Wed, 13 Dec, 2017
 
logo
 

টার্গেট প্রাইভেট কার ও বাইক, ধরাছোঁয়ার বাইরে বাস!


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ট্রাফিক পুলিশের খপ্পরে পড়তে হচ্ছে প্রাইভেট কার, মাইক্রো বাস, মোটরসাইকেল ও ট্রাক চালকদের। অথচ অনিয়ম করে অহরহ চলছে বাস, যত্রতত্র যাত্রী তোলা ও নামালেও সেদিকে ভ্রুক্ষেপ নেই ট্রাফিকের সদস্যদের। ফিটনেস ছাড়াই ঘুরছে বাসের চাকা, লাইসেন্সবিহীন ড্রাইভারের হাতে বাসের স্টিয়ারিং থাকার পরও এদিকে দৃষ্টি নেই তাদের।

সরেজমিনে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন পয়েন্ট ঘুরে দেখা যায় ট্রাফিক পুলিশের আগ্রহ  শুধু প্রাইভেট কার, মাইক্রো বাস ও মোটরসাইকেল ঘিরে।
অন্যদিকে ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকছে বাসগুলো। সকাল থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে কয়েকটি পয়েন্টে পুলিশ যতগুলো গাড়ি আটকায় তার সবগুলোই মোটরসাইকেল, কাভার্ড ভ্যান ও পিকআপ গাড়ি। অথচ একই রোডে সমান অপরাধে হরদম চলছে বাসগুলো। কোনো কোনো ক্ষেত্রে বাসগুলোকেই ট্রাফিক আইন বেশি অমান্য করতে দেখা যায়।

টার্গেট প্রাইভেট কার ও বাইক, ধরাছোঁয়ার বাইরে বাস!
এক বাসের সঙ্গে আরেক বাসের যুদ্ধ তো চলছে হরহামেশাই। দাঁড়িয়ে থাকা একটি বাসের পেছন থেকে আরেকটা বাস এসে ধাক্কা দিচ্ছে, তখনই কেবল চলা শুরু করছে সামনের বাসটি। বাসস্ট্যান্ড ছাড়া যত্রতত্র বাস থামিয়ে যাত্রী ওঠা-নামা করতেও দেখা যায়।
শহরের চাষাড়া এলাকায়ও চোখে পড়ে একই দৃশ্য। এরপর ২নং রেল গেইট মোড়েও দেখা গেছে ট্রাফিক পুলিশের নজরে পড়ছে না বাসগুলোতে।
হাজীগঞ্জ এলাকায় এক মোটরসাইকল আরোহী অভিযোগ করে বলেন, সড়কে  প্রতিদিন চলফেরা করি কিন্তু একটা বাস থামিয়ে লাইসেন্স চেক করতে দেখিনি ট্রাফিক পুলিশকে। তাদের যত রাগ মোটরসাইকেলের ওপর!
ফতুল্লা স্টেডিয়াম এলাকায় একই কান্ড। এখানে সিএনজি চালিত অটোরিকশা দেখা মাত্র থামিয়ে দিচ্ছে পুলিশ। সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে ফতুল্লা পুলিশের আচরণ একটু ভিন্ন। নম্বরবিহীন কাগজপত্র নেই এমন অটোরিকশা চলছে হরদম অথচ এগুলোর দিকে তাকায়ও না পুলিশ।
এ ব্যাপারে এক অটোরিকশা চালক জানালেন অটোরিকশা মালিক সমিতির সাথে ভালো সর্ম্পক রয়েছে পুলিশের। এসব অটোরিকশা সাইনর্বোড-জেলা পরিষদের বাইরে চলাচলও করে না। তবে বাইরে থেকে কোনো অটোরিকশা এ সড়কের ভেতরে এলে সেই অটোরিকশার চলতে দেয়া হয় না। একইভাবে মোটরসাইকেল প্রাইভেট কার থামিয়েও দেখা হয় কাগজপত্র।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম