Fri, 14 Dec, 2018
 
logo
 

সরকারি অফিসে গার্মেন্ট শ্রমিকনেতার তান্ডব

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: শহরের চাষাঢ়ায় কল কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের উপমহাপরিদর্শকের কার্যালয়ে বিসিকের ইয়াংফোর গার্মেন্টের কর্মকর্তাকে মারধর করেছে গাজী নূরে আলম নামের এক শ্রমিকনেতা। একজন শ্রমিকের অভিযোগের শুনানী চলাকালে দুপুরে সরকারি ওই অফিসে রীতিমতো তান্ডব চালায় ওই নেতা। এ ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় ওই শ্রমিকনেতার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

পঞ্চবটিস্থ বিসিক শিল্পনগরীর ইয়াং ফোর এভার টেক্সটাইলস গার্মেন্টের পিস রেইট শ্রমিক মো. সোহেল জানান, গত ১৪ আগস্ট কোন কারন ছাড়া তাকে চাকুরিচ্যুত করা হয়। ৬ নভেম্বর তিনি কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরে অভিযোগ করেন। এ বিষয়ে গতকাল শুনানীর দিন ধার্য করা হলে শ্রমিক সোহেল ও গার্মেন্টের এইচ আর (এডমিন ) জাহাঙ্গির হোসেন, এক্সিকিউটিভ এইচআর আসাদুজ্জামান উপস্থিত হন। এ বিষয়ে চিঠি না পেয়েও জাগো বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি গাজী মো. নুরে আলম শুনানীতে আসেন। শুনানীতে প্রথম শ্রমিক সোহেল তার বক্তব্য দেন পরে মালিক পক্ষে আসাদুজ্জামান বক্তব্য রাখার সময়ে নূরে আলম বাঁধা প্রদান করেন। এ নিয়ে কথা কাটকাটির এক পর্যায়ে নূরে আলম আসাদুজ্জামানকে ঘুষি মারেন।

শ্রমিক সোহেল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, মালিক প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান আঙ্গুল তুলে কথা বলায় নূরে আলম ভাই উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এরপর দুইপক্ষই হাতাহাতি করে।

গার্মেন্ট কর্মকর্তা জাহাঙ্গির হোসেন জানান, ‘ শুনানীকালে আসাদুজ্জামান বলেছিলেন ‘সোহেল বিভিন্ন সময় শ্রমিকদের নিয়ে ষড়যন্ত্র করতো। এখন যদি আমাদের নিয়ম মানে, তাহলে ঠিকাদারের মাধ্যমে কাজ করবে।’ বলার সাথে সাথে শ্রমিক নেতা নূরে আলম উত্তেজিত হয়ে তাকে কিল ঘুষি মারতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে চেয়ার দিয়ে মারার চেষ্টা করেন।

এবিষয়ে শ্রম পরির্দশক মোহাম্মদ ফয়জুর রহমান মাসুম জানান, কোন অভিযোগ পেলে শ্রম আইনের ১২৪ এর ‘ক’ ধারা অনুযায়ী আমরা তদন্ত করি। তদন্তের পর বিষয়টি নিয়ে মীমাংসা করার জন্য শুনানীর আয়োজন করা হয়। গতকাল মীমাংসার শেষ পর্যায়ে মালিক প্রতিনিধি আসাদুজ্জামানের উপর হামলা করে নূরে আলম নামের শ্রমিক নেতা। তিনি ক্ষুব্দ কন্ঠে জানান, এমন ঘটনা কাম্য নয়। এতে অফিসের পরিবেশ নষ্ট হয়েছে। তাই আমরা দায়ি ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিয়েছি।

বিসিকের একাধিক গার্মেন্ট মালিক জানান, অনেকদিন ধরে এখানে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রয়েছে। মালিক শ্রমিক একজোট হয়ে দেশের রপ্তানী শিল্পে অবদান রাখছে। তবে তা ভালো চোখে দেখছেনা একশ্রেনীর শ্রমিকনেতা নামধারী। তারা গার্মেন্ট শিল্প ধ্বংস করতে নানা ষড়যন্ত্র করে।

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম