Tue, 17 Oct, 2017
 
logo
 

ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্য্য ও নানা আয়োজনে মঙ্গলবার পালিত হবে ঈদে মিলাদুন্নবী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) ১২ রবিউল আউয়াল মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বার)। এদিন নবীকরিম হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা (সা.)-এর জন্ম ও ওফাত দিবস। বিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায়সহ শান্তিকামী প্রত্যেক মানুষের কাছে দিনটি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

বিশ্বের অন্যান্য স্থানের মতো নারায়ণগঞ্জেও যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদায় দিবসটি উদযাপিত হবে।

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে ‘রাহমাতুল্লিল আ’লামিন’, ‘উসওয়াতুন হাসানা’, ‘সাইয়্যেদুল মুরসালিন’ ইত্যাদি সর্বোচ্চ মর্যাদায় অভিহিত করেছেন। দুনিয়ার বুকে তার আগমন ঘটেছিল ‘সিরাজাম মুনিরা’ রূপে। ততকালীন আরব সমাজের অনাচার, অবিচার, অসত্য ও অন্ধকারের বিপরীতে তিনি স্থাপন করেন সত্য-ন্যায় ও সাম্যসহ ন্যায়ভিত্তিক সুন্দর সমাজব্যবস্থার।

বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর জন্ম ও মৃত্যুর দিন। ৫৭০ খ্রিস্টাব্দের ১২ রবিউল আউয়াল আরবের মক্কা নগরীতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন বিশ্ববাসীর জন্য আল্লাহর পক্ষ থেকে রহমতস্বরূপ সর্বশেষ ও সর্বশ্রেষ্ঠ এই মহামানব। আইয়ামে জাহেলিয়াতের সেই অন্ধকার যুগে মানুষকে আলোর পথ দেখিয়ে ৬৩ বছর বয়সে একই দিনে তিনি ইন্তেকাল করেন।

বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বাল্যকাল থেকেই সততার জন্য তিনি আলআমিন বা বিশ্বাসী হিসেবে খ্যাতি লাভ করেন। হেরা গুহায় স্রষ্টার সন্ধানে ১২ বছরের মোরাকাবা বা একাগ্র সাধনায় আল্লাহপাক সন্তুষ্ট হয়ে ৪০ বছর বয়সে বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে নবুয়ত দান করেন। এরপর কাফেরদের তীব্র বিরোধিতা ও নানা নির্যাতনের মধ্যেও মুহাম্মদ মুস্তফা আহমদ মুজতাবা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আল্লাহর একত্ববাদ ও ইসলাম প্রচার করতে থাকেন। তাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করলে আল্লাহর নির্দেশে তিনি মাতুলালয় মদিনায় হিজরত করেন। মদিনায় গিয়ে তিনি সব ধর্মের মানুষের সঙ্গে মুসলমানদের শান্তি ও নিরাপদে বসবাসের জন্য ঐতিহাসিক মদিনা সনদ প্রণয়ন করেন। তারপরও নবীজীকে ঐতিহাসিক বদর যুদ্ধ, ওহুদ যুদ্ধসহ ২৭টি প্রতিরোধ যুদ্ধ মোকাবিলা করতে হয়।


আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সর্বশেষ মহাগ্রন্থ পবিত্র কোরআন তার ওপর অবতীর্ণ করে জগতে তাওহিদ প্রতিষ্ঠার দায়িত্ব অর্পণ করেন। নিজ যোগ্যতা, মহানুভবতা, সহনশীলতা, কঠোর পরিশ্রম, নিষ্ঠা ও সীমাহীন ত্যাগের বিনিময়ে তিনি এ মহান দায়িত্ব পালনে সফল হন। তার অনন্যসাধারণ ব্যক্তিত্ব, অনুপম আচরণ, সৃষ্টির প্রতি অগাধ প্রেম ও ভালোবাসা, অতুলনীয় বিশ্বস্ততা, অপরিমেয় দয়া ও মহত গুণের জন্য তিনি সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব হিসেবে অভিষিক্ত। বিশ্বের ইতিহাসে সর্বপ্রথম লিখিত সংবিধান ‘মদিনা সনদ’-এ জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সর্বস্তরের জনগণের ন্যায্য অধিকার ও মর্যাদাপ্রতিষ্ঠার সর্বজনীন ঘোষণা রয়েছে। সুতরাং ধর্মীয় ও পার্থিব জীবনে তার শিক্ষা সমগ্র মানবজাতির জন্য অনুসরণীয়।


বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর জন্ম ও মৃত্যুর এই দিনটি সারা বিশ্বের মুসলমানদের কাছে মর্যাদা ও তাৎপর্যপূর্ণ। বরাবরের মতো এবারও সারা দেশের ন্যায় নারায়ণগঞ্জের ধর্মপ্রাণ মুসলমান ইবাদত-বন্দেগি, জশনে জুলুস, আলোচনা, দোয়া মাহফিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করছেন।

বাংলাদেশে আজ সরকারি ছুটি। এ উপলক্ষে সকালে শহরে জশনে জুলুস ও র‌্যালির আয়োজন করা হয়েছে।

বিভিন্ন রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও সামাজিক সংগঠন দিনটি উপলক্ষে কোরআনখানি, ফাতেহা পাঠ, দোয়া মাহফিলসহ নানা কর্মসূচি পালন করছে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা কোরআন শরিফ তেলাওয়াত, হাদিস শরিফ পাঠ, নফল নামাজ, ইবাদত বন্দেগি ও কবর জিয়ারত করে দিনটি পালন করছেন।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম