Fri, 24 Nov, 2017
 
logo
 

খারাপ ছেলে, তবু গর্ব করে বলি 'আমি' রাজনীতি করি

মশিউর রনি: যদি কোন বয়স্ক চাচা কে প্রশ্ন করা হয় পাড়ার সব চেয়ে খারাপ ছেলে কোনটি, চাচা মিয়ার প্রথম টার্গেট হবে সক্রিয় রাজনীতি করা ছেলেটি। যদি বলা হয় কেন ছেলেটি খারাপ , আপনার কোন ক্ষতি করছে , জবাব আসবে না।

তবে রাজনীতি তো খারাপ জিনিস তাই খারাপ বললাম আর কি!!

ক্যাম্পাসের ছাত্রীদের যদি প্রশ্ন করা হয়, ক্যাম্পাসের সবথেকে খারাপ ছেলে কে? তখন অনায়াসে সেই সক্রিয় রাজনীতি করা ছেলেটির নাম ই সবার আগে।

বন্ধুবান্ধবদের মাঝেও সবচেয়ে খারাপটি হয় রাজনীতি করা বন্ধুটি! কিন্তু যখন গরিব বন্ধুটা ফরম ফিলাপ করতে পারেনা টাকার কারনে তখন ঐ খারাপ ছেলের কাছেই যেতে হয় টাকা কমানোর জন্য।

সবাই আমাদের খারাপ বলে জানে,জানুক তাতে কি আমরা খারাপ বলে ,অন্য কাউকে খারাপ ভাবতে পারি না..।

পাড়ার সেই চাচাটি যখন বিপদে পড়ে তখন কিন্তু সবার আগে রাজনীতি করা খারাপ ছেলেটিই কাছেই আসতে হয়।

কলেজের সুন্দরি আপুটি যখন বিপদে পড়ে তখন কিন্তু সবার আগে সেই খারাপ ছেলেটিকেই ফোন করতে হয়।
আর বন্ধু বান্ধব বিপদে পড়লে তো রাজনীতি করা খারাপ বন্ধুটার নামে কয়েকখানা কবিতা রচনা করে ফেলে
ফেইসবুকে ...।

আরে বাবা রাজনীতি করি বলে প্রেম ও করতে পারি না, মেয়েরা নাকি আবার রাজনীতি করা পছন্দই করে না, কিন্তু এত অবহেলার পড়েও আমরা রাজনীতি করি।

সেই বয়স্ক চাচা,কলেজের ছাত্রী,বন্ধু ও সুন্দরি আপু
কেউই আমাদের কাছে থেকে নিরাশ হয়ে ফিরে যায় না।
সবাই আমাদের ঘৃনা করে,আবার স্বার্থের প্রয়োজনে আমাদের কাছেই আসে, এটা হল মুখোসধারী ভদ্র সমাজের গুন।

তারপরেও আমরা মানুষের উপকার করতে পেরে খুশি,
সে মনে রাখুক আর নাইবা রাখুক । রাজনীতি করে মানুষের উপকার করে যদি খারাপ উপাধি পাই, তবে আমার খারাপ উপাধিটা মুখোসধারী ভদ্রসমাজের থেকে অনেক অনেক গুন ভাল।

আর এই খারাপ উপাধিটা বুকে আকড়ে ধরে রাখতে চাই, আর জোর গলায় গর্ব করে বলি"আমি" রাজনীতি করি।

 

লেখক: নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্র দলের যুগ্ন আহ্বায়ক

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম