Fri, 20 Oct, 2017
 
logo
 

সিটি করপোরেশনের বর্জ্যে জলাবদ্ধতা, দূর্ভোগে কুতুবপুরবাসী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ : সিটি করপোরেশনের ময়ালা আবর্জনা ফেলা হচ্ছে কালবার্টে! আর এতে করেই সৃস্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। বেশ কিছুদিন ধরেই সিটি করপোরেশনের উদাসীনতায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে কুতুবপুরের জালকুড়িতে।


সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভূক্ত না হলেও সদর উপজেলার জালকুড়ি এলাকার একটি কালবার্টের মধ্যেই নগরীর ময়লা আবর্জনা ফেলছে সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মীরা। এতে করে কুতুবপুরের বেশ কিছু এলাকাতে গত ৩ বছর ধরে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতার। আর এই জলাবদ্ধতার কারণে নানা ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে স্থানীয়দের।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের জালকুড়িতে গত ৩ বছরেরও বেশি সময় যাবত ময়লা ফেলছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। কিন্তু স্থানটিতে ময়লা ফেলার সঠিক কোনো দিক নির্দেশনা না থাকায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের নিচ দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবার্টে ময়লা ফেলে বন্ধ করে রেখেছে সিটি করপোরেশন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা।

গত সোমবার সরেজমিনে দেখা যায়, খালে বাঁধ দেওয়ায় বৃষ্টি ও বর্ষার পানি নিষ্কাশন হচ্ছে না। কুতুবপুর ইউনিয়নের তক্কারমাঠ, লালখা, জালকুড়ি, নন্দলালপুর বিগত বছরগুলোর তুলনায় বেশি জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। দুর্ভোগ পোহাচ্ছে মানুষ। কারখানা ভারাট ছাড়াও সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া খালে বাসাবাড়ির বর্জ্য ফেলে পরিবেশ নষ্ট করছে। ফলে যানবাহনে চলাচল কারিদের নাকে রোমাল চেপে চলাচল করতে হচ্ছে।

কুতুবপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা ইসমত আলী বলেন, ময়লা ফেলার নামে প্রথমে পরিবেশ দূষণ, পরে সড়ক বন্ধ করে মালামাল রাখায় মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। কিন্তু এখানে অসচেতন পরিচ্ছন্ন কর্মীরা ময়লা ফেলে খালটির মুখ ভরাট করলেও তেমন কোন দিক নির্দেশনা ছিল না কর্তৃপক্ষ।

কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু বলেন, এ বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। তবে আগামী কাল আমি বিষয়টি নিজে গিয়ে দেখে আসবো এবং ঘটনা সঠিক হলে ময়লা ফেলা বন্ধ করবো।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী এ.এফ. এম. এহতেশামূল হক ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্ট করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম