Tue, 20 Nov, 2018
 
logo
 

অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ডে বিনোদনপ্রেমীদের মিলনমেলা


লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ঈদুল আজহায় ফাঁকা হয়ে গেছে শিল্পনগরী নারায়ণগঞ্জ। ১ ঘণ্টার রাস্তা যাওয়া যাচ্ছে মাত্র ১ মিনিটে। ঈদের আমেজের মধ্যে আজ শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন। এমন দিনে বিনোদনপ্রেমীদের ঢল নেমেছে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে।

বাদ যায়নি ফতুল্লার পঞ্চবটিতে অবস্থিত অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ড। যা অনেকের কাছে `এনসিসি পার্ক’ নামেও পরিচিতি। ঈদের তৃতীয় দিনে পরিবার, আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে শিশুরা এসেছে মার্কটিতে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রতি ঈদেই ভিড় জমে পার্কে। বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে ঘুরতে প্রিয় স্থানগুলোর মধ্যে জনপ্রিয় পার্কটি। শিশুদের পাশাপাশি বড়দের বিনোদনের জন্য সব ব্যবস্থা করে রেখেছে অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ড কর্তৃপক্ষ। ঈদ উপলক্ষে ঘষামাজা আর রংতুলিতে বিনোদনকেন্দ্রটির সৌন্দর্য আরও বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া নতুন করে যুক্ত হয়েছে ওয়াটার ল্যান্ড।

অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ডে বিনোদনপ্রেমীদের মিলনমেলা

শুক্রবার (২৪ আগস্ট) সরেজমিনে দেখা যায়, লাইনে দাঁড়িয়ে বিনোদনপ্রেমীরা টিকিট কিনছেন। বাইরে থেকে ভেতরের ভিড় আন্দাজ করার উপায় নেই। বাইরে শান্ত পরিবেশ থাকলেও ভেতরে আনন্দ, চিৎকার, আর খুনসুটিতে পুরোদমে মজেছে অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ড।

ঈদের তৃতীয় দিনে শুধু স্থানীয়রা নয়, ঘর ছেড়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে দূর-দূরান্ত থেকে এ বিনোদনকেন্দ্রে এসেছেন বিনোদনপ্রেমীরা। ছোট-বড় সকলের উপস্থিতিতে এক বর্ণিল পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে জায়গাটিতে।

পার্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শিশুদের পছন্দের আকর্ষণীয় নানা রাইড ছাড়াও বিনোদনের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা থাকছে এই পার্কে। ওয়াটার ল্যান্ড চালুর মধ্যদিয়ে এখন নারায়ণগঞ্জেই মিলছে সর্বাধুনিক বিনোদন ব্যবস্থা।

জানা গেছে, এর আগে প্রাথমিক পর্যায়ে শিশু ও বিনোদন পিপাসুদের জন্য বাম্পারকার, টুইস্ট, মেরী-গো-রাউন্ড, ওয়ান্ডার হুইল, হানি সুইং, শান্তা মারিয়া, সোহান এ্যাডভেঞ্চার, প্যারাট্রোপার, ফ্যামিলি ট্রেন, মুভিং টাওয়ারের মতো জনপ্রিয় ১০টি রাইড ও আকর্ষণীয় কিডস্ রাইড সম্বলিত কিডস্ জোন নিয়ে পার্কটি চালু হলেও বর্তমানে রোলার কোস্টার, পনি অ্যাডভেঞ্চার ও আন্তর্জাতিকমানের ওয়াটার পার্ক বসানো হয়েছে।

এছাড়া সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য লেক, ফোয়ারা, ফুলের বাগান ছাড়াও দর্শনার্থীদের জন্য জুসবার, চাইনিজ রেস্টুরেন্ট ও রেস্ট হাউস তৈরি করা হয়েছে। পাশাপাশি মূল ফটাকের সামনে গাড়ি পার্কিংয়েরও বিশাল জায়গা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সাথে ব্যবসায়িক চুক্তিবদ্ধ হয়ে ২০১২ সালের শেষ দিকে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয় পার্কটির। নির্মাণ কাজ শেষ হয় ২০১৬ নাগাদ । ২০১৬ সালের ৩ সেপ্টেম্বর পরীক্ষামূলকভাবে উন্মুক্ত করে দেয়া হবে এ পার্কটি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম