Wed, 18 Jul, 2018
 
logo
 

৬৬ বছরে পা রাখলেন না.গঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সবার প্রিয় কবীর স্যার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ : মুজিবুল হক কবীর পেশায় একজন শিক্ষক ও লেখক। তবে কবি হিসেবেই তিনি সর্বমহলে সমাদৃত।

মুজিবুল হক কবীর ১৯৫২ সালের ১১ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ জেলার পাইকপাড়া গ্রামে জম্ম গ্রহন করেন। এ বছরে তিনি ৬৬ বছরে পা রাখলেন। তার জন্মদিনে লাইভ নারায়ণগঞ্জ পরিবারের পক্ষ থেকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা।

মুজিবুল হক কবীরের বাবা সিরাজুল হক ও মাতা জাহানারা হক, ৩ ভাই ও ১ বোনের মাঝে তিনি বড় সন্তান ছিলেন। তার শৈশব ও কৈশোর কাটে নবাবগঞ্জ থানায় কাহুর গ্রামে। তিনি সেখান থেকে স্কুল জীবন শেষ করেন। ১৯৬৯ সালে নবাবগঞ্জ হাই স্কুলে থেকে এসএসসি, ১৯৭১ সালে এইচএসসি তোলারাম কলেজ থেকে, ১৯৭৪ সালে বিএ ও ১৯৭৫ সালে জগ্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাশ করেন।

১৯৭২ সালে দৈনিক বাংলা পত্রিকায় ছাপা হয় তার প্রথম কবিতা ‘সান্ত¦না’ এবং ১৯৮৭ সালে তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘পা যে আমার অনড় পাথর’ প্রকাশিত হয়। সেই ধারাবাহিকতায় একের পর এক বই বের হয়েছে তার। তিনি সত্তর দশকের আধুনিক কবিদের অন্যতম একজন।

মুজিবুল হক কবীরের লেখা ২২টি বই প্রকাশিত হয়েছে। এগুলো কবিতা অনুবাদিত। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, ‘লোপামুদ্রা ও অন্যান্য কবিতা’, ‘আমি ও আমার প্রতিবিম্ব’, ‘রাতের শিরায় আগুন’, ‘মুজিবলি হক কবীরের কবিতা’, ‘জলের অদ্ভুত সংগীত’, ‘অগ্নিগর্ভ দিন হাওয়াই পদ্য’, ‘আকাশের জানালা সোনালী কাক’।

তিনি ছাত্র জীবনে ১৯৭২ সালে ছাত্র ইউনিয়নের সাথে যুক্ত ছিলেন। তিনি তখন একটি হলের প্রকাশনার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮০ সালে শাহিদা কবীরের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবন্ধ হন। বর্তমানে তিনি ১ মেয়ে ও ১ ছেলের পিতা। মেয়ে মারিয়া কবীর ও ছেলে ইমরুল কবীর দুইজনেই শিক্ষকতা করেন।

এরমধ্যে মুজিবুল হক কবীর ঐতিহ্যবাহী নারায়ণগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরেই শিক্ষকতা করছেন। তিনি অনেকেরই প্রিয় কবীর স্যার হিসেবে পরিচিত। তার অগণিত ছাত্র রয়েছে নারায়ণগঞ্জে। যারা আজ স্ব স্ব অবস্থানে প্রতিষ্ঠিত।

কবি মুজিবুল হক কবীর কবিতা লিখতেই বেশি পছন্দ করেন। তার প্রথম প্রেম বলা যায় কবিতাই। শব্দ নিয়ে খেলা করতেই এই মানুষটির ভীষণ প্রিয়। তার প্রিয় ফুল গোলাপ, প্রিয় রঙ আকাশী ও প্রিয় খাবার বিরিয়ানি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম