসূচী পালন করবো। নারায়ণগঞ্জ বিএনপি সব সময়, যে কোন ধরণের কর্মসূচি এবং আন্দলন করতে প্রস্তুত। তবে আমরা শান্তিপূর্ণ প্রক্রিয়ায় আন্দলনে বিশ্বাসী।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম