Sat, 15 Dec, 2018
 
logo
 

সুফিয়াদের স্বপ্নে চাবুকাঘাত, দেখবে কে?

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পরিবারে অভাব লেগেই ছিলো সুফিয়ার (ছদ্মনাম)। তার উপর পেয়েছে বিদেশে মোটা অঙ্কের টাকা কামানোর চাকরির প্রস্তাব। তাই একটু ভালো থাকার আশায় দিক-বিদিক না তাকিয়ে ‘হ্যা’ বলেছেন ওই নারী। কিন্তু প্রবাসে পা রাখতেই ঘোর কেটেছে, ভেঙ্গেছে স্বাচ্ছন্দে জীবন কাটানোর স্বপ্নও।

নামটি ছদ্ম হতে পারে, ঘটনাটি সত্য। রূপগঞ্জ উপজেলার বরপার হতদরিদ্র ২৫ বছর বয়সী এক সুফিয়ার সাথে গত ৭ নভেম্বর এ ঘটনা ঘটে।

দুবাই পৌছানোর মাত্র এক সপ্তাহের মাথায় ১৪ নভেম্বর পরিবারের কাছে সুফিয়া ফোন করে জানান, তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে দাসত্বমূলক কাজে নিয়োজিত করা হয়েছে। কিন্তু সে কাজ করতে না চাওয়ায় তার উপর অত্যাচার করা হচ্ছে।

এঘটনায় সুফিয়ার পরিবার বাদি হয়ে রূপগঞ্জ থানায় ২০১২ সালের মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এঘটনায় জড়িত থাকা ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ।

পরে আদালতে উঠানো হলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা বেগম আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নির্মান্ডে নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন।

রিমান্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন ফটিকছড়ির পশ্চিম ভূজপুর এলাকার মো. সায়ের উদ্দিন এর ছেলে সফিউল আযম বাচ্চু (৩৫) ও বড়ুয়া থানার নছরপাড়া এলাকার রুহুল আমিন এর ছেলে আরিফুল ইসলাম রনি (৩০)। এদের মধ্যে আযম বাচ্চুকে ২ দিনের ও আরিফুল ইসলাম রনিকে ১ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

পুলিশ তদন্তে জানা গেছে, রূপগঞ্জ থানার বরপা এলাকার সুফিয়াকে (২৫) মাসে ৩ লাখ টাকার বেতনে ভালো চাকরীর কথা বলে গত ৭ নভেম্বর বিদেশে পাঠায়। কিন্তু সে ১৪ নভেম্বর দুপুরে ১ টায় দুবাই থেকে ফোন করে জানায় তাকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে দাসত্বমূলক কাজে নিয়োজিত করেছে। কিন্তু সে কাজ করতে না চাওয়ায় তার উপর অত্যাচার করা হচ্ছে।

এঘটনায় আদালতে রূপগঞ্জ পুলিশ দাবি করেছেন, আসামীরা একটি মানবপাচার চক্রের সদস্য। যুবতী মেয়েদের ভালো বেতনে বিদেশে চাকুরীর লোভ দেখিয়ে বিদেশে নিয়ে আসামাজিক ও দাসত্বমূলক কাজ করতে বাধ্য করে এবং না করলে নির্যাতন করে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম