Mon, 23 Oct, 2017
 
logo
 

৩শ’ শয্যা জরুরী বিভাগে রেখে ক্লিনিকে চিকিৎসক! মধ্যরাতে ভোগান্তী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: খানপুর ৩শ’ শয্যার জরুরী বিভাগে চিকিৎসা নিতে এসে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে রোগীদের। বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত দায়িত্বরত চিকিৎসকের অনুপস্থিতর কারণে ভাগান্তি পোহাতে হয়।

সরেজমিনে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রাত ১১টা থেকে জরুরী বিভাগে দায়িত্ব পালনের কথা ছিলো ডা. মাহবুবুল আলমের। তিনি যথা সময়ে দায়িত্ব পালন না করায় এর আগের দায়িত্ব পালন করা চিকিৎসক দায়িত্ব হস্তান্তরের জন্য কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেন। এসময় জরুরী বিভাগে চিকিৎসা নিতে এসে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে রোগীদের।


স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়ম অনুযায়ী জরুরী বিভাগে একজন চিকিৎসক ৮ ঘন্টা পালায় দায়িত্ব পালন করার কথা থাকলেও নিজেদের মধ্যে সমঝোতায় ২৪ ঘন্টা দায়িত্ব পালন করছেন ওই বিভাগের চিকিৎসকেরা।


জরুরী বিভাগের দায়িত্ব অবহেলার এমন গুরুতর অভিযোগ শুধু ডা. মাহবুবুল আলমের বিরুদ্ধেই নয়, পঞ্চিমী ঘোষ নামের ওই বিভাগের আরো এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেছেন, গত ৪ মাস যাবত দায়িত্ব পালন করছে না পশ্চিমী ঘোষ। তার দায়িত্ব মাঝে মাঝেই পালন করেন ডা. মান্নান। কিন্তু কিছু দিন পূর্বে তার ভাই মৃত্যু করণ করায় এখন তিনি জামালপুর অবস্থান করছেন।


ফলে জরুরী বিভাগে চিকিৎসক সংকট হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অর্থপেডিক সার্জারী ডা. এফ এম মাহবুবুল আলমকে অফিসিয়াল ভাবে ওই বিভাগের দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছে। ওই সময় তিনি দায়িত্ব পালনে সম্মতি প্রকাশ করলেও বৃহস্পতিবার তাকে জরুরী বিভাগে দেখা যায়নি।


অন্যদিকে একটি সূত্র বলছে, জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত এই চিকিৎসক খানপুর হাসপাতালে দায়িত্ব পালন না করলেও বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা থেকে গভির রাত পর্যন্ত চাষাড়ায় অবস্থিত গ্রীণ লাইফ ডায়াগনষ্টিক এন্ড কনসাল সেন্টারে দায়িত্ব পালন করেছেন।


এসময় কারণ জানতে ডা. মাহবুবুল আলমকে একাধীকবার ফোন করলেও তিনি কল রিসিভ করেনি।


খানপুর ৩‘শ শয্যার ভারপ্রাপ্ত চিকিৎসক ডা. মো. জাহাঙ্গীর আলম লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ডা. মাহবুবুল আলমের সাথে দায়িত্ব পালন না করার বিষয়ে আমার কথা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, হঠাৎ’ই তার মা অসুস্থ্য হয়ে পড়ায় তিনি জরুরী বিভাগের দায়িত্ব পালন করতে পারবে না। দেখি এখন কি করা যায়।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম