Sat, 16 Dec, 2017
 
logo
 

টানা বৃষ্টিতে ঘরে পানি বাইরে পানি


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: কয়েকদিনের ভ্যাপসা গরমের পর বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি নগর জীবনে কিছুটা প্রশান্তি এনে দিলেও অপরিকল্পিত এ নগরে ভোগান্তিই যেন বেশি। থেমে থেমে রাত-দিন ভারি বৃষ্টিতে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা।


প্রধান সড়কে পানি জমে যাওয়ায় অনেক স্থানে রাস্তার মাঝে বিকল হয়ে পড়ে যানবাহন। আবহাওয়া অফিস বলছে, দেশের বিভিন্ন স্থানে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত চলতে পারে আরো দুইদিন।
টানা বৃষ্টিতে ঘরে পানি বাইরে পানি
শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিতে সবচেয়ে বেশি সমস্যা পোহাতে হচ্ছে ডিএনডি বাসীকে। ওই এলাকায় ঘরে পানি বাইরেও পানি। ডিএনডির সর্বত্র এখন পানিতে থৈ থৈ। এত পানির মাঝে চলাফেরা, রান্না-বান্নাসহ নিত্য প্রয়োজনীয় কাজে নেমে এসেছে নানা ভোগান্তি। আর এই ভোগান্তির পরিমান সবচাইতে বেশি ডিএনডি অংশে।

ফতুল্লায় বসবাসকারী আশরাফ হোসেন বলেন, গত এক মাসে যে পানি কমেছে ডিএনডি এলাকায়, তারচেয়ে বেশি পানি বৃদ্ধি পেয়েছে গত ২ দিনে। আরো বৃষ্টি হলে চলতি বছরে হওয়া জলাবদ্ধতা পূর্বের রেকর্ডও অতিক্রম করবে ।

ওই এলাকার বাসীন্দা শিল্পি বেগম বলেন, আর কতকাল এভাবে জলাবদ্ধতায় বন্দী থাকবো। গত রমজান মাস থেকে আমরা জলাবদ্ধ অবস্থায় বেচে আছি।  মাঝে মাঝে মনে চায় এই এলাকা থেকে বাড়ি বিক্রি করে চলে যাই। কিন্তু বাড়ি বিক্রী করে কি করবো সেটাও আবার ভাবি।

শুধু আশরাফ কিংবা শিল্পী নয়, প্রায় সবারই একি বুক চাপা অভিযোগ। তারা জানায়, ‘ময়লা পানির ভেতর দিয়ে তাদের মসজিদে যেতে হয়। খাল ভরাট হয়ে পানিগুলো ঘরের ভেতরে ঢুকে পাড়ে। সারাদিন সেই পানি সেচতে হয় বলেও জানান তারা।’

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল পাম্প হাউসে গিয়ে দেখে যায়, পানি নিষ্কাশনের জন্য ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-ডেমরা বা ডিএনডিতে রয়েছে চারটি বড় পাম্প। এর মধ্যে ২০ দিন ধরে ১২৮ কিউসেক ক্ষমতা সম্পন্ন একটি ও পাঁচ কিউসেক ক্ষমতা সম্পন্ন ছোট ১০টি পাম্প বিকল হয়ে পড়ে আছে।

নারায়ণগঞ্জ ডিএনডি পাম্প হাউস উপ-সহকারী প্রকৌশলী রামপ্রসাদ বাছার বলেন, ‘তিন হাজার কিউসেক পানির ডেলিভারি দিতে পারলে অত্র এলাকার জলাবদ্ধতা দূর করা সম্ভব। আরো পাঁচটি পাম্প হাউজ নির্মাণ করা পরিকল্পনা সরকার হাতে নিয়েছে। কয়েক দিনের মধ্যেই কাজ শুরু হবে এবং ২০২০ সালে সেটা শেষ হবে। আশা করি তখন আর এই সমস্যার স্থায়ী সমাধার হবে।’

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম