Wed, 13 Dec, 2017
 
logo
 

প্লামি ফ্যাশনে বিষ্ফোরণ: ছিন্ন হলো একটি পরিবারের স্বপ্নের জাল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পড়াশুনা করে একদিন সে মস্ত ইঞ্জিনিয়ার হবে, এলাকার  সুনাম হবে, অভাব ঘুচবে পরিবারের। আব্দুল্লাহ কে নিয়ে প্রতিনিয়ত এমন স্বপ্নের জাল বুনতেন তাঁর পরিবার।  স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিতে একটু একটু করে এগিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিকই।

এ জন্যএকটি বাড়িও বিক্রি করেছিলেন বাবা। তবে সব স্বপ্ন থমকে গেছে একটি দুর্ঘটনায়।

মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মারা যান আব্দুল্লাহ (২৫)। এর আগে শুক্রবার (৩ নভেম্বর) সকালে ফতুল্লার নরসিংহপুরের প্লামি ফ্যাশনে কর্মরত অবস্থায় বয়লার বিস্ফোরনে অগ্নিদ্বগ্ধ হন তিনি।

প্লামি ফ্যাশনে বিষ্ফোরণ: ছিন্ন হলো একটি পরিবারের স্বপ্নের জাল

আব্দুল্লাহর চাচা ফতুল্লা থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ মান্নান লাইভ নারায়ণগঞ্জ কে জানান, ছোট বেলা থেকেই মেধাবী ছিলেন আব্দুল্লাহ। ছিলেন কোরআন এ হাফেজ। একটি মাদ্রসা থেকে দাখিল পাশ করে,আহসানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিপ্লোমা শেষে বর্তমানে বিএসসির শেষবর্ষের ছাত্র ছিলেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, বাবা মুসলিমনগরের আলী আহাম্মদ ছিলেন মুদি দোকানী। এখন বেকার। ছেলে আব্দুল্লাহকে ডিপ্লোমা করানোর সময়ে ২০/২৫ হাজার টাকা ভাড়া বাবদ আয় হতো এমন একটি ৪ শতাংশের বাড়ি বিক্রি করেছেন। এখন আয় বলতে থাকার বাড়িতে কয়েকটি ভাড়াটিয়া ঘর। তাই নিজের পড়াশুনার খরচ যোগাতে পাশাপাশি কাজে দক্ষতা অর্জনে প্লামি ফ্যাশনে ইলেক্ট্রিশিয়ান ডিপার্টমেন্টে কাজ করতো আব্দুল্লাহ। ১ বোন ২ ভাই, ভাইদের মধ্যে সেই  বড়। বোনের বিয়ে হয়ে গেছে আর ছোট ভাই আরিফুল ইসলাম সরকারী তোলারাম কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র।

প্লামি ফ্যাশনে বিষ্ফোরণ: ছিন্ন হলো একটি পরিবারের স্বপ্নের জাল

ভাইয়ের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে আরিফুল জানান, বিষ্ফোরনে বড় ভাই আব্দুল্লাহর শরীরের ৮০ ভাগ দ্বগ্ধ হয়। আইসিউতে থাকা অবস্থায় মঙ্গলবার রাত ১০টায় তিনি ইন্তেকাল করেন।

এদিকে মেধাবী ছাত্র আব্দুল্লাহর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে আসে গোটা মুসলিমনগরে। স্বপ্নের ধারকের মৃত্যু হওয়ায় পরিবারের সব সদস্যের চাহনি এখন করুণ। মাঝে মধ্যে গগণ ফাটানো চিৎকার আসে কারো মুখ থেকে ‘ কোথায় গেলি আব্দুল্লাহ ’। কেউবা বড় নিশ্বাষ ফেলে অস্ফুট কন্ঠে উচ্চারণ করেন ‘ আহ’।

স্থানীয়রা জানান, ৩ নভেম্বর বিকেএমইএ’র সাবেক সভাপতি ফজলুল হকের মালিকানাধীন প্লামি ফ্যাশনে বিষ্ফোরনের বিকট শব্দ হয়। এতে কয়েকজন আহত হয়। এর মধ্যে আব্দুল্লাহ ছিলেন একজন।

৮ নভেম্বর (বুধবার) দাফন সম্পন্ন হয়েছে আব্দুল্লাহর। আর এর মধ্য দিয়েই একটি স্বপ্ন হারিয়ে গেলো চিরতরে। ছিন্ন হলো অনেক কষ্টে বুনা একটি পরিবারের স্বপ্নের জাল।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম