Fri, 17 Nov, 2017
 
logo
 

অত:পর একত্রিত হলেন ‘তারা’

অত:পর মান অভিমান ভুলে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ আলহাজ¦ একেএম শামীম ওসমানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে ডিএনডি বাঁধের উন্নয়ন সভায় যোগ দিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন ও সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা।

রবিবার (১৫ অক্টোবর) সিদ্ধিরগঞ্জে ডিএনডি বাঁধ প্রকল্পের কাজ শুরুর পূর্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আয়োজিত সমাবেশে যোগ দেয়ার প্রাক্কালে দুপুর ২ টায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে যোগ দেন তারা।
তবে শামীম ওসমানও কিন্তু তাদের যথার্থ মূল্যায়ন করতে কার্পন্য বোধ করেননি। দুপুর পৌনে ২ টায় যখন পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম ও প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম হিরু নারায়ণগঞ্জ ক্লাব প্রাঙ্গনে এসে গাড়ী থেকে নামেন, তখন শামীম ওসমান একটু অদূরে থাকা আব্দুল হাই, আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহাকে ডেকে এনে মন্ত্রীদ্বয়ের সাথে দলীয় ভাবে পরিচিতি করিয়ে দেন।
এরপর ক্লাব মিলনায়তনের তৃতীয় তলায় যখন মতবিনিময় সভায় যোগ দিতে একে একে মন্ত্রী এমপি সরকারী আমলারা মঞ্চে এসে উপবিষ্ট হন, তখন আব্দুল হাই, আনোয়ার হোসেন এবং খোকন সাহা একসাথে দর্শক সারিতে বসে থাকলেও শামীম ওসমান ঠিকই তাদের প্রকেত্যককে মঞ্চে ডেকে নিয়ে বসান।
তারপর মতবিনিময় শেষে একত্রে সবাই দুপুরের আহারও গ্রহণ করেন। যা দেখে অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত কয়েকজন রাজনীতিবিদ মন্তব্য করেন, ‘যাক্ অত:পর শামীম ওসমানের সাথে হাই আনোয়ার খোকন ফের একত্রিত হলেন।’
কেননা, গত ২৮ মে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই ও সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহিদ বাদলের সুপারিশে ইয়সমিন চৌধুরী লিন্ডাকে আহবায়ক ও সৈয়দা ফেরদৌসি আলম নীলা, সাবিরা সুলতানা নীলা, নিলুফার ইয়াসমিন, ফারিয়া আক্তার হেলেনা, হাসিনা বেগমকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট যুব মহিলালীগ নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটি এবং মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন ও সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহার সুপারিশে ৩০ মে নুরুন্নাহার সন্ধ্যাকে আহবায়ক ও সালমা আক্তার, শারমীন আক্তার ডলি, মায়ানূর মায়া, চায়না আক্তার, রুম্পা আক্তারকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৪৯ সদস্য বিশিষ্ট যুব মহিলালীগ নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটির অনুমোদন দেন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নাজমা আক্তার ও সাধারন সম্পাদক অপু উকিল।
এরপর নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের সুপারিশে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নাজমা আক্তার ও সাধারন সম্পাদক অপু উকিল নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের নারী সদস্য সাদিয়া আফরিনকে আহবায়ক ও শারমিন আক্তার মেঘলা, আসমা আক্তারকে যুগ্ম আহবায়ক করে জেলা যুব মহিলালীগ এবং এড. স্ইুটি ইয়াসমিনকে আহবায়ক ও মুনিরা সুলতানাকে যুগ্ম আহবায়ক করে মহানগর যুব মহিলালীগের আরেকটি কমিটি অনুমোদন দেয়।
কমিটি অনুমোদনের সময় মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বিদেশে থাকলেও পরবর্তীতে তিনি দেশে ফিরেই মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহাকে নিয়ে শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে নালিশ দিতে চলে যান ঢাকায়। দলের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে উভয়ে দেন বিচার।
তন্মধ্যেই স্থানীয় একটি গণমাধ্যমে শামীম ওসমান সম্পর্কে আক্রমনাত্মক বক্তব্য দেয় মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাহমুদা মালা। তিনি বলেন, ‘শামীম ওসমানের পছন্দের ব্যাক্তি না হলেই সে হয়ে যায় রাজাকার পুত্র আর নারীদের চরিত্র খারাপ’।
মহানগর আওয়ামীলীগের শীর্ষ এই তিন নেতার শামীম ওসমান বিরোধী আচরনের কারনে আগুন জ¦লে যায় আওয়ামীলীগসহ অঙ্গসংগঠনে। ক্ষোভে ফুঁসে দলীয় নেতাকর্মীরা এই তিন নেতার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মন্তব্যের ঝড় তুলেন।
কিন্তু তখন সাংসদ শামীম ওসমান স্বপরিবারে বিদেশে অবস্থান করছিলেন। এরই মধ্যে, গত ১৭ জুলাই খোকন সাহা ও মাহমুদা মালা ওসমান ভ্রাতৃদ্বয়কে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করে ফের দ্রোহের আগুনে ঘি ঢেলে দেয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অডিও ফাঁস হয়ে যাওয়ায় তোলপাড় শুরু হয়।
তারপরেও সাংসদ শামীম ওসমান মান অভিমান ভুলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ১২ আগষ্ট নগরীতে নিজ উদ্যোগে আয়োজিত স্মরণকালের সর্ববৃহৎ শোক র‌্যালীতে যোগ দিতে আব্দুল হাই, ডা: সেলিনা হায়াত আইভী, আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।
শামীম ওসমান প্রত্যাশা করেছিলেন, অত্যন্ত পক্ষে জাতির পিতার স্মরণে সকলেই শোক র‌্যালীতে উপস্থিত হবেন। কিন্তু দূর্ভাগ্য ব:শত সেই শোক র‌্যালীতে বিভিন্ন অজুহাতে আব্দুল হাই, আইভী, আনোয়ার হোসেন এবং খোকন সাহা আর যোগদান করেননি।
ফলে অনেকটা ভারাক্রান্ত মনেই শামীম ওসমান বলেছিলেন, ‘শোক র‌্যালীতে হয়তো তারা কোন কারনে উপস্থিত হতে পারেনি। কিন্তু আগামীতে দলীয় স্বার্থে সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে অবশ্যই যেকোন অনুষ্ঠানে যোগ দিবেন।’
যার ফলশ্রুতিতে রবিবার (১৫ অক্টোবর) ডিএনডি বাঁধের উন্নয়ণ প্রকল্পের কাজ শুরু উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানাতে সিদ্ধিরগঞ্জে সমাবেশের আয়োজন করেন সাংসদ শামীম ওসমান। যেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম।
আর এই সমাবেশে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে যোগ দিতে উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছিলেন সম্প্রতি শামীম ওসমান। শেষতক সেই আহ্বানে সাড়া দিয়ে সমাবেশে যোগ দিলেন আব্দুল হাই, আনোয়ার হোসেন ও খোকন সাহা। এতে করে একটি অঙ্গ সংগঠনের কমিটি ইস্যুকে কেন্দ্র করে দলের মধ্যে সৃষ্ট বিভাজনের নিষ্পত্তি হলো বলেও মন্তব্য করেন অনেকে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম