Mon, 18 Dec, 2017
 
logo
 

এনসিসির ১৮নং ওয়ার্ড যেন ভাঙ্গা আর গর্তের মহা রাজ্য !


লাইভ নারাযণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর ১৮নং ওয়ার্ড এর বিভিন্ন রাস্তা-ঘাট এর সার্বিক অবস্থার বেহাল দশা। এতে জন সাধারণের দূর্ভোগ চরমে।

এনসিসি ১৮নং ওয়ার্ডটির অবস্থান নিতাইগঞ্জ হতে শুরু করে বৃহত্তর সৈয়দপুর পর্যন্ত। এই অঞ্চলটি ব্যবসা বানিজ্যের কেন্দ্রবিন্দু এবং পাশ্বর্তী জেলা মুন্সিগঞ্জের সাথে যাতায়াতের অন্যতম হওয়ায় ১৮নং ওয়ার্ডটির মূল্যায়ন ব্যাপক।
কিন্তু দুঃখের বিষয় এই ওয়ার্ডের বিভিন্ন রাস্তা-ঘাট এবং মসজিদ,মন্দির ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়কের অবস্থা বেহাল। কেহ যেন দেখার নেই। এই ওয়ার্ডের ১০নং শীতলক্ষ্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টির সামনের সড়কে ড্রেনের স্লাপ ভাঙ্গার কারনে রাস্তায় নোংরা পানি এবং ময়লা পায়ে লাগিয়ে পথ চলতে হচ্ছে সাধারণ জনগনের। শীতলক্ষ্যা কদমতলী এলাকার বাইতুছ ছালাত জামে মসজিদের সামনের রাস্তায় প্রায় ৬/৭টি ড্রেনের স্লাপ ভাঙ্গা, শীতলক্ষ্যা শ্রী শ্রী সত্যনারায়ণ জিউর মন্দিরের সামনে রাস্তায় ড্রেন ভরাট হয়ে রাস্তায় পানি জমে প্রতিনিয়ত, পুরান সৈয়দপুর জামে মসজিদের সামনের প্রধান সড়কে বিশাল এক গর্ত, সৈয়দপুর জেএমসি এলাকার প্রতিটি গলি সড়কের ড্রেন, রাস্তা ভাঙ্গা ও কাঁচা সড়কে অল্প বৃষ্টিতেই কাদাময় হয়ে উঠে। তাছাড়া মুসলিমনগর হতে নিতাইগঞ্জ পর্র্যন্ত বাপ্পি সড়কে বিদ্যুতের লাইন স্থাপনের কারনে পরিত্যাগক্ত এবং সংস্কারহীন সড়ক, তামাকপট্টি মোড় হতে পুরাতন সড়ক শীতলক্ষ্যা পুলিশ ফাঁড়ি হয়ে নিতাইগঞ্জ পর্যন্ত সড়কে ড্রেজার স্থাপনের কারনে কৃত্রিম জলাবদ্ধতা ও সড়কে বিভিন্ন পয়েন্টে খানা খন্দরের কারনে নাসিক ১৮নং ওয়ার্ডটি যেন এখন ভাঙ্গা আর গর্তের মহারাজ্যে পরিনত হয়েছে। শুধু কদমতলী শীতলক্ষ্যা ব্রিজ হতে বাপ্পি চত্তর পর্যন্ত প্রায় ত্রিশটি ড্রেনের স্লাপ ভাঙ্গা রয়েছে।
গত বছরের ডিসেম্বরে নির্বাচিত ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ কবির হোসাইনের গত প্রায় ১০মাস দায়িত্বের মেয়াদ কাল অতিবাহিত হলেও এ বিষয়ে যেন কোন তোয়াক্কা নেই। তিনি তার মত উদাসহীন, সাধারণ জনগনের জন্য ভালো কাজ করার প্রচেষ্ঠা নেই তার। ওয়ার্ডের সাধারণ জনগন প্রতিদিন ড্রেনের পঁচা পানি পায়ে লাগিয়ে চলাচল করবে আর কাউন্সিলর তার নিজ ওয়ার্ডের শেষ প্রান্তে গোগনগর ইউপি’র সংযোগ সড়কের কাজের প্রকল্প বাস্তবায়ন নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন। নাম প্রকাশে অনচ্ছুক ১৮নং ওয়ার্ডবাসি একজন বলেন, বিগত কাউন্সিলর যেমন ছিলেন বর্তমান কাউন্সিলরও সেই পথেই হাটছে। অন্য ওয়ার্ডের একজন বিতর্কিত ব্যক্তির সাথে কোদাল হাতে ছবি তোলা এবং সংবাদ মাধ্যমে সিটি কর্পোরেশনের ভূয়া প্রকৌশলীর নাম ব্যবহার করা অর্থাৎ জনপ্রতিনিধিরা সবাই এক রকম। আশাকরি ১৮নং ওয়ার্ডের সকল উন্নয়ন মাননীয় মেয়র অচিরেই নিজ হস্তক্ষেপে করবেন।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম