Fri, 20 Oct, 2017
 
logo
 

‘নগর মাতার মায়া নাই’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ভাঙ্গা ও সরু সড়ক, ফুটপাথ দখল, অবৈধ যান চলাচল ও অদক্ষ চালকের কারণে নগরীর মেট্রোহল ও কালিরবাজার মোড়ে প্রতিদিন চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছে জনসাধারণ । এতে বাদ যাচ্ছে না শিক্ষার্থী, রোগীরাও।

মঙ্গলবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নগরীর মেট্রো হলের সামনে শীতল ও হিমাচল কাউন্টার থাকায় সড়কটির অধিকাংশই দখলে থাকে। আর বাকি সড়কটির বিশাল অংশ ভাঙ্গা।
অন্যদিকে একই অবস্থা কালিরবাজার মোড়েরও। সেখানে আদর্শ মিষ্টির দোকানের সামনে সড়কের বহু অংশ ভাঙ্গে গেছে। দোকানটির অপর পাশে ময়লাস্তুপ ফেলে সরু করে রাখা হয়েছে সড়কটি। ফলে ওই সড়কগুলোতে লক্ষাধীক যাত্রীর প্রতিনিয়ত চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়। নিত্য যান জটের পাশা পাশি নানা রকম দূর্ঘটনা লেগেই থাকে।
কালিরবাজার মোড়ে সামছুল আলম নামের এক ব্যক্তি বলেন, ‘নগর মাতার কোন মায়া নাই। বহুদিন যাবত সড়কটার এই অবস্থা থাকার পরেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি। ভাইরে ময়লার দূর্গন্ধ আর ভাঙ্গা রাস্তার যন্ত্রনায় কষ্টে আছি।’
মেট্রোহলের মোড়ে  যানবাহনের জটলায় আটকে থাকা এক রিক্সা যাত্রী আব্দুল ছামাদ এই প্রতিবেদকের পরিচয় পেয়ে বলেন, প্রতিদিন সকালে হীমাচল বাস গুলোর জন্য এই মোড়ে যানজট সৃষ্টি হয়। এছাড়া সড়কটি ভাঙ্গা থাকায় ভোগান্তীতে পড়তে হয়, আর ভয়েও থাকি। তাই আমি দাবি করবো দ্রুত এই সড়কের সংস্কার করা হক।
জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২০১৭-১৮ অর্থবছরে অবকাঠামো মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ২০ কোটি ৩৪ লাখ টাকা ব্যায় ধরা হয়েছে। গত অর্থ বছরেও ১৯ কোটি ৩৯ লাখ টাকা ছিল এর উন্নয়ন ব্যায়। অর্থ দীর্ঘদিনেও তা উন্নয়ন করা হয়নি।
মেট্রো হলের সামনের অংশের বিষয়ে ১২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শকওয়াত হাশেম শকু লাইভ নারাযণগঞ্জকে বলেন, ওই সড়কের ভাঙ্গা অংশটুকু আমার ওয়ার্ডে পরেনি। সড়কটির ওই অংশ ১৩ নং ওয়ার্ডে। তারপরেও আমি বেশ কয়েকবার সিটি করপোরেশনকে জানিয়েছি। খুব দ্রুত রাস্তাটি সংস্কার হবে।
১৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খোরশেদের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেনি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম