Tue, 16 Oct, 2018
 
logo
 

মিজমিজিতে মাদ্রাসার প্রিন্সিপালের অপসারণ দাবী

লাইভ নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে মিজমিজি হাজী আবদুস সামাদ আলীম মাদ্রাসার প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানের অর্থ আত্মসাৎ ও সম্পদ দখলসহ নানা অনিয়ম এবং দূর্ণীতির অভিযোগে মানববন্ধন করেছে মাদ্রাসার ছাত্র ও শিক্ষকরা। বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানার মিজমিজি পশ্চিমপাড়া এলাকায় মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে এ মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা প্রিন্সিপালের অপসারণ দাবী করেন।

মানবন্ধনে বক্তারা জানান, ১৯৮৫ সালে ব্যক্তি মালিকানার ৯২ শতাংশ জমির উপর মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন স্থানীয় হাজী আবদুস সামাাদ। এই মাদ্রাসায় এতিমখানা, হেফজুল কোরআন কওমী মাদ্রাসা, লিলাহ্ বোর্ডিং, মহিলা মাদ্রাসা ও একটি জামে সমসজিদও রয়েছে। আর আলীম মাদ্রাসার জন্য ৩০ শতাংশ জমি ওয়াকফ করে দেয়া হয়েছে। পুরো প্রতিষ্ঠানটিতে রয়েছে প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী।

জমির মালিক মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা হাজী আবদুস সামাদ অভিযোগ করেন, আলীম মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আবু তাহের ভূঁইয়া ব্যক্তিগত স্বার্থে প্রতিষ্ঠানটির পুরো ৯২ শতাংশ জমি আলীম মাদ্রাসার নামে দখলের পাঁয়তারা করছেন। পাশাপাশি মাদ্রাসার আয় ও ব্যয়ের সঠিক হিসাব না দিয়ে বিপুল পরিমান অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। তিনি জানান, এর প্রতিবাদ করায় বহিরাগত সন্ত্রাসী দ্বারা তাকে এবং তার পরিবারের সদস্যদের প্রাণনাশের হুমকিও দেয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় যথাযথ ব্যবস্থা নিতে মাদ্রাস শিক্ষা বোর্ডসহ জেলা প্রশাসক ও জেলা শিক্ষা অফিসার বরারব লিখিত অভিযোগ দিলেও এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

হাজী আবদুস সামাদ আরো জানান, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো: শরিফুল ইসলাম মাদ্রাসা পরিদর্শন করে প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন এবং তার কার্যকলাপকে অবৈধ বলে ঘোষণা করেছেন। তবে অভিযোগ প্রমানিত হওয়ার পরও প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোন কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। তিনি বলেন, সমাজের স্বার্থে ধর্মীয় শিক্ষা বিস্তারের জন্য আমি নিজ জমিতে এই মাদ্রাসা ও সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলো পতিষ্ঠা করেছিলাম। কিন্তু এই বৃদ্ধ বয়সে আমি এখন প্রিন্সিপালের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

মানবন্ধন কর্মসূচীতে মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অবিলম্বে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে অসৎ প্রিন্সিপালের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও অপসারণ দাবী করেন।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম