Fri, 17 Aug, 2018
 
logo
 

টার্মিনালমুখী ঘরমুখো মানুষের ভীড়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: দরজায় কড়া নারছে ঈদ। উৎসবের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্চ নিরাপদে ঘরে ফেরা। তাই শনিবার ছুটির দিনে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন বাস ও লঞ্চ টার্মিনালগুলোতে বাড়ি যাওয়া মানুষের ব্যাপক ভীড় লক্ষ করা গেছে। ১০ জুন থেকে দেয়া হয়েছে ট্রেনের অগ্রিম টিকেট। কিন্তু ছুটির দিনে বাস কাউন্টারগুলোতে ছিল বাড়তি মানুষের চাপ।

বাড়তি যানবাহনের চাপে ব্যাপক ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে ঘরে ফেরা মানুষের। তেমনি দিনভর জেলার বাহিরে যাওয়া গুরুত্বপূর্ণ বেশিরভাগ সড়কে অসহনীয় যানজট ছিল।
অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে ট্রেনের বিশেষ কোন সার্ভিস না থাকলেও কমলাপুর থেকে ট্রেনের যাত্রীদের জন্য গত এক জুন বিক্রি হয় ১০ জুনের টিকেট। ২ জুন ১১ জুনের, ৩ জুন ১২ জুনের, ৪ জুন হবে ১৩ জুনের, ৫ জুন ১৪ জুনের এবং ৬ জুন ১৫ জুনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি হয়েছে। এই হিসেবে আগামীকাল রবিবার থেকে অগ্রিম টিকেট নেয়া যাত্রীদের বাড়ি ফেরা শুরুর কথা। কিন্তু অনেকেই অগ্রিম টিকেট সংগ্রহ করতে পারেননি। তাই একটু আগে ভাগেই পরিবার পরিজন বাড়ি পাঠানোর চেষ্টা করছেন।
সকালে ফতুল্লা রেল স্টেশনে গিয়ে দেখা গেছে, বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে মানুষের প্রস্তুতি। পরিবারের সদস্যদের প্রয়োজনিয় সকল কিছু দিয়ে আসছে কমলাপুর রেল স্টেশনে। রেলওয়ে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, অন্য দিনের চেয়ে আজকে ভীড় তুলনামূলক বেশি। টিকেটের চাহিদাও অনেক। কিছু কিছু ট্রেনের টিকেট রয়েছে। যা যাত্রীরা সংগ্রহ করছেন। অনেকেই স্ট্যান্ডিং টিকেট কিনেও বাড়ি যাচ্ছেন।
এদিকে সকাল থেকে লঞ্চ টার্মিনালেও ঘরমুখো মানুষের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে। নারায়ণগঞ্জ বিআইডব্লিউটিএ থেকে জানানো হয়েছে, নারায়ণগঞ্জ বন্দর ঘাটে সবসময় ৬২ টি লঞ্চ চলাচল করে। তবে ঈদ উপলক্ষে কিছু লঞ্চ এবং টিব বাড়িয়ে দেয়। নারায়ণগঞ্জ টু মুন্সিগঞ্জ রোডে ২৫ টি লঞ্চ যাতায়াত করে, নারায়ণগঞ্জ টু চাদপুর রোডে ১৫ টি লঞ্চ যাতায়াত করে, নারায়ণগঞ্জ টু মতলব রোডে১৯ টি লঞ্চ যাতায়াত করে, নারায়ণগঞ্জ টু সুড়েসর ওয়াপদা রোডে ১ টি লঞ্চ যাতায়াত করে, নারায়ণগঞ্জ টু ব্রাক্ষণবাড়ীয়া চন্দ্রপুড় রোড ১ টি লঞ্চ যাতায়াত করে। এছাড়া ঈদ উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ টু পটুয়াখালি রোডে১ টি স্পেশাল সার্ভিস দেয়া হবে।
সাত জুন থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রি হয়েছে। শুধুমাত্র উত্তরাঞ্চলের যাত্রীদের জন্য বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রি হয়। খানপুর, চাষাড়া, চিটাগাং রোডসহ নগরীর বিভিন্ন এলাকার কাউন্টার থেকে যাত্রীরা টিকেট সংগ্রহ করেন। শনিবার সকাল থেকে চাষাড়ায় বিভিন্ন বাস কাউন্টারে যাত্রীদের ব্যাপক উপস্থিতি দেখা গেছে। শ্যামলী, সোহাগ, এ আর ট্রাভেলসসহ বিভিন্ন কাউন্টারের সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, সাত জুন থেকেই ঈদ উপলক্ষে যাত্রীরা বাড়ি ফিরতে শুরু করেছেন। দিন দিন ভীড় বাড়ছে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম