Mon, 18 Feb, 2019
 
logo
 

জন্মদিনে রিয়াদ 'অয়ন ওসমান’র হাত ধরে আমার পথচলা'

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘ছোট বেলা থেকে এই দিনে একটি কথা বলতাম- জন্ম হোক যথা তথা কর্ম হোক ভাল।’

নিজ জন্মদিনে এইভাবেই কথাগুলো বলছিলেন তরুণ ছাত্রনেতা ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ। ১৯৯০ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি মো. জালাল উদ্দিন প্রধান ও হালিমা খাতুন দম্পতির ঘরে জন্ম গ্রহণ করেন ছোট রিয়াদ। ফতুল্লার মাসদাইরে প্রধান বাড়িতে জন্মেছেন এই তরুণ ছাত্র নেতা। দুই ভাইয়ের মাঝে তিনিই ছোট। বাবা-মার হাত ধরে মাসদাইর প্রাইমারি স্কুল থেকে প্রাথমিক শিক্ষা, ধারাবাহিকভাবে ২০০৫ সালে আদর্শ স্কুল থেকে বাণিজ্য বিভাগে মাধ্যমিক, ২০০৭ নারায়ণগঞ্জ কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক, সরকারী তোলারাম কলেজ থেকে ২০১২ সালে বিবিএ (অনার্স) সম্পন্ন করেন রিয়াদ।বর্তমানে তোলারাম কলেজ থেকে মাস্টার্স করছেন।

ছোট বেলায় ইচ্ছে ছিল ক্রিকেটার হওয়ার। কিন্তু ভাগ্যের চাকা ঘুরে রাজীনিতে প্রবেশ করেন। ২০০৮ সাল থেকে লেখা ছিল রাজনীতিতে ছাত্র সংসদের মাধ্যমে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। নেতৃত্ব দেওয়ার এক পর্যায়ে মহানগর ছাত্রলীগের ৩ বছর আহবায়ক ছিলেন। এখন বর্তমানে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। বর্তমানে তোলারাম কলেজের ছাত্র সংসদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে লাইভ নারায়ণগঞ্জ এর সাথে কথা হয়েছে হাবিবুর রহমান রিয়াদের সঙ্গে। আলাপকালে তিনি বলেন, ছোট বেলায় আব্বু আম্মু জন্মদিনে সারপ্রাইজ দিত, বর্তমানে আমার নতুন ভাবি জন্মদিনে উপহার দিয়ে থাকেন। আম্মু ছোট বেলা থেকে এ দিনে আমার জন্য ভুনা খিচুরি ও গরুর মাংস রান্না করেন।

তিনি আরো বলেন, আমার ছাত্র রাজনীতিতে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন অয়ন ওসমান। অয়ন ওসমান এর সার্বিক সহযোগিতায় আমি এতদুর আসতে পেরেছি। অয়ন ওসমান আমার বন্ধু আমার ভাই।

তার জন্মদিনকে ঘিরে বিশেষ কোনো আয়োজন এর উত্তরে তিনি বলেন, রাত ১২ টায় আমার প্রাণ প্রিয় ভাই আমার বন্ধু অয়ন ওসমান আমাকে অভিন্দন জানিয়েছে। সকাল থেকে তোলারাম কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা আমার সাথে জন্মদিন পালন করেছে। আমাদের অধ্যক্ষ মহাদয় বেলা রানী সিংহ আমাকে শুভেচ্ছা অভিন্দন জানিয়েছেন। আমি অনেক আনন্দিত এত মানুষের ভালবাসা পেয়ে। এ অফুরন্ত ভালবাসার ঋণ আমি কখনো শোধ করতে পারবো না। সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ আমাকে মনে রাখার জন্য।

তরুণ এই ছাত্র নেতা জানালেন, অবসর সময়ে খেলাধুলা, বই পড়া , ও বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে ভালবাসেন। প্রিয় ব্যক্তিত্ব এ কে এম শামীম ওসমান। প্রিয় ফুল গোলাপ। প্রিয় রং সাদা।

সামনে কোন সুসংবাদ পাওয়ার সম্ভাবনা আছে কিনা এর উত্তরে তিনি বলেন, আগামি দুই তিন বছরে এমন কিছু নিয়ে ভাবছি না। আমার অনেক কাজ বাকি আছে সেগুলো গুছিয়ে বিয়ের কথা ভাববো।

তরুণ এ ছাত্র নেতার শুভ জন্মদিনে লাইভ নারায়ণগঞ্জ পরিবারের পক্ষ থেকে রইল প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম