Thu, 13 Dec, 2018
 
logo
 

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দূর্ণীতির অভিযোগ

সোনারগাঁ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্ণীতির অভিযোগ এনে বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ দিয়েছেন এলাকাবাসীরা।

এ বিষয়ে গতকাল রবিবার দুপুরে উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

 

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলা ২৭নং লাধুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন ব্যাপক দুর্ণীতি ও অনিয়মের সাথে জড়িয়ে পরেছেন। তিনি বিদ্যালয়ে যোগদানের পর প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান না দেওয়ার কারণে বিগত বছরের তুলনায় চলতি বছরে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ফলাফলের বিপর্যয় ঘটে। তিনি অভিভাবকদের নিকট থেকে ভর্তি এবং সমাপনী পরীক্ষার নম্বর পত্র দেওয়া বাবদ কৌশলে টাকা আদায় করে নেয়। পাশাপাশি অভিভাবকদের কাছ থেকে বিভিন্ন অযুহাতে মোটা অংকের টাকা আদায় করে থাকেন। তার আচার আচরন এলাকার অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও সচেতন মহল অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। অভিযোগে আরো উল্লেখ্য করা হয়েছে দুর্ণীতিবাজ, অনিয়মিত ও অর্থলোভী প্রধান শিক্ষক এই বিদ্যালয়ে কর্মরত থাকলে শিক্ষার গুনগত মানসহ শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ মারাত্মক ভাবে বিঘœ সৃষ্টি হবে।

 

অভিভাবকরা জানায়, প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন বিদ্যালয়ে যোগদান করার পর থেকে লেখাপড়া প্রতি নজর না দিয়ে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্ণীতিতে জড়িয়ে পরেছেন। তাই অবিলম্বে আমরা তার অপসারণ দাবী করছি।

 

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন ছেলে মেয়েদের পাঠদান না করে বিভিন্ন সময়ে বিদ্যালয়ের বাইরে অবস্থান করেন। তাই আমরা এর প্রতিবাদ জানালেও তিনি নিজেকে শিক্ষক সমিতির নেতা দাবী করে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্ণীতি চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, বিভিন্ন সময়ে প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছ থেকে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমি কোন দুর্ণীতি ও অনিয়মের সঙ্গে জড়িত নই। আমার বিরুদ্ধে একটি মহল মিথ্যা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

 

সোনারগাঁ উপজেলা শিক্ষা অফিসার আ.ফ.ম জাহিদ ইকবাল বলেন, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করার জন্য সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার কানিজ ফাতেমাকে সভাপতি ও সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার তাসলিমা আক্তারকে সদস্য এবং শাহনাজ পারভীনকে সদস্য সচিব করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটি রিপোর্ট অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম