Wed, 22 Nov, 2017
 
logo
 
 

 
 
2017-11-22-05-47-32স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীকে অনেক কিছু বলতে চান, বুঝাতে চান। কারণ মেয়র আইভী ভাল মন্দ বোঝেন না । এ জন্যে লং ড্রাইভে আইভীকে চান শামীম ওসমান। অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়ের উপস্থপনায় ‘ সেন্স অব হিউমার’ অনুষ্ঠানের একটি পর্বে অতিথি হয়ে আসেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি...
 
সর্বশেষ শিরোনাম
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

 
 
 
 
 

 
শহরজুড়ে

 

রাজনীতি
 
জেলাজুড়ে

 

অর্থনীতি

বিশেষ প্রতিবেদন
 
 
 
 
 
 
 

 

 

 

 

শিক্ষা
 
স্বাস্থ্য
 
ক্রিড়া
 
ধর্ম
 
জনপ্রতিনিধি
 
সাক্ষাতকার
 

ক্যারিয়ার
 
বিনোদন
 
সাহিত্য
 
মন্তব্য কলাম
 
আইন-আদালত
 
লাইফ স্টাইল
 
শুভ কামনা
 
দুর্ভোগ
 
জরুরি প্রয়োজনে
 
এ্যালবাম
Previous ◁ | ▷ Next
 
মিডিয়ায় না’গঞ্জ
কোথায় কি
 
 

ক্রয়-বিক্রয়
 
ভাড়া
 
ভ্রমন
 
ইতিহাস-ঐতিহ্য
 
 
 
 
 

কেমন ছিল আইভী-শাখাওয়াতের ভোটের আগের দিন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ : দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত ছিলেন প্রার্থীরা। মঙ্গলবার রাত থেকে সে প্রচারণা থেমেছে। বৃহস্পতিবার ভোটগ্রহণ। মাঝে ছিলে বুধবার। কোন প্রচারণা কিংবা তেমন কোন ব্যস্ততা ছিলো না প্রার্থীদের।

তবে, এদিন তারা পোলিং এজেন্টদের নিয়েই কাজ করেছেন। ফলে নির্বাচনে তাদের কী কী করণীয় সে ব্যাপারে দিক নির্দেশনা দিয়েছেন তারা।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২০ দলীয় জোটের মনোনীত মেয়র প্রার্থী এড. সাখাওয়াত হোসেন খান মিডিয়ায় কোন কথা না বললেও সারা দিন নির্বাচনী ক্যাম্পে বসেই সময় কাটিয়েছেন। সকালে ঘুম থেকে উঠে নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মার্কেটের ৩য় তলায় তার চেম্বারে যান। সেখানে বসে নেতাকর্মীদের খোঁজ খবর নিয়েছেন।

বিএনপির মিডিয়া সেল সূত্রে জানা যায়, বুধবার এড. সাখাওয়াত হোসেন খান তার নির্বাচনী ক্যাম্পে বসেই সময় কাটিয়েছেন। নেতাকর্মীদের সাথে ঘরোয়াভাবে আলোচনা করেছেন। এদিকে তার পক্ষে নারায়ণগঞ্জ নগর বিএনপির সম্পাদক এটিএম কামাল, এড. সরকার হুমায়ুন কবির ও আবু আল ইউসূফ খান টিপু সদর এলাকার পোলিং এজেন্টদের নিয়ে কাজ করেছেন।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীও নিশ্চুপ রয়েছেন। বুধবার সকাল থেকেই শহরের দেওভোগে নিজ বাসায় ছিলেন তিনি। সকাল থেকেই বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা ভিড় করতে থাকে। ওই সময়ে তিনি নির্বাচনী কলাকৌশল নিয়েই ব্যস্ত থাকেন। গণমাধ্যম কর্মীরা বাসায় ভিড় করলেও তিনি কথা বলতে রাজি হয়নি।

বেলা ১১টার দিকে আইভী একবার ভবনের তৃতীয় তলার ফ্লাট থেকে নিচে নেমে আসেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, আমি আজ কোনো কথা বলবো না। ভোটের দিন কথা বলবো।