Tue, 16 Oct, 2018
 
logo
 

ঈদের ৭ দিন আগে বেতন ও পূর্ণ বোনাস পরিশোধের দাবিতে মানববন্ধন ও মিছিল


ঈদের ৭ দিন আগে আগস্ট মাসের ১৫ দিনের বেতন ও পূর্ণ বোনাস পরিশোধ এবং গার্মেন্টস শ্রমিকের ন্যূনতম মজুরি ১৮০০০ টাকা ঘোষণার দাবিতে আজ সকাল ৮ টা থেকে ৯ টা পুলিশ লাইন তাগারপাড়ে গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট গাবতলী-পুলিশ লাইন শাখার উদ্যোগে মানববন্ধন ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট গাবতলী-পুলিশ লাইন কমিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম শরীফ সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, সহ-সভাপতি হাসনাত কবীর, দপ্তর সম্পাদক কামাল পারভেজ মিঠু, বিসিক শাখার আবু সাঈদ সাইদুর, গাবতলী-পুলিশ লাইন শাখার সহ-সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন, খোরশেদ আলম।

ঈদের ৭ দিন আগে বেতন ও  পূর্ণ বোনাস পরিশোধের দাবিতে মানববন্ধন ও মিছিল
নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুই ঈদে বেসিক বেতনের সমান দুই বোনাস দেওয়া হয়। কিন্তু শ্রম আইনে বোনাস কথা না থাকায় গার্মেন্টসে মালিকরা শ্রমিকদের বোনাস থেকে বঞ্চিত করে। বোনাস শ্রমিকের অধিকার। মালিকরা ঈদের ছুটির পুর্ব মূহুর্ত পর্যন্ত শ্রমিকদের বোনাস-বেতন পরিশোধ না করে শ্রমিকদের জিম্মি করে। ঈদের আগ মুহুর্তে শ্রমিকরা যখন ঈদ পালনের জন্য বাড়ি যেতে গাড়ির টিকেট পর্যন্ত করে ফেলে তখন মালিকর বেতন-বোনাস পরিশোধ করে। কিছু মালিক হাফ বোনাস দেয়, কিন্তু অধিকাংশ মালিক শ্রমিকদের বোনাস না দিয়ে বকশিশ হিসাবে সামান্য কিছু টাকা দেয়। শেষ সময় হওয়ায় শ্রমিকদের তখন প্রতিবাদ করার কোন সুযোগ থাকে না। সরকারও মালিকদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয় না। সামান্য টাকা নিয়ে শ্রমিকরা অল্প ভাড়ায় ঝুঁকি নিয়ে পরিবহনে গ্রামে যায়। যেতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মৃত্যু পর্যন্ত হয়।
নেতৃবৃন্দ বলেন, ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ২২ আগস্ট । ফলে ঈদের আগে আগস্ট মাসের অর্ধেক বেতন শ্রমিকের প্রাপ্য। ঈদের ৭ দিন আগে শ্রমিকের পূর্ণ বোনাস ও আগস্ট মাসের অর্ধেক বেতন পরিশোধ করতে হবে এবং হাতে সময় নিয়ে ছুটি দিতে হবে। এতে শ্রমিকরা তাদের প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করে নির্বিঘেœ বাড়ি গিয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে ঈদ করতে পারবে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ১৪ জানুয়ারি গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণের লক্ষ্যে মজুরি বোর্ড গঠন করা হয়। শ্রম আইনের ১৩৯ (২) ধারা অনুসারে মজুরি বোর্ড গঠনের ছয় মাসের মধ্যে বোর্ডের নতুন মজুরির সুপারিশ করার নিয়ম। সেই হিসাবে মজুরি বোর্ডকে জুলাই মাসের মধ্যে নতুন মজুরি কাঠামোর সুপারিশ করার কথা। কিন্তু আগস্ট মাসের অনেকদিন পার হলেও এখনো মজুরি বোর্ড সুপারিশ করেনি। মূলত বিজিএমইএ-বিকেএমইএ এর অঙুলী হেলনে মজুরি বোর্ড কালক্ষেপন করছে। শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরির দাবি ১৮০০০ টাকা । কিন্তু মজুরি বোর্ডের বৈঠকে মালিক প্রতিনিধি ৬৩০০ টাকা এবং সরকার নির্ধারিত শ্রমিক প্রতিনিধি ১২০০০ টাকা প্রস্তাব করে। শ্রমিকরা এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে। বর্তমান বাজার দর ও শ্রমিকদের জীবন যাত্রার ব্যয় বিবেচনায় ন্যূনতম মজুরি ১৮০০০ টাকার কম হতে পারে না। নাম মাত্র সামান্য কিছু মজুরি বৃদ্ধি হলে গার্মেন্টসের ৪০ লাখ শ্রমিক তা গ্রহণ করবে না। এতে গার্মেন্টস শিল্পে যেকোন অনাকাংখিত পরিস্থিতির জন্য মালিক ও সরকার দায়ী থাকবেন।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম