Sat, 17 Nov, 2018
 
logo
 

অতিরিক্ত অর্থ দিয়েই ভর্তি হয়েছে অধিকাংশ শিক্ষার্থী, নিশ্চুপ প্রশাসন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ড্রেস ও জুতা বাবদ ১৭৫০ টাকা অতিরিক্ত নেওয়ার অভিযোগ ছিলো গত বুধবারই। এঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক। কিন্তু ঘটনার একদিন অতিবাহিত হলেও পাল্টায়নি সেই পুরণ চিত্র।

বৃহস্পতিবারও (২৮ জুন) নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের সেই অতিরিক্ত অর্থ নেওয়ার নিময় বহাল রেখেছে। এতে হতাশ হয়েছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ।

সরেজমিনে গেয়ে জানা গেছে, বিজ্ঞান খাতে ভর্তি ফি ২ হাজার ৭ ‘শ ৮৪ টাকা। এছাড়া মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ২ হাজার ৫‘শ ৮৪ টাকা করে নির্ধারণ করা হয়েছে। সাথে শিওরক্যাশের চার্জ বাবদ ৩০ টাকা ও নির্ধারিত ড্রেস এবং বাটার নীল কেড্স বাবদ আরো ১ হাজার ৭ ‘শ ৫০ টাকা দিতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। ড্রেস এবং বাটার নীল কেড্স বাবদ টাকা না দিলে ভর্তিও নিচ্ছে না কলেজ কর্তৃপক্ষ। অতিরিক্ত এ অর্থ নেওয়ার বিষয়ে কোন ধরণের রশিদ দিচ্ছে না।

জানা গেছে, এবছর গত ২৭ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত অফিস খোলা কালিন সময়ে নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে মোট ২৮০০ শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারবে। এর মাঝে বিজ্ঞান বিভাগে ৫ ‘শ ৫০ জন, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ১ হাজার ১ ‘শ ৫০ জন ও মানবিক বিভাগে ১ হাজার ১ ‘শ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হবে।

ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীর অভিভাবক খানপুর এলাকার রোকসানা বেগম বলেন, ‘এমন নিয়ম আমি এর আগে কখনো দেখি নাই। এধরণের নিয়মের কারণে গরিব শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা অর্থকষ্টে পরছে। অথচ, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোন মাথা ব্যথাই নাই। ’

এ সম্পর্কে কলেজের অধ্যক্ষ বেদৌরা বিনতে হাবিবের সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করলে প্রতিষ্ঠানটির প্রবেশে দায়িত্বে থাকা শিক্ষার্থীরা প্রবেশ করতে দেয়নি। পরবর্তীতে অধ্যক্ষের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেনি।

এদিকে কলেজের একটি সূত্র বলছে, ইতো মধ্যেই অধিকাংশ শিক্ষার্থী ড্রেস ও জুতা বাবদ ১৭৫০ টাকা অতিরিক্ত দিয়েই ভর্তি হয়েছে। যে সিট গুলো বাকি আছে, সেখানেও এ নিয়ম বহাল থাকবে বলে জানানো হচ্ছে।

 

পূর্বের নিউজ পড়তে ক্লিক করুন:
মিশনে নেমেছে মহিলা কলেজ: শুরু অর্ধকোটি টাকার ড্রেস বাণিজ্য

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম