Wed, 28 Jun, 2017
 
logo
 

মোস্তাকের প্রেতাত্মারা ওসমান পরিবারকে নিয়ে কটুক্তি করে- নাজমুল আলম সজল

স্টাফ রিপোর্টার, লাইভ নারাযণগঞ্জ ডট কমঃ শামীম ওসমানের মতো ত্যাগী  নেতা দেশের প্রতিটি ঘরে প্রয়োজন।  বাংলাদেশের ৩শ আসনে যদি তার মত এমপি থাকতো তাহলে এদেশটা জঙ্গীবাদ মুক্ত ঘোষনা করা যেতো।

মহানগর স্বেচ্ছা সেবক লীগের সভাপতি নাজমুল আলম সজল একান্ত সাক্ষাৎকারে লাইভ নারায়ণগঞ্জ ডট কমকে একথা বলেন।
সজল বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আর্দশ সৈনিক নারায়ণগঞ্জবাসীর প্রান প্রিয় নেতা শামীম ওসমানের কর্মী হিসেবে নিজেকে নিয়ে গর্ববোধ করি। কারন নারায়ণগঞ্জ বাসীর হাজার বছরের কলঙ্ক থেকে মুক্ত করেছেন তিনি।এক সময় কেউ যদি প্রশ্ন করতো আপনার বাড়ী কোথায় তাহলে পরিচয় দিতে একটু লজ্জা বোধ করতাম কারন নারয়নগঞ্জের কথা বললে ইশারা ইঙ্গিত দিয়ে বলতো টানবাজারের আসে পাশে কিনা। আজ সেই টানবাজার একটি ব্যবসায়ীক কেন্দ্র রুপান্তরীত হয়েছে এটা আমাদের জন্য বড় গর্বের বিষয়। আজ আমাদের দেশের অনেকে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে কিন্তুু এই টানবাজরের(পতিতালয়ের) মত স্থানের বিরুদ্ধে তারা তখন কোন কথা বলেনি।
স্বেচ্ছা সেবক লীগের এ নেতা বলেন, নারায়ণগঞ্জে কিছু কুচক্রী মহল আছে যারা ওসমান পরিবারকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য বিভিন্ন মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়ায়। শামীম ওসমানের রাজনীতির মধ্যে একটা আদর্শ আছে তিনি দল মত নির্বিশেষে সকলকে এক সঙ্গে নিয়ে দেশের জন্য কাজ করেন। কে বিএনপি, কে জাতীয় পার্টির তিনি এটা বিচার করেননা। তিনি শুধু এতোটুকু চিন্তা করেন দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হলে সকলকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করতে হবে। নারায়ণগঞ্জ বাসীকে একত্রিত করতে হলে প্রয়োজন ওসমান পরিবার।
তিনি বলেন, আমাদের দেশে যারা রাজনীতি করে সাধারন জনগন তাদেরকে একটু ভিন্ন চোখে দেখেন এর জন্য দায়ী কিছু অসৎ রাজনীতিবিদ। কারন সরকার থেকে সাধারন মানুষের জন্য যে সাহায্য আসে তা ভালো নেতাদের হাতে গেলে গরিব দুখীর উপকারে আসে। আর যদি অসৎ নেতাদের হাতে পরে তাহলে সেটা তাদের(নেতাদের) পেটে চলে যায়। আমাদের দেশে সৎ রাজনীতিবিদের খুব অভাব বর্তমান অভিবাভকরা তাদের সন্তানদের রাজনীতি থেকে দুরে রাখার চেষ্টা করেন। কারন কিছু রাজনৈতিক নেতা আছে যারা নতুন ছেলেদের রাজনীতিতে যোগদান করিয়ে সন্ত্রাসী আর চাঁদাবাজ হিসেবে তৈরি করে।
তিনি আরো বলেন, আমি নাজমুল আলম সজল ও আমার ছোট ভাই সানি আমরা দুজনেই শামীম ওসমানের কর্মী হিসেবে আছ তিনি আমাদের তৈরি করেছেন। আমাদের নামে বাংলাদেশের কোন থানায় একটি মামলা নেই এর কারন আমাদের নেতা কখনো বলেনি তোমরা চাদাবাজী করো, সন্ত্রাসী করো। তিনি আমাদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে রাজনীতি করার  শিক্ষা দিয়েছে। ্শামীম ওসমানে আমদের গুরু হিসেবে আমাদের পরিচালিত করছেন। শামীম ভাই একদিন আমাকে ডেকে বললো তোমার ছোট ভাই কি করে আমি উত্তরে বললাম ভাই পড়াশুনা করে। প্রতি উত্তরে তিনি আমাকে বললো তোমার ভাইটাকে আমাকে দিবে। আমি র্নিধিদায় বললাম ‘হ্যা’ ভাই দিবো তিনি আমাকে বলেন তাহলে খালাম্মার( আমার মায়ের) কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে এসো। আমার মা একথা শুনে সাথে সাথে অনুমতি দিয়ে দিলো কারন আমার মা ওসমান পরিবার সর্ম্পকে জানেন। যারা ওসমান পরিবারের সাথে রাজনীতি করে তারা মৃত্যুর আগ পযর্šÍ রাজনীতিতে জরিয়ে থাকেন। যারা ১৬ই জুন বোমা হামলায় আহত হয়েছে তাদের মধ্যে অনেকেরই হাত পা নেই কিন্তুু তারা আজও শামীম ওসমানের সাথে রাজনীতি করে আসছেন। কিন্তুু নারায়ণগঞ্জে খন্দকার মোস্তাকের মত কিছু প্রেতাতœারা ওসমান পরিবারকে নিয়ে কুটুক্তি করে, তাদের এই সব দেখে লজ্জা হওয়া উচিৎ।
তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশে কিছু সংবাদ কর্মী আছে তারা সঠিক তথ্য তুলে ধরেন না। তারা যদি সঠিক তথ্য তুলে ধরতেন তাহলে আমাদের দেশের এ অবস্থার সৃষ্টি হতো না। আমি তাদেরকে তথ্য সন্ত্রাসী বলে আখ্যাায়িত করবো।
আমরা রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান আমার দাদা, বাবা ,সকলেই রাজনীতির সাথে জরিত ছিলো আমার চাচা বঙ্গবন্ধুর সাথে রাজনীতি করেছেন। তাই পরিবারের পক্ষ থেকে সকলেই আমাকে সহযোগীতা করে। রাজনীতি ছাড়াও আমি বিভিন্ন সামাজিক সেবা মূলক প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত আছি। এত কিছু করার পরও আমি পরিবারকে যথেষ্ট সময় দেই। আমি ২৪ ঘন্টার রাজনীতিত্বে বিশ্বাসী নই, যারা একাজ করেন তাদের ভিতরে অসৎ উদেশ্য থাকতে পারে , তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে সাময়িক ভাবে এটা হতে পারে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম ২৪