Sat, 21 Oct, 2017
 
logo
 

আনন্দ যাত্রায় ঘরমূখী মানুষের পদে পদে শুধুই ভোগান্তি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ করতে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে চাষাড়া আসেন চাকুরীজীবী ইউনুস। রয়েল পরিবহনের কাউন্টারে বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন । ইউনুস যাবেন  পঞ্চগড়ে ।

তিনি জানান, সকাল সাড়ে ৯টায় এসেছি এখন প্রায় ২টা  বাজে। বাস আসার কোন খবর নেই। কাউন্টার থেকে বারবার বলে দিচ্ছে রাস্তায় যানজট তাই বাস আসতে দেরী  হচ্ছে। পরিবার পরিবজন নিয়ে বিড়ম্বনার শেষ নেই ইউনুস পরিবারের।
কাউন্টারের ম্যানেজার তোফায়েল হোসেন জানান, রাস্তায় ব্যপক যানজট। বাস আগে ৮ ঘন্টায় ঢাকা আসতো। এখন ১৬/১৭ ঘন্টায়ও বাস আসতে পারে না যানজটের কারনে। এর ফলে ঈদে ঘরমূখী মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়েছে।
ইউনুসের মতো আরো অনেক পরিবার ভোগান্তি পড়ে বিভিন্ন বাস কাউন্টারে বসে থাকতে দেখা গেছে। রংপুরগামী যাত্রীবাহি বাসের যাত্রী মাধবী রায় জানান, ৪ঘন্টা বসে আছি বাসের কোন খবর নাই। কখন আসবে তাও কেউ বলতে পারেনা। আমাদের দুর্ভোগের শেষ নাই।
খোজ নিয়ে জানা গেছে, ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই তীব্র যানজট লক্ষ্য করা গেছে। এ দুটি মহাসড়কের যান চলাচল খুবই ধীরগতির ছিল। দায়িত্বে থাকা ট্রাফিক কর্মকর্তারা জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রূপগঞ্জে ভুলতা ফ্লাইওভার নির্মাণ, কাঁচপুর সেতু ও মেঘনা সেতুতে সকালে কয়েকটি যানবাহন বিকল হওয়ার কারণে যানজট প্রকট আকারে রূপ নেয়।
শিমরাইল ট্রাফিক ইনচার্জ (টিআই) মোল¬া তাসলিম হোসেন জানান, বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত ৩টি গাড়ি কাঁচপুর সেতুর উপর উঠতে গিয়ে বিকল হয়ে পড়ায় সড়কে যানজট শুরু হয়। তিনি বলেন, সব সময় কাঁচপুর সেতুর পাশে একটি রেকার রাখা হয়েছে, কোনো যানবাহন বিকল হলে সাথে সাথে ওই রেকার দিয়ে সরানো হচ্ছে।
 বৃহস্পতিবার  সকাল থেকে শুরু হয়েছে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা। দুপুরের পর বাড়তে থাকে মানুষ চাপ। নারায়ণগঞ্জের সকল স্টেশনগুলোতে মানুষের উপচে পড়া ভিড় লেগে যায়। আনন্দের এই যাত্রার সঙ্গে শুরুতেই সঙ্গী হয়েছে ভোগান্তি। ঘর থেকে বের হওয়ার পর থেকেই শুরু হয় এই ভোগান্তি। আগামী রোববার শুরু হচ্ছে ঈদের ছুটি। ছুটি ছিল মূলত সোমবার থেকে। প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশে রোববারও ছুটি ঘোষণা করা হয়। শুক্র ও পরেরদিন শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি। যে কারণে আজকের অফিসই ছিলো সরকারি চাকরিজীবিদের জন্য শেষ কর্মদিবস। সবারই প্রস্তুতি নিয়ে অফিসে আসেন। অফিস শেষে রওয়ানা দেন বাড়ির উদ্দেশে। অনেকে আবার সকালে অফিসে গিয়ে সাক্ষর করে জরুরি কাজ না থাকায় কেটে পড়েন বলেও অভিযোগ রয়েছে।
দুপুর হতেই স্টেশনগুলোতে ভিড় লেগে যায় ঘরমুখো মানুষের। নারায়ণগঞ্জে উত্তর চাষাড়া, মেট্ট হলের পাশাপাশি কেউ কেউ আবার সায়েদাবাদ, মহাখালী, গুলিস্তান বাস টার্মিনাল, কমলাপুর রেলস্টেশন এবং সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে খবর নিয়ে জানা গেছে দুপুরের দিকেই মানুষের ঢল নেমেছে। সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে তীল ধারণের ঠাঁই নেই। টার্মিনালে উপচে পড়ছে মানুষ। কমলাপুর স্টেশনে গিয়ে দেখা যায় শতশত ঘরমুখো মানুষ ভীড় জমিয়েছেন। যাদের অনেকের সাথে পরিবার পরিজনও রয়েছে।
কমলাপুর স্টেশন সূত্র বলেছে, আজ দু’টো নতুন ট্রেন চালু হয়েছে। একটি সুন্দরবন এক্সটেওস, যেটি সকাল ৬ টা ২০ মিনিটে খুলনার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে। অপরটি মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস। এটি বেলা আড়াইটার দিকে ছেড়ে গেছে মোহনগঞ্জের উদ্দেশ্যে।
এদিকে, শুরুর দিনই মানুষ পড়েছেন চরম ভোগান্তির মধ্যে। আজ সকাল থেকেই নারায়ণগঞ্জ ছিলো উপচে পড়া ভীড়। উত্তর চাষাড়া বাস কাউন্টারে সামি উল্লাহ নামের এক যাত্রী বলেছেন, ফতুল্লার লালপুর থেকে চাষাড়া আসতে তার দেড় ঘন্টা লেগে গেছে।
এদিকে, শুরুর দিনই যানবাহনগুলোতে বাড়তি ভাড়া আদায় শুরু হয়ে গেছে। ফাহিম নামের এক যাত্রী বলেন, গুলিস্তান থেকে মাওয়ার ভাড়া ৭০-৮০ টাকা। সেখানে আজই দেড় শ’ টাকা আদায় করা হয়েছে। যাত্রীদের চাপ দেখে সকাল থেকে ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা। ঈদ বকশিষের নামে এই বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম