Thu, 24 Jan, 2019
 
logo
 

স্বপ্ন দেখাবেন বলে অনেক সুযোগ হাতছাড়া করেছেন রনজিত দা: মাকছুদুল আলম খন্দকার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: এ পৃথিবীতে যুগের পর যুগে কিছু মানুষের সৃষ্টি হয়। রনজিত কুমার এমনই একটি নাম। সাংস্কৃতিক একাডেমী ‘শ্রুতির’ অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা তিনি।

লেখক, সম্পাদক, নাট্যকার, নির্দেশক, আবৃত্তি প্রশিক্ষক রনজিত কুমার। এই ব্যক্তিত্বের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে নিজের মনের কথা প্রকাশ করলেন এনসিসির ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সভাপতি মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। তাঁর স্মৃতিচারণে অনেকটাই উঠে এসেছে রনজিত দার ব্যাক্তিত্ব।

 

মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেন, সালটা ঠিক মনে করতে পারছি না। তবে অনুষ্ঠানটি গেঁথে আছে মনের গহীনে। শ্রুতির প্রথম বা দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ছিল আলী আহম্মদ চুনকা পাঠাগারে একটি অনুষ্ঠান। উপস্থিত ছিলেন কিংবদন্তি এস এম সুলতান। আমি সেখানে গিয়েছিলাম সাপ্তাহিক গণডাকের রিপোর্টার হিসাবে। আমি এসএম সুলতানের ও তার পালিত কন্যার একটা দীর্ঘ ইন্টারভিউ করেছিলাম। সারা অনুষ্ঠানটি এত আকষর্ণীয় ছিল যে, বিশেষ করে শিশুদের পরিবেশনা। আমি মন্ত্র মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলাম। এই মুগ্ধতা থেকেই শ্রুতির নেপথ্য কারিগর কে খুজে বের করেছিলাম। তিনি আর কেউ নন আজকের প্রয়াত রনজিত দা। ধাবমান যখন লিটল ম্যাগ প্রকাশ শুরু করে তখনও দেখেছি দাদার স্বকীয়তা। মাঝে চেষ্টা করেছিলেন নিতাইগঞ্জের একটা গরীবের স্কুল করার, সেটা মনে হয় সম্ভব হয়নি আমলাতান্ত্রিক জটিলতায়। বিভিন্ন সময়ে রাস্তায় দেখা হয়েছে, কথা হয়েছে, যথেষ্ট ভালবাসা পেয়েছি তার কাছে। জেনেছি সমাজটাকে সবার জন্য সার্বজনীন করার স্বপ্নে বিভোর দাদা মেডিকেলে সুযোগ পেয়েও হাত ছাড়া করেছিলেন শুধু মানুষকে নতুন দিনের স্বপ্ন দেখাবেন বলে। অপাদমস্তক একজন বিপ্লবীর প্রতিকৃত ছিলেন তিনি। রনজিত দা, যেখানেই থাকুন ভাল থাকবেন। আমাদের অন্ধকার চলার পথ সূর্য হয়ে আলোকিত করবেন।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম