Thu, 24 Jan, 2019
 
logo
 

‘এতই গর্ত যে রাস্তা চিনা যায় না, প্রায় ঘটে দূর্ঘটনা’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘প্রতিদিনই এই রাস্তা দিয়ে আমাকে চলাচল করতে হয় । কিন্তু রাস্তায় এতই গর্ত যে নিরাপদভাবে অনেকটাই অসম্ভব হয়ে উঠেছে। প্রায় সময় রিক্সা, মোটরবাইক হতে পরে আহত হয় যাত্রীরা। তার উপর যানজটের সমস্যা তো আছেই। তবুও জানমালের ঝুঁকি নিয়েই যাতায়াত করছি।’

‘এতই গর্ত যে রাস্তা চিনা যায় না, প্রায় ঘটে দূর্ঘটনা’এইভাবেই প্রতিবেদকের নিকট ক্ষোভ প্রকাশ করছিলেন জোনাকী নামে নবীগঞ্জ চৌরাস্তার একজন রিক্সা যাত্রী।

নারয়ণগঞ্জের বন্দরে নবীগঞ্জে প্রায় ৫০ বছর আগে নির্মিত এক সড়ক নবীগঞ্জ বাস ষ্ট্যান্ড সড়ক। সড়কটির দক্ষিণ পাশে বন্দর কলাঘাট। উত্তর পাশে মদনপুর। পূর্ব পাশে কাইকারটেক হাট ও পশ্চিম পাশে দিয়ে চলেছে একটি রাস্তা যা নবীগঞ্জ ঘাট পর্যন্ত গিয়েছে।

‘এতই গর্ত যে রাস্তা চিনা যায় না, প্রায় ঘটে দূর্ঘটনা’

শনিবার (৮ ডিসেম্বর) সকাল ১০ টায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নবীগঞ্জ বাস ষ্ট্যান্ড এর প্রায় ১ কিলোমিটার র্দীঘ অঞ্চল জুড়ে রাস্তা বেহাল দশায় রয়েছে। রাস্তার মাঝখানে দেখা যায় বড় বড় গর্ত, সড়কটির বিভিন্ন স্থানে ধরেছে ফাটল। প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে বন্দর উপজেলা, মদনপুর, সোনারগাঁ ও নবীগঞ্জ ঘাটে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে।

 

সড়কটির পাশে থাকা দোকানী মো. ফরিদ উদ্দিন বলেন, সড়কটি যখন নিমার্ণ করা হয়েছিল তখন এর সাথে একটি খাল ছিল। ২০০০ সালে খালটি ভরাট করে সড়কটিকে চওড়া করা হয়। কিন্তু তাই ছিল সর্বশেষ সংস্করণ। এরপর থেকে আর কোন বড় ধরণের সংস্কারের কাজ হয়নি। সড়কটির যে অনেক পুরোনো তা যে কেউ দেখলেই বুঝতে পারবে। প্রতিদিন অনেক বড়-ছোট যানবাহন ও হাজার হাজার মানুষ চলাচল করছে এই সড়কটি দিয়ে। সড়কটি এত গুরুত্বপূর্ণ হওয়া সত্ত্বেও এটির সংস্করণে নেয়া হচ্ছে না কোন পদক্ষেপ।

‘এতই গর্ত যে রাস্তা চিনা যায় না, প্রায় ঘটে দূর্ঘটনা’

প্রতিদিন সড়কটি দিয়ে নবীগঞ্জ-মিনারবাড়ী রোডে যাত্রা করেন সিএনজি চালক হাবিব। তিনি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, প্রতিদিনই নবীগঞ্জ ঘাট থেকে মিনারবাড়ী যাত্রীদের আনা-নেওয়া করি এই ভাঙ্গা রাস্তা দিয়ে। এ রাস্তায় যখনই গাড়ী নিয়ে আসি, গর্তে আটকা পরি। এরপর যাত্রীদের নামিয়ে ধাক্কা দিয়েও গাড়ীকে সড়াতে হয় আমার। জানমালের ঝুঁকি নিয়েই গাড়ি চালাতে হয়। পেটের দায়ে সিএনজি চালাই বলে এই সকল ঝামেলার পরও এই রুটে গাড়ী চালাচ্ছি। চালক ও যাত্রীর দূর্ভোগ হলেও র্দীঘদিন ধরে কর্তৃপক্ষের কোন নজরে নেই।

 

রাস্তাটি সম্পর্কে বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নং ওয়ার্ডের নবীগঞ্জ বাস ষ্ট্যন্ডের ভাঙ্গা রাস্তাটির অবস্থা সম্পর্কে আমি অবগত। জনগণের সুবিধার্থে প্রয়োজনে নিজ উদ্যোগে রাস্তাটির সংস্করণ করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম