Fri, 17 Aug, 2018
 
logo
 

মাওলানা আউয়ালকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার হুশিয়ারী

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘পীর যার যার সুন্নীয়াত সবার’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন নারায়ণগঞ্জের সুন্নী আলেম-ওলামাগন। পাশাপাশি সকল হক্কানী দরবারের প্রতিনিধিদের নিয়ে পূর্ণগঠন করা হচ্ছে সুন্নী সংগ্রাম পরিষদ নারায়ণগঞ্জ।

শুক্রবার মুজাদ্দেদীয় খানকা শরীফ প্রাঙ্গনে বাংলাদেশ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের সভাপতি পীরে কামেল আল্লামা বাহাদুর শাহ মুজাদ্দেদী আল আবেদী (মাঃ আঃ) এর সভাপতিত্বে সুন্নী আলেম ওলামাদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।


বৈঠকে বক্তারা বলেন, নারায়ণগঞ্জে সুন্নী সংগ্রাম পরিষদ আগেও ছিলো। এখন সেটি সবাইকে নিয়ে পূর্ণগঠন করে এই ব্যানারে আন্দোলনের মাধ্যমে বিতাড়িত করা হবে আউয়ালদের মতো মিলাদুন্নবীর দুশমনদের। যারা ঈদ এ মিলাদুন্নবী উদযাপনকে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমীর সঙ্গে তুলনা করে নারায়ণগঞ্জের নবী প্রেমিকদের মনে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। পাশাপাশি রাষ্ট্রীয়ভাবে পালিত ঈদ এ মিলাদুন্নবীর বিরোধীতা করে যে অপরাধ করেছে তা রাষ্ট্রদ্রোহিতার সামিল। ডিআইটি মসজিদের খতিব আউয়াল তওবা পড়ে ফের কলেমা পড়ে ক্ষমা না চাইলে আমরা এব্যাপারে অচীরেই আইনী এবং সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবো ঐক্যবদ্ধভাবে। নারায়ণগঞ্জের সুন্নী-জনতা জেগে উঠলে আউয়ালরা পালাবার পথ পাবেনা। তারা মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের রাস্তায় নামিয়ে সুন্নীদের লাশ ফেলার ঘোষনা দেন। মাওলানা তামিম বিল্লাহ’র গর্দান নেয়ার হুঃকার দেয়। আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, নারায়ণগঞ্জের সুন্নী জনতা অত্যন্ত শান্তিপ্রিয় ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। যদি তামিম বিল্লাহ বা অন্য কোন সুন্নী ভাইয়ের কোন ক্ষতির চেষ্টা করা হয় তাহলে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে নারায়ণগঞ্জের সুন্নী-জনতা।


আগামী শুক্রবার (২০ এপ্রিল) শহরের মন্ডলপাড়াস্থ মুজাদ্দেদীয়া খানকা শরীফ সংলগ্ন বাইতুল ইজ্জত জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে নারায়ণগঞ্জের সকল দরবার শরীফের পীর-মাশায়েখ, জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব এবং মসজিদ কমিটিসহ সুন্নী আকীদার সকল নেতৃস্থানীয়দের নিয়ে প্রস্তুতিমুলক সভা আহ্বান করা হয়েছে। ঐ সভায় সুন্নী সংগ্রাম পরিষদ নারায়ণগঞ্জ পূর্ণগঠনের মধ্যদিয়ে পবিত্র ঈদ এ মিলাদুন্নবী বিরোধীদের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন। বৈঠকে ফকিরটোলা জামে মসজিদ, মিন্নত আলী শাহ জামে মসজিদ, সাকিম আলী জামে মসজিদ, সিটি কর্পোরেশন জামে মসজিদ, কদমরসূল দরগাহ জামে মসজিদসহ বিভিন্ন মসজিদের ইমাম ও খতিব এবং বিভিন্ন দরবার শরীফের প্রতিনিধিগন অংশগ্রহন করেন। সভাপতির বক্তব্যে আল্লামা বাহাদুর শাহ মুজাদ্দেদী বলেন, সুন্নী-জনতাদের মাঝে বিভাজনের কারনেই নারায়ণগঞ্জের মাটিতে ঈদ এ মিলাদুন্নবী উদযাপনকে কটুক্তি করা হয়। নারায়ণগঞ্জের সুন্নীরা গোটা বাংলাদেশের সমস্ত মাজার শরীফ নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালনা করে থাকেন। সুন্নীদের সবচে বড় ঘাঁটি হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ।


এই নারায়ণগঞ্জের জমিনে দাড়িয়ে যারা নবী (সাঃ) এর আগমনের আনন্দ উৎসবকে হিন্দু ধর্মের শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিনের সঙ্গে তুলনা করে তাদের প্রতিরোধ করতে হবে। আমাদের বিভাজনের সুযোগ নিয়ে যারা ঈদ মিলাদুন্নবীকে অস্বীকার করে তাদেরকে ইসলাম সম্মত এবং আইনগতভাবে সমুচিত জবাব দিতে হবে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম