Tue, 13 Nov, 2018
 
logo
 

বৃহত্তর ঈদ জামাতের মাঠে এবার গান বাজনা, অতিথি সেই শামীম ওসমান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: শামীম ওসমানের উদ্যোগে দেশের বৃহত্তম ঈদের জামাতের একটি জামতলার সামসুজ্জোহা ক্রীড়া কমপ্লেক্স আয়োজন করেছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন। এবার সেই মাঠেই কনসার্ট হচ্ছে আর এতে প্রধান অতিথি থাকবেন সেই শামীম ওসমানও।

এক মাসের কম সময়ের মধ্যে এক স্থানে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা আর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হওয়ায় শামীম ওসমানকে নিয়ে গত কয়েক দিন যাবত নগরীর সুশিল সমাজ থেকে রাজনৈতিক মাহলে চলছে নীরব আলোচনা, সমালোচনা। পাশাপশি প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও বলছেন ‘বিষয়টি দৃষ্টিকটু’। তবে আয়োজকরা তা মনে করছেন না।

জানা গেছে, মাসদাইরস্থ নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহের সাথে একত্রিত করে একেএম সামসুজ্জোহা ক্রীড়া কমপ্লেক্স মাঠে স্থানীয় সাংসদ একেএম শামীম ওসমানের উদ্যোগে গত ঈদুল আজহাতেই দেশের বৃহত্তম জামাতের আয়োজন করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন। এবার সেই মাঠেই সরকারি তোলারাম কলেজের আয়োজনে নবীন বরণ উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন আলোচিত সমালোচিত সাংসদ শামীম ওসমান।

বৃহত্তর ঈদ জামাতের মাঠে এবার গান বাজনা, অতিথি সেই শামীম ওসমান

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, যে স্থানে ঈদের নামাজ, সেই স্থানেই আবার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আবারও প্রমান করলেন শামীম ওসমান অসুস্থ। সারা জীবনই খামখেয়ালী করে গেছে। এই খামখেয়ালীপনা তার উত্তরাধীকার সূত্রে পাওয়া।

নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম বলেন, বৃহত্তর ঈদের জামায়াতের আয়োজন ছিলো শামীম ওসমানের রাজনৈতিক স্ট্যান্ডবাজি। তিনি শুধু রাজনৈতিক কৌশলের জন্য এতগুলো মানুষকে ঈদের নামাজের ছোয়াব থেকে বঞ্চিত করেছেন। আমি শামীম ওসমানের এই ধরণের কর্মকা-ে তীব্র নিন্দা জানাই। পাশাপাশি আগামীতে যাতে এরকম আর স্ট্যান্ডবাজী করতে না পারে, সে বিষয়ে সচেতনতার আহ্বান জানাচ্ছি।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. রেজাউল বারী বলেন, দেশের বৃহত্তম ঈদের জামাতের একটি হয়েছে নারায়ণগঞ্জে। সেই একই স্থানে এখন যদি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তাহলে বিষয়টি অবশই দৃষ্টিকটু।

তবে শামীম ওসমান অনুসারী হিসেবে পরিচিত নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগ ও সরকারি তোলারাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ বলেন, সরকারি তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থী সংখ্যা প্রায় ২০ হাজার। অথচ, কলেজ ক্যাম্পাস ছোট। তাই এবার নবীন বরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সামসুজ্জো ক্রীড়া কমপ্লেক্সে মাঠে আয়োজন করা হয়েছে। মাঠটি ক্রীড়া সংস্থার। এই মাঠে খেলাধুলা থেকে শুরু করে বিভিন্ন অনুষ্ঠান হতে পারে। তাই ক্রীড়া সংস্থার অনুমতি নিয়েই আমরা নবীন বরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছি।

প্রসঙ্গত, আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর আয়োজিত নবীন বরণ অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিল্পী হিসেবে থাকবেন আর্টসেল ব্যান্ডের শিল্পীরা, খ্যতিমান শিল্পী ইমরান ও ক্লোজআপ ওয়ান খ্যাত কন্ঠশিল্পী শাহরিয়ার রাফাত।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম