Fri, 20 Oct, 2017
 
logo
 

না.গঞ্জের মানসিক স্বাস্থ্যসেবা: প্রায় সাড়ে ৯ লাখ লোকের জন্য নেই কোন চিকিৎসক!

গোলাম রাব্বি, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বাবার মৃত্যুর পর অনেকটাই ভেঙ্গে পড়েন ফতুল্লার শিবু মার্কেট এলাকার তরুণ মাহবুবুল আলম সুমন। এসময় বন্ধু ও প্রতিবেশীদের নানা ধরণের কথা, সংসারের চাপে মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। কেউ কোন ভালো কথা বললেও সুমনের আর ভালো লাগে না। সকলের সাথেই দুর্ব্যবহার করতে থাকেন।

শুধু সুমনই নয়, মানসিক চাপ, আর্থ-সামাজিক অবস্থা, প্রযুক্তির অপব্যবহার ও বংশগতহসহ নানা কারণেই নারায়ণগঞ্জে মানসিক রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে।
২০১৬ সালে এই বিষয়ে জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের চালানো এক জরিপে বলা হয়েছে, দেশের ৩১ শতাংশ মানুষ মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় আক্রান্ত। এই হিসেবে নারায়ণগঞ্জে প্রায় ৯ লাখ ৬০ হাজার মানুষ এখন কোন না কোন মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছে। অথচ, বিপুল সংখ্যক এই সকল মানুষের মানসিক স্বাস্থ্যসেবার জন্য পুরো নারায়ণগঞ্জে একটি মাত্র পদ রয়েছে। কিন্তু খানপুর হাসপাতালের সেই আসনটিতেও দখলে আছেন অন্য আরেক চিকিৎসক।
গত প্রায় ১ বছর যাবদ এই পদটিতে নেই কোন মানসিক চিকিৎসক। এছাড়া বর্তমানে এই পদটি দখল করে আছে অর্থপেডিক্স বিশেষজ্ঞ ডা. মো. রফিকুল ইসলাম খান।
নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএমএ’র সভাপতি ডা. শাহ্ নেওয়াজ লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, শরীরের অসুখের মতো মনের অসুখকে তেমন গুরুত্ব দেওয়া হয় না। কিন্তু এ রোগের জন্যও চিকিৎসকের কাছে যাওয়া জরুরি। নারায়ণগঞ্জ শিল্প নগরী হওয়ায় এই সমস্যা আরো বেশি ভয়াবহ। কিন্তু জেলার মাত্র একটি মানসিক চিকিৎসকের পথ থাকলেও সেই পদটিও শূণ অবস্থায় বহুদিন যাবত। তাই শূন্য পদে চিকিৎসকের পাশাপাশি জেলায় আরো মানসিক চিকিৎসক দেয়া জরুরি।
এবিষয়ে জানতে খানপুর ৩‘শ শয্যা হাসপাতালের তত্ববধায়ক মোহাম্মদ মোতালেব মিয়ার মোবাইল ফোনে একাধীকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেনি।
অপর দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. এহাসানুল হক মুকুল লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, মানসিক চিকিৎসকের জন্য আমরা উপরস্থ কর্মকর্তাদের জানিয়েছে। তারা শুধু আমাদের আশ্বাস দিয়েছে। এর বাহিরে আর কিছুই না। তবে আমি দাবি করবো দ্রুত যেন জেনারেল হাসপাতালে নতুন পদ সৃষ্টি করে মাসনিক চিকিৎসক দেয়া হয়।
অন্যদিকে ঢাকা বিভাগের স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. নীতিশ কান্তি দেবনাথের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোনটি রিসিভ না করায় মতামত জানা যায়নি।
উল্লেখ্য, সারা বিশ্বে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে প্রতিবছর ১০ অক্টোবর নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস পালিত হয়ে আসছে।  এ নিয়ে নারায়ণগঞ্জে কোন আয়োজন লক্ষ্য করা যায়নি।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম